ওয়াটমিটার কাকে বলে? ওয়াটমিটার কত প্রকার ও কি কি?

ওয়াটমিটারটি বিদ্যুৎ বিল ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি যন্ত্র। এটি বর্তমানে ব্যবহার করা হচ্ছে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের জন্য। এটি উপর উপস্থিত ওয়াট সংখ্যা মাধ্যমে বিদ্যুৎ ব্যবহারের পরিমাণ নির্ধারণ করে। ওয়াটমিটার মূলত দুই প্রকারের হলেও, বহু প্রকারের ও বিভিন্ন লোকের ব্যবহার অনুযায়ী অনেকগুলো প্রজাতি রয়েছে।

এছাড়াও একটি নতুন প্রজাতি ও যুক্ত হয়েছে যা ডিজিটাল ওয়াটমিটার নামে পরিচিত। এটি ওভারভোল্টি ও ওভারকারেন্ট এর উপর ভিত্তি করে কাজ করে। সম্পূর্ণ ডিজিটাল তাই এর প্রেসিশন খুব উচ্চ। এটি সেমি-কন্ডাক্টর অর্থাৎ আধা পরমাণুক সংযোগ ব্যবহার করে যা বিদ্যুৎ পরিশোধের সম্পূর্ণ পারফরমেন্স হারানো কম।

ডিজিটাল ওয়াটমিটার বর্তমানে বেশ কিছু প্রকারে ব্যবহার করা হচ্ছে। এটি ছোট থেকে বড় স্কেলে ও প্লাজ ওয়াটমিটার রুপেও ব্যবহার করা হয়।

ওয়াটমিটার সম্পর্কে কিছু কথা

ওয়াটমিটার হল একটি উপকরণ যা লক্ষ্য করে বিদ্যুৎ শক্তি পরিমাণ মাত্রার উপর ভিত্তি করে দর্শাতে পারে। এই উপকরণটি ব্যবহার করে সরবরাহকৃত বিদ্যুৎ শক্তির পরিমাণ লক্ষ্য করা হয়। এর ব্যবহার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, একটি দূর্ঘটনার চেহারা থেকে তালিকাভুক্ত থাকা যায় বিদ্যুৎ শক্তির কোনো ইউনিট পরিমাপ করা যেতে পারে না। এছাড়া সকল উপকরণ ভিন্ন ভিন্ন একক ব্যবহার করে কাজ করতে পারে যা উপকরণ নির্ভর করে বিনা সমস্যায় হ্যান্ডিল করতে পারে।

একটি ওয়াটমিটারের বিভিন্ন ধরনের উপকরণ আছে যেমন ডিজিটাল ওয়াটমিটার এবং আনলোগ ওয়াটমিটার। বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন ধরনের ওয়াটমিটার ব্যবহার করা হয়।

ওয়াটমিটার কি?

ওয়াটমিটার দৈনন্দিন ব্যবহারের একটি পরিচিত ডিভাইস। এটি ব্যবহার করে বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীর বিদ্যুৎ খাতের ব্যবহারের জন্য আবদ্ধ ও গণনা করা হয়। একটি ওয়াটমিটার ব্যবহার করে আমরা বিড়ম্বনা করতে পারি এবং সম্পূর্ণরূপে সংশ্লিষ্ট বিদ্যুৎ খাত ব্যবহার করে কতটুকু বিদ্যুৎ খরচ করছি তা জানতে পারি। এটি আমাদের কাজে সহায়তা করে ও বিদ্যুৎ খাত ছাড়াই সরাসরি বিদ্যুৎ খরচের পরিমাণ গণনা করে দেয়।

এর সাথে আমরা বিদ্যুৎ খাতের উপযোগীতা কম করে দিতে পারি এবং ঐ সমস্ত ক্ষেত্রে ব্যাবহারকারীর ভারি বিদ্যুৎ ছাড়াই সমস্ত সমস্যার সমাধান করতে সহায়তা করে দেয়। আমরা কম খরচে এবং বিদ্যুৎ সংযোগ বাহির/বিভিন্ন উপকরণমূলক খাতগুলি থেকে আমাদের বিদ্যুৎখাত খালি রাখতে সক্ষম হব।

ওয়াটমিটারের কাজ কি?

ওয়াটমিটার হল একটি উপকরণ যা বিদ্যুৎ শক্তি পরিমাপ করে। এটি ব্যবহার করে আমরা বিদ্যুৎ বিল করতে পারি এবং প্রতিদিন ব্যবহৃত বিদ্যুৎ শক্তির পরিমান রেকর্ড করতে পারি। ওয়াটমিটারের কাজ হল বিদ্যুৎ শক্তির প্রবাহ পরিমাপ করা। এটি বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ।

See also  তারের গ্রেড কাকে বলে? ক্যাবল জয়েন্ট করার পদ্ধতিসমূহ বর্ণনা কর।

ওয়াটমিটার একটি ক্ষুদ্র ট্যাঙ্গেন্সিয়াল এবং একটি ক্ষুদ্র কালিব্রেশন মুখ থাকে জোসওেনয়ে প্রবাহ পরিমাপ করতে পারে। এটি বহুল ব্যবহৃত হয় দোকান এবং বাসা হিসাবে বিদ্যুৎ ও উৎসবে আলোচিত ক্ষেত্রে। এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ ব্যবহারের কণিক তিনি বিদ্যুৎ শক্তির প্রবাহ পরিমাপ করা যায়। এটি বিদ্যুৎ ব্যবহারের উপর নির্ভরশীল হলেও এটি একটি কমপ্লেক্স উপকরণ না।

ওয়াটমিটারের ভিন্ন ভিন্ন প্রকার

ওয়াটমিটার এমন একটি ডিভাইস যা কাজ করে বিদ্যুৎ প্রবাহের পরিমাণ মাপতে ব্যবহৃত হয়। এর তিনটি মূল প্রকার আছে। একটি রেসিস্টেন্স বেজড ওয়াটমিটার, একটি ক্যাপ্যাসিটেন্স বেজড ওয়াটমিটার এবং দ্বিতীয় একটি এসেন্সিয়ালি একই বিষয়টি মাপে একটি ডিজিটাল ওয়াটমিটার। রেসিস্টেন্স বেজড ওয়াটমিটার সাধারণত কোনও বিদ্যুৎ ফলকে মাপার জন্য ব্যবহৃত হয়।

ক্যাপ্যাসিটেন্স বেজড ওয়াটমিটার কোনও বিদ্যুৎ চার্জকে মাপতে ব্যবহৃত হয় এবং সাধারণত উচ্চ তথ্যমূলক পরিমাণের বিদ্যুৎ চার্জের মাপনের জন্য ব্যবহৃত হয়। আর সর্বশেষ একটি ডিজিটাল ওয়াটমিটার, যা সর্বশেষ ওয়াটমিটারের একটি প্রকার যা ডিজিটাল প্রযুক্তিতে নির্মিত হয়। এই প্রকারের ওয়াটমিটার বেশ সহজে ব্যবহার করা যায় এবং বেশ দক্ষ হয়ে এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ প্রবাহের পরিমাণ নির্ণয় করা যায়।

একটি বিস্তারিত পর্যালোচনা

ব্যাপারটি হল বাংলাদেশের ডিজিটাল প্রযুক্তি সেক্টর এখন যেমন একটি উন্নত অবস্থায় রয়েছে তেমনি একটি নতুন ক্ষেত্র খোঁজার জন্য আগ্রহ ও বিনয় ইতোমধ্যে দেখা দেওয়ায়। বিভিন্ন ধরনের এপ্লিকেশন ও সেবা উন্নত করার মাধ্যমে দেশটি অত্যাধুনিক সময়ের আবশ্যকতা মিটাতে পারবে। সাথে সাথে এই সেক্টরের ব্যবসা বৃদ্ধি হওয়ার আনুমানিক শতকরা ৩০% হচ্ছে মাত্রই। এ হিসাবে এখন সেক্টরটি দেখা যাচ্ছে একটি বিশেষ ভূমিকা পালন করস্ব।

পাশাপাশি বিভিন্নধরনের দক্ষ লোক চাইতেছে এই ক্ষেত্রে কাজ করতে। ফলে নিয়ে এই অবস্থাটি প্রায় সকল মানুষ জানতে চাই।

একফেজ ও ত্রিফেজ ওয়াটমিটার পরিচিতি

একফেজ ও ত্রিফেজ ওয়াটমিটার হল এক ধরনের বিদ্যুৎ মিটার যা একফেজ এবং ত্রিফেজ মোটর, জেনারেটর, ট্রান্সফর্মার ইত্যাদি এর বিদ্যুৎ উৎপাদন এবং বিতরণের পরীক্ষা করে। আমাদের সম্প্রথিত প্রযুক্তিতে আমরা অন্যান্য বিদ্যুৎ মিটার ব্যবহার করতে পারি যা একটি ফেজে শক্তিশালী বিদ্যুৎ মাত্রা পরিমার্জিত করতে পারে, কিন্তু একফেজ ও ত্রিফেজ ওয়াটমিটার সম্পূর্ণ প্রকাশকারী এবং অবস্থানগুলির সাথে সংযোগ করতে সক্ষম যা এক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একফেজ ও ত্রিফেজ ওয়াটমিটার সুষম বিদ্যুৎ পরীক্ষার জন্য ব্যবহৃত হয়, এছাড়াও এটি একক ফেজ এবং সামান্য ত্রিফেজ উৎপাদনের পর্যালোচনার জন্য ব্যবহৃত হয়। একটি ভাল কাজ করার জন্য বিদ্যুৎ মিটারটি সঠিক শক্তিশালী আম্পিয়ের জন্য উচ্চ কার্যক্ষমতা এবং উচ্চ লাগতের হতে হবে।

See also  ফটো ডায়োড কাকে বলে? ফটো ডায়োডের বৈশিষ্ট্য ও ব্যবহার।

এতে ছাপের সমন্বিত যন্ত্রপাতির ব্যবহার করা হয় যা বিশেষ করে ত্রিফেজ উৎপাদন উন্নয়নে উপকারী। এর সাথে সাথে কারেন্ট ট্রান্সফর্মার এর মাধ্যমে সামান্য সমস্ত ভার প্রযুক্তি বাধার মুক্ত এবং যথেষ্ট উচ্চ বিস্তার এবং ব্যবহারকারীর পরিচিতি প্রদান করে। এতে কাজ সম্পন্ন করার সাথে সাথে প্রদর্শনী দেখা যায়।

একফেজ ও ত্রিফেজ ওয়াটমিটারের পড়তালের বিস্তারিত

একফেজ ও ত্রিফেজ ওয়াটমিটার এমন উপকরণ যার মাধ্যমে বিদ্যুৎ শক্তির সংক্ষেপের মাত্রা নির্ণয় করা যায়। এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংক্ষেপের এর উপাদান উপর নির্ভর করে মনে হয় সংস্থানের কাজ করে। একটি একফেজ ওয়াটমিটার এক পরিবাহী ও দুই কন্ডাক্টরের মাধ্যমে বিদ্যুৎ পরিমাপ করে যা তবে ত্রিপেজ কন্ডাক্টর দ্বারা মাপা যায় তিনি যার মাধ্যমে তিনটি বা ততোধিক পরিবাহীর বিদ্যুৎ পরিমাপ করা যায়। তাই এই উপকরণগুলি বিদ্যুৎ শক্তির উন্নয়নে ব্যবহৃত হয়।

নিজেদের ব্যবসায়িক সেটআপ দেওয়া একটি একফেজ ও ত্রিফেজ ওয়াটমিটার পরিমাপ আবশ্যক হতে পারে যেখানে বিদ্যুৎ পরিমাপ নির্ভর করে হল-ফ্যাক্টর, ভোল্টেজ, কারেন্ট এবং একটি চলমান পোকেট। দ্বিতীয়টি সর্বপ্রস্তুত হবে যখন স্থায়ী বা তারকা পার্শ্ব বিদ্যুৎ পরিমাপ করতে।

ওয়াটমিটার ইন্সটলেশন প্রক্রিয়া

ওয়াটমিটার ইন্সটলেশন একটি সহজ কাজ না। নতুন বাসা বা অফিসে ওয়াটমিটার ইন্সটল করার পর এর প্রক্রিয়া অনেকটা ইলেকট্রিক এর মতো। প্রথমেই ওয়াটমিটার লাগানোর জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামসমূহ সংগ্রহ করতে হবে। সরঞ্জামসমূহে সংযোজনযোগ্য কেবলমাত্র বিদ্যুৎ সন্দার্ভে প্রযোজ্য উন্নত উপকরণের সাথে একটি প্রধান ও একটি দূটো মিটার হতে পারে।

পরবর্তীতে, দুই উপকরণ একসাথে জোড়া হয় এবং কাঙ্খিত লেভেলে থাকার নির্ভরশীলতা বিবেচনা করে ডাইমেনশন নির্ধারণ করে উদ্ধার করতে হবে। এরপর, অভিজ্ঞ বিদ্যুৎশিল্পীরা মিটার সংযোজন ও সংযুক্তি করে পরীক্ষা করে নেয় এবং দিকে একটি উপকরণ সরানো হয়। পরবর্তীতে, এটি একটি পরীক্ষিত করে আবার উপকরণ উল্লঙ্ঘন হয় এবং সম্পূর্ণ নির্ভুল হওয়ার সাথে সাথে তা উদ্ধার করে নেয় এবং কাঙ্খিত সংযোগ সম্পন্ন করে দিতে হবে। এরপর মিটারের ওজন নির্ভরশীলতা ও মাপবিশেষতা পরীক্ষা করে মিটার ফিট করা হয়।

এই পদক্ষেপগুলো সম্পূর্ণ হলে ওয়াটমিটার সম্পূর্ণ ইন্সটল করা হইছে।

Leave a Comment