আপনি কি এসইও এক্সপার্ট হতে চাচ্ছেন?আসুন তাহলে শুরু করি

আপনি কি এসইও এক্সপার্ট হতে চাচ্ছেন?আসুন তাহলে শুরু করি

এসইও

এসইও এক্সপার্ট শব্দ শুনতে সহজ হলেও কিন্তু ব্যপারটা সত্যিই অনেক পরিশ্রমের একটি অধ্যায়|পরিশ্রম মানেই আপনি পারবেন না এমন টা নয়। যেকোনো বিষয়ে এক্সপার্ট হতে মন দিয়ে লেগে থাকলেই সফলতা আসবে ইনশাল্লাহ।

এসইও এমন একটি বিষয় |আপনি আর্টিকেল+ভিডিও দেখে দেখে শুধু সিস্টেম গুলো জানলেই হবেনা। আপনাকে সিস্টেম গুলোকে কাজে রুপান্তরিত করতে হবে।

যে যতটুকু প্র্যাকটিস করবে সে ততোটাই এক্সপার্ট হিসেবে নিজেদেরকে প্রমাণ করতে পারবে।

আপনি যখন মনে করবেন যে, এসইও পারেন বাট কাজ পাচ্ছেন না। তখন আপনাকে মনে করে নিতে হবে আপনি এখনো এসইও এক্সপার্ট লেবেলে শিখতে পারেননি।

আপনি নিজেকে একবার প্রশ্ন করে দেখুন, আমরা কাজ পেতে যতটা না আগ্রহী,আমাদের স্কিল কিন্তু সেই পর্যায়ের না। আর তাই আমরা কাজ পাইনা।

What is SEO (Search Engine Optimization) and How Does it Work? -2020

অনেক ভুমিকা করলাম যেন আপনি বুঝতে পারেন। চলুন এবার আসল কথায় প্রবেশ করি …

সহজ ভাষায় যদি বলি এসইও হলো এমন একটি সিস্টেম, যেই সিস্টেম ফলো করে আপনার ওয়েবসাইটকে গুগল সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম পেইজে নিয়ে আসা। গুগল সার্চ ইঞ্জিন ছাড়াও আরো অনেক সার্চ ইঞ্জিন আছে যেমন – বিং,ইয়াহু ইত্যাদি।

এসইও কে তিন ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে:

  • হোয়াইট হ্যাট এসইও

  • গ্রে হ্যাট

  • ব্ল্যাক হ্যাট

  • হোয়াইট হ্যাট: – হলো গুগলের নিয়ম কানুন মেনে যে মাধ্যমে এসইও করা হয়ে থাকে তাকে হোয়াইট হ্যাট এসইও বলা হয়ে থাকে।
  • গ্রে হ্যাট:–গুগলের কিছু গাইডলাইন মানা আর কিছু না মেনে যে মাধ্যমে এসইও করা হয়ে থাকে তাকে বলা হয় গ্রে হ্যাট এসইও ।
  • ব্ল্যাক হ্যাট:–গুগলের কোনো গাইডলাইন না মেনে যে সিস্টেমে এসইও করা হয়ে থাকে তাকে বলা হয় ব্ল্যাক হ্যাট এসইও|

মৌলিক ভাবে এসইও কে আবার দুইভাগে হয়:

  • পেইড:

  • অরগানিক:

  • পেইড :

  • সহজ ভাষায় যে পদ্ধতির মাধ্যমে টাকার বিনিময়ে ওয়েবসাইট সার্চ ইন্জিনের প্রথম পৃষ্ঠায় আসে সে পদ্ধতিকেই পেইড এসইও বলে।
  • অরগানিক :

সহজ ভাষায় অরগানিক SEOএকটা ফ্রি পদ্ধতি। এর জন্য সার্চ ইঞ্জিনকে কোনো টাকা দিতে হয় না। অর্থাৎ,যে পদ্ধতির মাধ্যমে ফ্রিতে ওয়েবসাইট সার্চ ইন্জিনের প্রথম পৃষ্ঠায় আসে সে পদ্ধতিকেই অর্গানিক SEO বলে।

অরগানিক এসইও কে আবার দুটি ভাবে ভাগ করা হয়েছে:

1.অন পেইজ :

যে কাজ গুলো আপনি আপনার ওয়েবসাইট রেডি হয়ে যাওয়ার পরে করে থাকেন অর্থাৎ ওয়েবসাইটের অভ্যন্তরে যে কাজ করা হয় তাকে অন পেজ SEO বলে।যেমন: টাইটেল ট্যাগ, কনটেন্ট, কিওয়ার্ড অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইটে নতুন নতুন কনটেন্ট আপলোড দেওয়া, সাইটের লোডিং স্প্রিড বাড়ানো, সাইটের Url সুন্দর করে কাস্টোমাইজ করা ইত্যাদি।

2.অফ পেইজ :

যে কোনও ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা বাড়াতে যে প্রচার চালানো হয় তাকে অফ পেজ SEO বলে। যেমন ধরুন:URL Share, Link Building বা ব্যাক লিঙ্ক (Back Link) তৈরি করা ইত্যাদি।

আপনাকেও বলছি নিচে দেওয়া সাইটের আর্টিকেল গুলো পড়বেন। অনেক কিছু শিখতে পারবেন। সাইটের নাম গুলো হলো –

আমি জানি আমার এই কন্টেন্ট টি যদি ২০০০০ জন মানুষ পড়ে থাকে তার মধ্যে 5% মানুষ উপরে দেওয়া সাইট গুলো গুগল করবে এবং সর্বোচ্ছ ৫০–১০০ জন্ এই সাইট গুলো ঘাটাঘাটি করে কন্টেন্ট গুলো পড়বে।

আর এই কাজ গুলো যারা করবে সেই মানুষ গুলোই আগামিতে SEO ইন্ড্রাষ্টি শাসন করবে। আর আমি চাই আপনিও সেই মানুষ গুলোর মাধ্যে যে কোন একজন হয়ে যান।

আজ এই পর্যন্তই। কথা হবে অন্য কোন বিষয় নিয়ে। ভালো লাগলে আপনার ফ্রেন্ডদের সাথে শেয়ার করবেন। প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন। ধন্যবাদ !!

5 thoughts on “আপনি কি এসইও এক্সপার্ট হতে চাচ্ছেন?আসুন তাহলে শুরু করি

  1. খুব ভালো লেখেছেন ভাই।।উপকিত হলাম

  2. আপনারা কি এই কোর্স করান।।আমি করতে চাই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *