এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) কি?

এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) হল কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং উদ্ভাবনকৃত কম্পিউটারসমূহ। এনিয়াক হল প্রথম পৃথিবীর প্রথম ইলেকট্রনিক ডিজিটাল কম্পিউটার, যা ৫০টন ভারী ছিল। এডস্যাক ও ইউনিভ্যাক কম্পিউটারগুলোও প্রথম ডিজিটাল কম্পিউটার হিসাবে পরিচিত ছিল। এডস্যাক উদ্ভাবিত হয়েছিল ব্রিটেনের কেমব্রিজ যুক্তরাষ্ট্রের সূচনাপত্র নির্দেশ করেছেন।

দুটি কম্পিউটারের মধ্যে পার্থক্য তত ছিল না, তবে প্রযুক্তির উন্নয়নের সাথে সাথে এদের থেকে অনেক আরো বেশি প্রযুক্তিগুলো উন্নয়ন হয়েছে। একটি কম্পিউটার সাধারণত একাধিক ভাগ থাকে যা সংযুক্ত হয়ে থাকে এবং এদের কাজ করার নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য থাকে।

কম্পিউটার প্রথম যন্ত্রপাতি এনিয়াক (ENIAC)

এনিয়াক (ENIAC) হল প্রথম পুরোপুরি ডিজিটাল কম্পিউটার। এটি ১৯৪৫ সালে তৈরি হয়। এনিয়াকটি সর্বোচ্চ ৩০ টন ওজনের ছিল এবং ৬৮,২৭৫টি বিদ্যমানগুলি ছিলেন। এনিয়াকে ব্যবহার করতে, কম্পিউটারের সাধারণত 5000 লিখন প্যানেল ছিল এবং সংজ্ঞায়িত ৫০,০০০ ব্যাটি সামগ্রী ছিল।

এনিয়াক ক্ষুদ্রতম কাজটি সম্পাদন করতে পারল ১০০০ বিলিয়ন অপারেশন প্রতি সেকেন্ডে। এনিয়াকে বানানোর বিচারে, এটি সত্ত্বোধক বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে সহায়তা করে। এনিয়াক একটি মহাবিপুল ফিউজন কম্পিউটার ছিল, যা আধুনিক কম্পিউটার উন্নয়নে ভূমিকা পালন করেছে।

এনিয়াক (ENIAC) একটি যন্ত্রপাতি যা ১৯৪৬ সালে তৈরি হয়েছিল।

এনিয়াক (ENIAC) হল কম্পিউটারের প্রথম যন্ত্রপাতি, যা ১৯৪৬ সালে তৈরি হয়েছিল। এটি আমেরিকার পেন্সিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য একটি গাণিতিক যন্ত্র হিসেবে তৈরি করা হয়। ইলেকট্রনিক জ্ঞানের প্রথমদিনগুলোতে এনিয়াক হিসেবে স্মরণীয় একটি কাজ তাঁর নামে দাখিল করেছে। এনিয়াক একটি মাত্র প্রথমত বিভিন্ন কাজ করতে পারছিল, যেমন বৃহত আকারের অনেক ধরনের গাণিতিক ক্যালকুলেশন, বহু সংখ্যার কোন একটি নির্দিষ্ট কাজকর্তা করা, ম্যাশিনে কোন ধরনের তথ্য সংরক্ষণ করা ইত্যাদি।

এনিয়াক একটি অসাধারণ উদাহরণ যেটি কম্পিউটার প্রযুক্তি কে একটি নতুন দিক দিয়ে নিয়ে গেছে। সেই কারণেই এনিয়াক কম্পিউটার ইতিহাসের গৌরবময় একটি অংশ।

এনিয়াক (ENIAC) একটি ব্যাক্তিগত ঘনত্ব যন্ত্র ছিল।

এনিয়াক (ENIAC) বিশ্বের প্রথম ইলেকট্রনিক ডিজিটাল কম্পিউটার ছিল। এই যন্ত্রটি ১৯৪৫ সালে তৈরি করা হয়েছিল এবং এর মূল উপকরণগুলোতে ২০ হাজারটা ইলেকট্রনিক বিভিন্ন স্থানে লাগানো হয়েছিল। এই যন্ত্রটি শুধুমাত্র গণনা করার জন্য নয়, পরিমাণ পরিসংখ্যান ও তার প্রয়োগ সম্পর্কিত কাজগুলির জন্যও ব্যবহৃত হতো। এনিয়াক যন্ত্রটি অত্যন্ত স্পিডি ছিল এবং এতটাই বড় ছিল যে এর জন্য একটি পুরো কক্ষের আবদ্ধতা নেওয়া হতো।

এনিয়াক একটি ব্যাক্তিগত ঘনত্ব যন্ত্র হওয়া সেই সময়ে বিশেষ পরিকল্পনাগুলি মেনে নেওয়া হয়েছিল এবং সেই পরিকল্পনা বিভিন্ন কাজে কম্পিউটারের ব্যবহার করা হতো। এনিয়াক একটি স্বাভাবিক সংখ্যা গণনা করার সাথে সাথে লেখাপড়ার কাজেও ব্যবহৃত হতো, এটি অত্যন্ত বিশাল এবং যথেষ্ট একটি ব্যবস্থা ছিল যা কম্পিউটার ভবিষ্যতে একটি বড় ধাপ নেওয়ার জন্য সৃষ্টি করেছিল।

এনিয়াক (ENIAC) একটি ডিজিটাল যন্ত্রপাতি ছিল না।

কম্পিউটার প্রথম যন্ত্রপাতি হিসেবে পরিচিত এনিয়াক (ENIAC) এর উদ্ভবণ সম্পর্কে কথাটি আমাদের জ্ঞানবাহী করে দিয়েছে। এনিয়াক হল কম্পিউটারের প্রথম সমূহ যন্ত্রপাতি যা প্রথম ভারত ও চাইনার জয়েন্ট উদ্যোগে তৈরি হয়েছিল। এনিয়াকে যন্ত্রপাতিতে একটি পুরো কম্পিউটার রাখা যেতো না কারণ এটি ডিজিটাল যন্ত্রপাতি ছিল না। এনিয়াক ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি ছিল যা বিভিন্ন প্রকারের নিউমেরিক্যাল করতে ব্যবহৃত হতো।

ENIAC যন্ত্রপাতিটি প্রাচীন নিউমেরিক্যাল করতে আবজাদ হয়ে ছিল এবং এটি ক্লক সহ একটি মেমরি তৈরি করতে পারত। এনিয়াক একটি অবিরাম যন্ত্রপাতি ছিল এবং কম্পিউটার ইতিহাসে একটি বিপর্যস্ত ধারণা নিয়ে নিয়েছিল।

এনিয়াক (ENIAC) একটি ইলেকট্রমেকানিক জান্নার এরিয়া পরিচালিত হত।

কম্পিউটার প্রথম যন্ত্রপাতি এনিয়াক (ENIAC) হল একটি সাধারণ জান্নার নয়, বরং একটি ইলেকট্রমেকানিক জান্নার। এই প্রথম ডিজিটাল কম্পিউটারটি ইলেকট্রনিক বোর্ড এরিয়া দ্বারা পরিচালিত হত। প্রথম প্রোগ্রাম গুলো মেশিন কোডে লেখা হত এবং পাঞ্চটি স্লোটে কারেট (৫৫টি স্পেশ কারেট) ব্যবহার করে কাজ করত। এনিয়াক নামটি একটি বিশেষ অর্থ রেখে যাচ্ছে – “Electronic Numerical Integrator and Computer”।

এই যন্ত্রটি প্রথম বানানো হয়েছিল দুইটি ভারতীয় অর্থকরী আত্মা জন্মানোর আগে, তবে তার আরম্ভিক পরিকল্পনা থেকে আসলে এর উৎস শেষ যাওয়ার পর্যন্ত অনেক বছর লেগে গেল। এনিয়াক এর উদ্ভাবন তখন একটি মেঘালয় জেলা কোর্টের একটি কেসের কারণে হলেও এই জান্নারটি হল দিগন্ত বদলাতে। সর্বশেষ, এনিয়াক এর বৃহৎ এবং মাথানষ্ট সাইজ তার কাজের সুবিধা না দিলেও আজকের সর্বাধিক কম্পিউটার এর উৎস হিসাবে এটি একটি অনন্য স্থান রেখে দিয়েছে।

এডস্যাক (EDSAC) একটি আধুনিক পরিস্কার জান্ত্রিক এবং ডিজিটাল যন্ত্রপাতি

এডস্যাক (EDSAC) হল একটি একাধিক ইলেকট্রোনিক ডিজিটাল কম্পিউটার, যা ১৯৪৯ সালে কেমব্রিজ ইউনিভার্সিটিতে উন্মুক্ত করা হয়েছিল। এটি সাধারণত ব্যবহারকারী প্রোগ্রামিং ভাষায় লেখা হত এবং একটি প্রস্তুত প্রোগ্রামকে নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত মেশিন কোডে রূপান্তর করে। এডস্যাকের সেটআপটি একটি এনীকে এবং একটি ব্যাটারি থেকে উর্ধস্থ হতে হত এবং এটি হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যারের পরিষ্কার পাঠক্রম ব্যবহার করে। এডস্যাক অবকাঠামোকে ব্যবহার করে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ প্রজেক্টে ব্যবহৃত হয়েছে, যেমন লেলাণ্ড এবং থ্রাশারের নোটপ্যাড, চিন্তার মেশিন এবং সামরিক রেডিও এর জন্য ভূমিকা নির্ধারণ এবং অনুসন্ধান করে কিছু আউটপুট ডিজাইন করার জন্য ব্যবহৃত হয়।

এডস্যাক একটি সাধারণ এবং ভাল পরিষ্কার কম্পিউটার ছিল, যা আধুনিক কম্পিউটার প্রযুক্তিতে একটি আদর্শ উদাহরণ হিসাবে গণ্য করা হয়।

এডস্যাক (EDSAC) বর্তমানে সর্বাধিক প্রভাবশালী এবং জনপ্রিয় কম্পিউটার জিনিসগুলোর মধ্যে এক।

এডস্যাক (EDSAC) হল প্রথম পরিস্কার ডিজিটাল কম্পিউটার এবং এটি বর্তমানে সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে গেছে। এডস্যাক জিনিসটি মার্চ, ১৯৪৯ সালে গ্রেট বন্ধ ইনসিটিউট, কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে তৈরী হয়েছিল। এটি রিকোর্ডের জন্য থাকতে পারে ১২৮টি সিরকিট বোর্ড। এটি বিশেষতঃ ইংরেজি সংখ্যা গণনা এবং শব্দাদি ব্যবহার করে ভাষার সীমার বাইরে গণিত করার জন্য তৈরী করা হয়েছিল।

এটি পরিচালনার জন্য একটি নার্মাল ফর্ম ব্যবহার করতে পারে। এডস্যাক এখন স্মৃতিতে আছে এবং বর্তমানে এটি দুর্নীতি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বিশ্বব্যাপী ব্যবহৃত হচ্ছে। এডস্যাক একজন নববর্ষ স্মরণ রক্ষা করে তোলা একটি ইংরেজি কবি থেকে নামকরণ করা হয়েছিল। নববর্ষ যার ভাষার ক্ষেত্রে অত্যন্ত দক্ষ ছিলেন সে ছিল ক্রিস্টোফার কোলাম্বাইন।

এডস্যাক (EDSAC) পরিস্কার ডিজাইন এবং উন্নয়নের একটি উদাহরণ।

এডস্যাক হল প্রথম পুরোপুরি ডিজিটাল কম্পিউটার, যা বিশ্বের হাজার হাজার প্রোগ্রামারদের সময় এবং কাজকর্ম সংশ্লিষ্ট তথ্যবহুল করেছে। সেই সময়টাতে এটি একটি প্রথম খুব পরিষ্কার ডিজাইন পেশ করে। এটি নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার করে বিশ্বের প্রথম প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজের একটি সাধারণ রূপটি উদ্ভাবন করে এবং এটি অনেকগুলি কাজ সহজ করে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। এডস্যাক একটি ভৌগোলিকভাবে বিকশিত কম্পিউটার সিস্টেম, যা বিভিন্ন প্রকারের নির্দেশ দেতে পারে এবং কম্পিউটার নির্দেশিত হতে পারে।

এটি সমস্ত বিজ্ঞানি সম্প্রদায়ের জন্য একটি উপহার। এডস্যাক হল একটি আধুনিক যন্ত্রপাতি, একটি নতুন সময়ে বিশ্বের তথ্য প্রযুক্তিতে একটি বিশ্বব্যাপী ক্রান্তি হিসাবে পরিচালনা করে।

এডস্যাক (EDSAC) একটি ডিজিটাল কম্পিউটার হিসাবে কাজ করে এবং ব্যবহারকারীদের জন্য মাইক্রোকোড সিস্টেম ব্যবহার করে।

এডস্যাক (EDSAC) আধুনিক পরিস্কার জান্ত্রিক এবং ডিজিটাল যন্ত্রপাতি যা মানুষের প্রযুক্তিতে অংশগ্রহণ করে। এটি একটি ডিজিটাল কম্পিউটার হিসাবে কাজ করে এবং মাইক্রোকোড সিস্টেম ব্যবহার করে ব্যবহারকারীদের সেবা দেয়। এই কম্পিউটারটি তথ্য প্রক্রিয়া করা এবং দেখার জন্য পৃথক লোহার শক্তির ব্যবহার করে। এডস্যাকের সাথে একটি ভূমিকা রয়েছে সময়ের প্রথম প্রযুক্তিগুলোর প্রজননে এবং এটি কম্পিউটার ও প্রোগ্রামিং দুনিয়ায় একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হিসাবে পরিচিতি পায়।

See also  প্রেজেন্টেশন টেমপ্লেট (Presentation template) বলতে কী বোঝায়?

সার্ভিস প্রোভাইডাররা আধুনিক প্রযুক্তিতে তাদের সেবা পূর্ণ করতে এডস্যাক সিস্টেমকে ব্যবহার করে থাকে। এডস্যাক একটি আশ্চর্যজনক দিক দিয়ে আমাদের প্রযুক্তি কাজ করছে এবং নতুন এবং আরও ভুঁইচের সামনে লক্ষ্য করে সেবা নিয়ে দেবে।

ইউনিভ্যাক (UNIVAC) একটি বিশেষ কম্পিউটার

আমরা একটি কম্পিউটার নিয়ে আলাপ করছি যা আলাদা একটি বিশেষ কম্পিউটার। ইউনিভ্যাক (UNIVAC) নামক এই কম্পিউটারটি প্রথমবারে ব্যবহার করা হয়েছিল বিভিন্ন গণনা এবং পরিসংখ্যান কাজে। ১৯৫১ সালে শুরু হয়েছিল এই প্রথম প্রজন্মের সিএস কম্পিউটার বিক্ষোভ করে ফেলে দেখে দক্ষিন প্রান্তে আন্তর্জাতিক মেশিন এবং উপকরণগুলো তৈরি করার জন্যে একটি কম্পানি, জে পি এক্সসি (J. Presper Eckert and John Mauchly), গঠিত হয়েছিল। এই বিশেষ কম্পিউটারটি অবাক করা কেন্দ্রিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবহার করতে পারে এবং তার মাধ্যমে একটি শেষ পর্যন্ত ব্যবহার করা যেত।

ইউনিভ্যাকের প্রথমটি ব্যবহার করা হয়েছিল মেট্রোপলিটন লাইফ ইনশুরেন্স কোম্পানিতে এবং এর সাহায্যে ডেটাবেস বিশ্লেষণ করা যেত। টেকনলজিতে এসে এখন আমরা যেকোনো সংখ্যাগুলো খুব সহজেই গণনা করে নেত্রপদ্ধতিতে দেখতে পাই, কিন্তু সেই সময়গুলোতে এমন কম্পিউটার ছিল না। আজ ইউনিভ্যাক যেন আমাদের উচ্চতর লেভেলের কম্পিউটার থেকেও এগিয়ে চলেছে।”

ইউনিভ্যাক (UNIVAC) একটি স্পেশাল পার্পোজ কম্পিউটার ছিল যা বিষয়দ্বয়ের জন্য ব্যবহার করা হত।

ইউনিভ্যাক একটি স্পেশাল পার্পোজ কম্পিউটার ছিল যা বিষয়দ্বয়ের জন্য ব্যবহার করা হত। এটি প্রথমবারের মতো একটি ফর্ম ফ্যাক্স এবং ব্যাংকিং উদ্যোগে ব্যবহৃত হয়। বিভিন্ন প্রযুক্তিগুলির সংযোগে এই কম্পিউটারটি বেশ দ্রুত ইনপুট প্রদর্শন করতে পারে। ইউনিভ্যাক তথ্য প্রক্রিয়াকে অনলাইনে কম্পিউটারি মডেল এর উপর নির্ভরশীল একটি কার্যকর উদাহরণ।

এটি আরও লম্বা এবং বিস্তৃত কম্পিউটারের সাথে তুলনায় প্রতিষ্ঠানগুলি কমপ্লেক্স চিত্রগুলি প্রস্তুত করতে পারেছে। শেষমেষ কম্পিউটারের দরকার থেকে যেমন এই কম্পিউটার প্রযুক্তিগুলির একটি উপোগ উধাহরণ তে তুলনায় প্রকৃত জনসংখ্যার সাড়া দেওয়া সড়ক মানচিত্র পরিচালনা করতে সক্ষম। এই উন্নয়নে সেক্টরের মানুষের মধ্যে একটি রুচি বিকাশও জন্ম নেওয়ার সুযোগ হয়েছে।

ইউনিভ্যাক (UNIVAC) একটি রম এবং রেম ব্যবহার করে কাজ করে।

ইউনিভ্যাক (UNIVAC) হল একটি বিশেষ কম্পিউটার যা প্রথম তথ্যপ্রক্রিয়া করার জন্য ব্যবহৃত হয়। এই কম্পিউটারটি বহুল রাম (Random Access Memory) এবং রেম (Read-Only Memory) ব্যবহার করে কাজ করে। এটি বিশেষভাবে গণনাগুলির জন্য উন্নয়ন করা হয়েছিল এবং তার একটি প্রধান লক্ষ্য ছিল পূর্ববর্তী কম্পিউটারগুলির তুলনায় বেশি দ্রুত এবং নির্ভরযোগ্য হওয়া। ইউনিভ্যাক বিশেষভাবে ব্যবহৃত হয় মুখ্যতঃ কারখানা, ব্যাংক এবং আয়কর বিভাগের তথ্য এবং স্ট্যাটিস্টিক্যাল গণনার জন্য।

এটি সম্পূর্ণ প্রোগ্রামের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয় এজন্য এটি একটি ক্ষুদ্র বা একটি বড় কাজের জন্য ব্যবহৃত যেতে পারে। UNIVAC একটি অসাধারণ কম্পিউটার এবং এর মাধ্যমে তথ্য প্রক্রিয়া করতে খুব সহজ। সরল লেখা, একটি পূর্ণসম্পন্ন কার্যকর উপস্থাপনা এবং উন্নয়নের ক্ষেত্রে ইউনিভ্যাক বিশেষভাবে কার্যকর হয়ে থাকে।

ইউনিভ্যাক (UNIVAC) কম্পিউটার প্রথমে সংখ্যা ইনপুট করে এবং তারপর সমস্ত গণনা করে যা একটি বিজয়ী তাক বাংলা হয়।

ইউনিভ্যাক (UNIVAC) কম্পিউটার একটি বিশেষ কম্পিউটার যা ইতিহাসের প্রথম ব্যবহৃত কম্পিউটারের মধ্যে ছিল। এটি একটি বিজয়ী তাক বাংলা হওয়ার আগে ইউনিভ্যাক বিশ্বের প্রথম এলেকট্রনিক ডিজিটাল কম্পিউটার ছিল। ইউনিভ্যাকের বৃহত্তম ক্ষেত্র সংখ্যা গণনার জন্য ব্যবহৃত হতো। এই কম্পিউটারে প্রথমে সংখ্যা ইনপুট করা হতো এবং তারপর সমস্ত গণনা করা হতো।

ইউনিভ্যাকের অর্থ হলো ইউনিভার্সাল একাউন্টেন্টিং সিস্টেম ব্যবহার করে। ইউনিভ্যাক কম্পিউটারের প্রচলিত সংখ্যা পদ্ধতি ছিল ভিন্নভাবে। ইউনিভ্যাক কম্পিউটারের গণনাগুলি একে অন্যকের প্রতিআধারে করা হতো। তাই এটি খুবই আবদ্ধপ্রবণ কম্পিউটার হিসাবে পরিচিত।

আজকে ইউনিভ্যাক কম্পিউটারের ব্যবহার অনেক পরিবর্তিত হয়েছে, কিন্তু এর ঐতিহ্য সবসময় বজায় রাখা হয়।

এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) এর ব্যবহার এবং পরিবর্তন

কম্পিউটার প্রচেষ্টার প্রথম প্রসিদ্ধ সিস্টেম হল এনিয়াক (ENIAC), যা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় উত্পাদিত হয়। এটি বর্তমান সবচেয়ে বড় কম্পিউটার থেকে একটি ছোট ব্যাচ-অপারেটেড যা মাত্র ১৮৯৮ পিএল ব্যবহার করে। এনিয়াককে সাধারণত বিজ্ঞানীরা স্বপ্ন দেখা উচিত কেননা এর ১ মাইল লম্বা কেবল একটি বড় কাঠ দ্বারা আবদ্ধ ছিল। এরপর এডস্যাক (EDSAC) নামে আরেকটি বিশাল সিস্টেম উন্মুক্ত হয়।

এটি আইভারি হাউস কলেজের একজন প্রফেসর সিরেক মোলটন এবং তার দল দ্বারা উত্পাদিত হয়। এ সিস্টেম ইংরেজ ভাষার জন্য ব্যবহার হতে শুরু হতেই একটি বিশেষজ্ঞতা উজ্জ্বল হয়ে উঠে। পরে ইউনিভ্যাক (UNIVAC) আরও একটি বিপুল সিস্টেম উন্মুক্ত হল। এটি বোঝা যাচ্ছে যে এই তিনটি প্রকল্পই বিপুল পরিবর্তন এনেছিল কম্পিউটার প্রযুক্তিতে এবং সময়ের সাথে মেশিনের আকার ও কম্পিউটিং শক্তি বাড়িয়ে দেয়।

এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) কম্পিউটারকে মূলত ইন্ডাস্ট্রি এবং সরকারের কাজে ব্যবহার করা হত।

“ENIAC, EDSAC, এবং UNIVAC হলো আধুনিক কম্পিউটার যা প্রথম তথ্য প্রক্রিয়াকরণে ব্যবহৃত হয়। এই কম্পিউটারগুলি মূলত ইন্ডাস্ট্রি এবং সরকারের কাজে ব্যবহৃত হতে গেছে। এনিয়াক মূলত সৈনিক গণনার জন্য উন্নয়নকৃত হয়। এই কম্পিউটারটি সম্পূর্ণ ইলেকট্রনিক এবং বৈদ্যুতিন ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যবহার করে তৈরি হয়।

EDSAC ইউরোপীয় একটি কম্পিউটার যা প্রথম ব্যবহার করে জলবায়ু নির্ভর করে। এটি সাধারণত উন্নয়নশীল কর্মসূচি রাখল যা গণনা সমস্যাগুলির সমাধান জন্য উপযোগী ছিল। আর UNIVAC কম্পিউটারটি মার্কেটিং এবং আর্থিক উন্নয়নে ব্যবহৃত হয়। এটি জাতীয় সম্পদ ভোক্তাদের তথ্য বিতরণে ব্যবহৃত হত।

এই সম্পূর্ণ ইলেকট্রনিক বা ডিজিটাল সিস্টেমগুলি আধুনিক কম্পিউটারের উদ্ভবে মৌলিক ভূমিকা রাখে।”

কম্পিউটার ব্যবহার ও তার বৈদ্যুতিন পার্থক্য ইতিহাসের একটি অনুভূতিমূলক পরিবতরণ।

কম্পিউটারের বৈদ্যুতিন পার্থক্য এবং তার ব্যবহার প্রতিষ্ঠান ইতিহাসের একটি অনুভূতিমূলক পরিবতরণ। সাধারণত মানুষের মতো কম্পিউটারের কাজ হল গণনা এবং নজরদারি। ইংরেজি মহাদেশে তার উদ্ভব প্রথমতঃ ভৌততত্ত্ব ভিত্তিক গবেষণার ফলে হয়েছিল প্রথম আর্মি কম্পিউটার নামক বিষয়টি। কিন্তু এটি ব্যবহার করা কঠিন এবং বিশাল ছিল।

তাই বিভিন্ন সেটব্যাক যুক্তিযুক্ত কম্পিউটারের উদ্ভব হয়, যেমন এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC)। এনিয়াকটি প্রথম বেশি ব্যবহার করা হয়েছিল যুদ্ধ মন্ত্রণালয়ে আরও ত্বরিত হিসাব করার সময়, আর এডস্যাক ইংরেজিতে প্রথম প্রোগ্রামিং ভাষা বিভিন্ন সফ্টওয়্যার ও নেটওয়ার্ক উন্নয়নের জন্য ব্যবহার হয়। একইভাবে, ইউনিভ্যাক সিস্টেমটি প্রাথমিক বাস্তব কাজের মধ্যে ব্যবহৃত হয় এবং এর মধ্যে আবিষ্কার করা হয়েছে একটি জনসম্পদ ব্যাংক ব্যবস্থা, যা পারমাণবিক বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন ছিল।

এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) এমন কম্পিউটার যা আধুনিক কম্পিউটার ও কম্পিউটার ভবিষ্যতের উন্নয়নে একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) এমন কম্পিউটার যা আধুনিক কম্পিউটার এবং কম্পিউটার ভবিষ্যতের উন্নয়নে একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এদের ব্যবহার করে মানুষ প্রথমবারের মতো গণনা এবং নূতন তথ্য প্রক্রিয়া করতে পারেন। প্রায় চার দশক আগে এই কম্পিউটারগুলি মানুষের স্বপ্ন ছিল এবং এখনও এদের জন্য সবচেয়ে মৃদুল স্পর্শশীল গণনা মান হিসেবে বিক্ষোভজনক হিসাবে পরিচিত। এনিয়াক দিয়ে অবমুক্ত Benefits of Scientific Computing বিশ্বের প্রথম ডিজিটাল কম্পিউটার তৈরি হয়।

See also  গ্রাফিক্স (Graphics) বলতে কী বোঝায়? গ্রাফিক্সের প্রকারভেদ।

দুটি শক্তিশালী মঞ্চে স্থাপিত, এনিয়াক দীর্ঘকাল ব্যবহার করা হয়েছে যেটি সময়, বাতি, সংখ্যা এবং উচ্চ তাপমাত্রার গণনাগুলি প্রসেস করতে সক্ষম ছিল। অবমুক্তের বাবার প্রেসফোট করার পর এডস্যাক প্রকল্পটির পাশাপাশি তৈরি হয়, যা সংখ্যাগণনা, গ্রাফিক্যাল প্রসেসিং, কনট্রোল এবং প্রোগ্রামিং এবং প্রযুক্তিগুলির একটি সমন্বিত শৃঙ্খলা বৈশিষ্ট্য অর্জন করে। এনের একটি মজার কাজ হল আপনি সেখানে একটি পূর্ব নির্ধারিত প্রোগ্রাম না চালিয়ে নতুন প্রোগ্রাম লেখতে পারেন। আজকে ইউনিভ্যাকের সাথে অনেকগুলি বিশেষ ক্ষমতা রয়েছে যা এর একজন প্রযুক্তিগত গুরুত্ব এবং তার দিক দর্শানো নেই।

এই কম্পিউটার ব্যবহার করে আপনি বিশ্বের মোটামুটি যে কোনও অংশে সহজেই ডিজিটাল ডাটা প্রসেস করতে পারেন।

কম্পিউটারের ভবিষ্যত

আমরা সবাই জানি যে কম্পিউটার আধুনিক প্রযুক্তির একটি মাধ্যম এবং তার ভুমিকা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অসংখ্য উদ্দেশ্যে নিবেদিত। এখনও কম্পিউটার এ প্রযুক্তির মানচিত্র ফিরে ব্যতিক্রম করছে এবং কম্পিউটার এর ভবিষ্যত কিছুটা অমিল আগের মতো অজানা। তবে আমাদের প্রযুক্তি সম্পর্কিত জ্ঞান এবং উন্নয়নের সাথে সাথে কম্পিউটার এর কাজের প্রভাব বা এর বৈশিষ্ট্য আরও বাড়ছে। চোখের সামনে একটি পরিসরে কম্পিউটার আমাদের সব কাজে সহায়তা করবে এমন একটি ভবিষ্যত মানবতার জন্য উদ্দেশ্য যা খুব কাছাকাছি।

আসুন আমরা আমাদের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সম্পর্কে বিস্তারিত জানো এবং কম্পিউটার এর সুযোগ এবং বিশেষত্ব নিয়ে আলোচনা করি।

আধুনিক কম্পিউটারগুলি বেশ কিছু বছর ধরে উন্নয়ন করা হয়েছে।

আধুনিক সময়ে কম্পিউটারের উন্নয়ন সর্বত্র অধিক উপস্থিত এবং এর ভবিষ্যত অত্যন্ত উজ্জ্বল। টেকনোলজিতে এই অবনতি অসাধারণ এবং এর সামগ্রীকরণ সাধন করছে ভারতীয় ও বিশ্বব্যাপী বিনিয়োগেও। কম্পিউটার উন্নয়নের পাশাপাশি আধুনিকতম প্রযুক্তির ব্যবহার এর জন্য সম্ভবত একটি মেধার দিয়ে শিখার জন্য বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম এবং অনলাইন শিক্ষামুলক স্তম্ভ উপলভ্য। বর্তমান আইসিটি ক্ষেত্রে ভবিষ্যত এক বিস্তৃত ফ্যামিলি থাকা উচিত, যা সকল মানুষের জন্য সুবিধাজনক এবং আধুনিকতম প্রযুক্তি ব্যবহার করে সহজে সমাধান করতে পারে।

আমরা আশা করি এই প্রযুক্তির উন্নয়ন এর পাশাপাশি আরো উন্নয়ন হবে ও ফলস্বরূপ আমরা বেশি উপকার পাই।

কম্পিউটারের একটি গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন হল কোয়ান্টাম কম্পিউটিং।

আধুনিক প্রযুক্তির সেই দিন থেকে পর দিন কম্পিউটার বিশ্বের ভিত্তি হিসাবে উভয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। আর এখন প্রযুক্তির একটি নতুন দিক হল কোয়ান্টাম কম্পিউটিং। এটি আধুনিক জীবনপ্রদানের একটি নতুন দিক, যা বিভিন্ন প্রযুক্তিগুলির মধ্যে সংশ্লিষ্ট একটি হিসাবে পরিচয় করে। কোয়ান্টাম কম্পিউটিং প্রযুক্তিতে, আমরা ধারণ করি যে বহুল সংখ্যক জিনিস একটি সমস্যার সমাধানে দ্বিতীয় সাইলো হিসাবে ব্যবহার করা যায়।

আর এর ফলস্বরূপ, কোয়ান্টাম কম্পিউটার যথাযথ প্রকল্পগুলি চালিত করতে এসে একটি নতুন কম্পিউটিং স্তর সৃষ্টি করেছে। এটি নিশ্চিত করতে সক্ষম যে ব্যক্তিগত বিষয়ের উপর নিয়ে কাজ করা হবে না বরং বয়স্ক ব্যষ্টি একটি এলগরিদম স্পষ্ট করতে হবে। আমাদের প্রযুক্তির সমস্ত ক্ষেত্রে আমরা এই উন্নয়নটি সম্পূর্ণ করতে পারব এবং নতুন নতুন বিষয়ে উন্নয়ন করতে থাকব।

আবস্যই আসছে একটি সুস্থিত স্বতন্ত্র এবং বুদ্ধিমান পরিচালিত কম্পিউটার সৃষ্টির উদ্যোগ।

কম্পিউটারের ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে না বিনা কম্পিউটারের সামর্থ্য এবং সুযোগ নিয়ে। কিন্তু এখন পর্যন্ত প্রযুক্তির সাথে যাছাই করছে নতুন নতুন হারে। এখন আমরা একটি সুস্থিত এবং স্বতন্ত্র কম্পিউটার সৃষ্টির পথে ডগমগে হাঁটার চেষ্টা করছি। কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে দ্বিধা বাড়ানোর চেষ্টা করে না এমন একটি স্বতন্ত্র এবং সুসংবেদনশীল কম্পিউটার সৃষ্টির কাজ চলছে এবং এটি বিশ্বের সকল অংশে ব্যবহারযোগ্য হবে।

আমরা নির্ভুল লজিক, কম্পিউটার ভিজ্যুয়াল মডেলিং, নতুন প্রযুক্তি এবং ডেটা বিশ্লেষণে ভরসা করছি। বুদ্ধিমান কম্পিউটার যেখানে নিউরাল নেটওয়ার্ক এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সম্পর্কে জ্ঞান সংগ্রহ করছে, আমরা তারই দিকে এগিয়ে চলছি। আমরা নিজেকে একটি নতুন দিগন্তে ভাবছি সেখানে উচ্ছ্বসিত থাকে কম্পিউটারের প্রযুক্তি বিশ্ব। যে ভবিষ্য এখনো অপরিষ্কার কিছু, তবে সম্ভবত শীঘ্রই একটি সুস্থিত, স্বতন্ত্র এবং বুদ্ধিমান কম্পিউটার সম্পর্কে আমরা আরও বেশি শুনতে পাব।

সংক্ষিপ্ত পর্যালোচনা

ব্লগে একজন লেখক হোন মনে করেন, এটি মনে রাখা সত্যি যে যেখানে একজন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী পোষ্ট পড়তেন, সেখানে তার মনকে লাগে ব্লগটি পড়তে। একটি কম্পাক্সিটি বোঝার পরও এমন পোষ্ট যদি সহজ লিখে থাকা হয়, তবে ব্লগটি আরো উৎসাহবোদ্ধক হয়। ব্লগ পোষ্ট শুরু হল এমন একটি সাধারণ এক্সপেরিয়েন্স শেয়ার করতে পারে যেটি একটি ব্লগ হতে উপস্থাপন করতে হবে। ক্যাটাগরি নির্বাচন ও শিরোনাম কোম্পাক্ট এবং কনসিস্টেন্ট হলে প্রকৃত সার শাখা ঠিকমত সাথে চলে আসে।

ব্লগ পোস্টে কাজের অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে লেখক পাঠকের সাথে ছড়িয়ে দেয় তার জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা।

এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) এসব কম্পিউটার সংচালন ও উন্নয়নের সফল এবং গুরুত্বপূর্ণ উপসাধন।

কম্পিউটার সংক্রান্ত ইতিহাসে এনিয়াক (ENIAC), এডস্যাক (EDSAC), ইউনিভ্যাক (UNIVAC) নামগুলি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এদের উপস্থিতি সংবেদনীয়, কারণ এদের মাধ্যমে কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির এক নতুন যুগ উদ্ভাবন হয়। এনিয়াক এবং এডস্যাক নংবর্তমান যুদ্ধকালের জন্য তৈরি করা হয়েছিল যাতে যুদ্ধে জিটিসি করা যেত। উইলিয়াম শকলি ও জন মফলি সম্প্রদায়ের এডস্যাক কম্পিউটার প্রথমবারে ডিজাইন করেন।

এদের কম্পিউটারটি শুরুতেই একটি অভিজ্ঞতাসম্পন্ন সফল উদ্যোগ হয়ে উঠে। UNIVAC কম্পিউটারটি প্রথম বিশাল কমার্শিয়াল কম্পিউটার হিসাবে পরিচিত এবং অনেকের মনে উন্নয়নের একটি নতুন ধাপ হয়। আজকে এদের উন্নয়ন কাজের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে এবং এদের প্রভাব আমাদের সকলের জীবনের অনেক বিষয়ে প্রভাব ফেলেছে।

আধুনিক কম্পিউটারের উন্নয়ন নানা প্রযুক্তি এবং পুরাতন কম্পিউটার মডেলের জন্য শ্রদ্ধাসূচক।

আধুনিক কম্পিউটারের উন্নয়ন নানা প্রযুক্তি এবং পুরাতন কম্পিউটার মডেলের জন্য একটি শ্রদ্ধাসূচক বিষয়। প্রথমেই কম্পিউটারের উন্নয়নের চরম সীমার উপর থাকে জাতিসংঘের ENIAC কম্পিউটার, এই কম্পিউটারে প্রথম বাইনারি কোড ব্যবহৃত হয়। এরপরে কম্পিউটারের উন্নয়নে নানা প্রযুক্তি ব্যবহৃত হয়েছে, যেমন সিস্টেম-এক্স মাও ডলার ব্যাখ্যা করার জন্য যা ব্যবহৃত হয়। একটি সাধারণ অপারেটিং সিস্টেম হল এক্সপারটিএন সিস্টেম।

আধুনিক কম্পিউটারের কাজ করার জন্য এসএসডি, এসকিউয়েল, জাভাস্ক্রিপ্ট এবং নোডজেএস ব্যবহৃত হয়। এছাড়াও একটি নতুন প্রযুক্তি হল কেন্দ্রীয় প্রকল্প হিসাব বরাদ্দকরণ (সিআরওএস)। সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, আধুনিক কম্পিউটারের প্রযুক্তি অনেক উন্নয়ন করেছে তবুও পুরাতন কম্পিউটার মডেলগুলি বহুল ব্যবহৃত হয় এখনও। এগুলি কোডিং, মেশিন লার্নিং এবং এমপি এক্সপিয়েন্শিয়াল সমস্যাগুলি সমাধান করার জন্য ব্যবহৃত হয়।

পুরাতন কম্পিউটার মডেলে ব্যবহৃত সমস্ত প্রযুক্তিগুলি বিকল্প করে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে, যা কম্পিউটারের কাজ চমৎকার এবং সহজ করেছে।

Leave a Comment