ওয়েব ব্রাউজার: ইন্টারনেট সম্পর্কে সব কিছু জানুন

ওয়েব ব্রাউজার একটি অ্যাপ্লিকেশন যা কম্পিউটারের স্ক্রীনে দেখা যায়। এর মাধ্যমে ইন্টারনেটে সর্বশেষ খবর, সর্বনিম্ন দামে পণ্য, প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিদের তথ্য খুঁজে পেতে পারবেন। ওয়েব ব্রাউজার হল ইন্টারনেটের একটি মুখোমুখি যা আপনাকে কম্পিউটার স্ক্রীনের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের তথ্য অ্যাক্সেস করতে সহায়তা করে। ওয়েব ব্রাউজারের সাহায্যে দুনিয়ার যেকোনো একটা তথ্য এখন হাতের মুঠোয়।

আমরা আমাদের পছন্দের ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার করে ইন্টারনেটে খুব সহজেই সার্চ করতে পারি এবং আমাদের প্রয়োজন অনুযায়ী তথ্য সংগ্রহ করতে পারি। এর মাধ্যমে আপনি নিজের শিক্ষা, ক্যারিয়ার, স্বাস্থ্য এবং বিনোদন সহ বিভিন্ন ধরনের তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারেন।

ব্রাউজার কি?

ব্রাউজার হলো একটি কম্পিউটার সফটওয়্যার যা ইন্টারনেটে সার্ভার থেকে সাইট এবং ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন লোড করে ব্যবহারকারীদের সেগুলি দেখায়। মানে এটি ওয়েব ব্রাউজিং সম্পর্কিত সচরাচর ব্যবহৃত সফটওয়্যার। ব্রাউজারের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা ইন্টারনেট এ সার্চ, সংবাদ, বাংলা/ইংরেজি সাইট দেখতে পারেন। এছাড়াও ব্রাউজারগুলি বিভিন্ন প্লাটফর্মে কাজ করে, সেগুলি উন্নয়ন করা হচ্ছে এবং বিভিন্ন ডিভাইসে ইনস্টল ও ব্যবহার করা যায়।

কিছু জনপ্রিয় ব্রাউজার সম্পর্কে আপনি জানেন হয়ত যেমন- Google Chrome, Mozilla Firefox, Safari, Opera, Internet Explorer ইত্যাদি। সাধারণত ব্রাউজার আমাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে বিবেচিত হয়।

ওয়েব ব্রাউজার হলো একটি সফটওয়্যার যা ওয়েব পেজ দেখার জন্য ব্যবহৃত হয়

ব্রাউজার হল গুরুত্বপূর্ণ একটি সফটওয়্যার যা ওয়েব পেজ দেখার জন্য ব্যবহৃত হয়। এটি আপনার ইন্টারনেটে সার্ফ করার জন্য সরবরাহ করা হয়। ব্রাউজার না থাকলে আপনি ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে পারবেন না। আপনি ব্রাউজার ব্যবহার করে ইন্টারনেট প্রবেশ করতে পারেন এবং ওয়েবসাইটগুলি পরিদর্শন করতে পারেন।

এছাড়াও ব্রাউজার কম্পিউটারে স্টোর করা ওয়েবসাইটগুলি খোলার সুবিধা দেয়। আপনি ব্রাউজার ব্যবহার করে বিভিন্ন সংস্থা ও ওয়েবসাইটগুলি সংশ্লিষ্ট তথ্য পাবেন। আপনি ইমেইল, স্কাইপ এবং সামাজিক মাধ্যম এক্সেস করতে পারেন, বিনামূল্যে ওয়েবসাইট থেকে পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে পারেন এবং প্রাপ্ত তথ্যের সাথে অ্যাকশানের চিহ্নিত সম্প্রসারণও করতে পারেন। একটি সঠিক ব্রাউজার স্বচ্ছতার রক্ষার জন্যও দরকারী।

ইন্টারনেটের সাথে সম্পর্কিত জনগণের সম্পাদনা ভিত্তিতে প্রদান করা সার্ভিস এবং তথ্যকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে হয় এবং এতে আপনি সম্ভবত হার্মফুল ওয়েবসাইটগুলি এনিকী করতে পারবেন। সর্বশেষে ব্রাউজারগুলি বিরল সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকে, এবং একটি উন্নয়নশীল ব্রাউজার নির্বাচন করে আপনি আপনার ইন্টারনেট অভিজ্ঞতাকে উন্নয়ন করতে পারেন।

ব্রাউজারের কাজ কি এবং কিভাবে কাজ করে?

ব্রাউজার হল একটি সফটওয়্যার যা ওয়েব পৃষ্ঠাগুলি প্রদর্শন ও এক্সেস করার জন্য ব্যবহৃত হয়। বর্তমানে আমরা সমস্ত ইন্টারনেট সার্ভিস ব্যবহার করতে ব্রাউজার ব্যবহার করি। ব্রাউজারগুলি ইন্টারনেট ব্রাউজিং সম্পর্কিত কোনও পণ্য নয়, তবে এটি ইন্টারনেটে থাকা সকল পৃষ্ঠাগুলি ও ওয়েব পরিষেবার সাথে সম্পর্ক স্থাপিত করে। এই সফটওয়্যার সবসময় ওয়েব ব্রাউজিং এর ফাংশন বজায় রাখে, যেমন লিংক ফলো করা, ওয়েব পেজ লোড করা, ট্যাব চলাচল করা ইত্যাদি।

ব্রাউজার একটি স্ট্যান্ডার্ড ইন্টারফেস সম্পন্ন সফটওয়্যার যা ব্যবহারকারীকে ওয়েব ব্রাউজিং সুবিধা দেয়। এটি ইন্টারনেটে সমস্ত জিনিসে অ্যাক্সেস প্রদান করে এবং ব্যবহারকারীকে ওয়েব সার্ভিস ব্যবহার করার জন্য খুব সহজ ও সামঞ্জস্যপূর্ণ।

ব্রাউজার এর ইতিহাস

ব্রাউজার মানেই হল ওয়েব ব্রাউজার। ইন্টারনেটে সংযোজিত উপকরণগুলো ব্যবহার করে আমরা ওয়েবসাইট ভিজিট করি। এটি যে মনে রাখতে হবে, ওয়েবসাইটের ইন্টারফেস বা বাড়িদের মতো হিসেবে কাজ করে ব্রাউজার। আর কম্পিউটার বা মোবাইলে ব্রাউজারই তৈরি করে দেওয়া হয় ইন্টারনেটে সংযোজিত উপকরণগুলো ব্যবহার করে ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে।

সাধারণত ব্রাউজার ওয়েবসাইটের বস্তু গ্রহণ করা, প্রদর্শন করা এবং ব্যবহার করা ব্যবস্থার জন্য সংজ্ঞায়িত সফ্টওয়্যার। ব্রাউজারের ইতিহাস চিন্তা করলে, ১৯৯০ সালে টিম বারনার্স-লি বিখ্যাত ওয়েব ব্রাউজার WorldWideWeb তৈরি করেন। তারপর এরপর পরপরই আরও নতুন ব্রাউজার উদ্ভব হয়। Netscape, Internet Explorer, Mozilla Firefox, Google Chrome এমন বিখ্যাত ব্রাউজার রয়েছে।

বহু বছর পরেও ব্রাউজারগুলো লাগবে, একদিন চলবে আর এক নতুন ব্রাউজারের জন্য প্রতিযোগিতা চলবে।

প্রসিদ্ধ ওয়েব ব্রাউজার

ওয়েব ব্রাউজার হল একটি সফটওয়্যার যা ওয়েব সার্ভার সঙ্গে যুক্ত হয়ে ওয়েব পেজ লোড করে। এটি ইন্টারনেট ব্রাউজিং করার সবচেয়ে প্রধান উপাদান। বিভিন্ন ব্রাউজার একে অপরের থেকে বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য সাপেক্ষ করে, যেমন সেইট সুরক্ষা, একটি পছন্দের ওয়েব সাইট সাক্ষর করার ক্ষমতা ইত্যাদি। বর্তমান সময়ে Google Chrome, Mozilla Firefox, Opera, Safari ইত্যাদি প্রসিদ্ধ ওয়েব ব্রাউজার।

যে কোন ওয়েব ব্রাউজার ইউজ করা হয়, কিন্তু আমরা সবুজ আইকন দিয়ে পানে আমাদের পছন্দের ব্রাউজার।

Google Chrome

গুগল ক্রোম দুনিয়া জুড়ে পরিচিত এবং একটি জনপ্রিয় ওয়েব ব্রাউজার। এটি Google কর্পোরেশন এর একটি পণ্য এবং দীর্ঘদিন ধরে মানুষের জন্য বিভিন্ন সুবিধা ও নতুন ফিচার সরবরাহ করেছে। এটির মৌলিক ফিচারগুলো হলো ব্রাউজিং স্পীড, সিঙ্গেল ক্লিকে ট্যাব নিয়ন্ত্রণ, বেসিক ভাষায় অনুবাদ, অতিরিক্ত সেম্পলিং এবং আনসপোর্টেড ফাইলগুলো চালানো সম্ভব। এছাড়াও গুগল ক্রোম এখন কম্পিউটার বা স্মার্টফোন ইত্যাদি বিভিন্ন পলটফর্ম সমর্থন করে।

এটি ব্যবহারকারির জন্য একটি কমপ্লেক্স প্রোগ্রাম না হলেও একটি সরল এবং সুন্দর ইন্টারফেস সরবরাহ করে। আর সেই সাথে উত্তম সিকিউরিটি সরবরাহ করা হয় তার কারণে গুগল ক্রোম ব্যবহারকারীদের জন্য একটি আনন্দময় ওয়েব ব্রাউজিং অভিজ্ঞতা সরবরাহ করে।

Mozilla Firefox

মোজিলা ফায়ারফক্স হল একটি বিশ্বস্ত ওয়েব ব্রাউজার যা প্রসিদ্ধ এবং অনেক ব্যবহার হচ্ছে। এটি বিদ্যমান নেটওয়ার্ক ইন্টারফেসের সাথে সম্পৃক্ত একটি সফটওয়্যার। এটি উচ্চারণ মোজিলা ফায়ারফক্স নামটি প্রবন্ধের শুরুতে বলে জানানো হয়েছে। এটি উন্নয়নশীল এবং বিনামূল্যে উপলব্ধ যাতে হয় সবার কাছে উপলব্ধ রয়েছে।

প্রতিটি অপশন এবং সরল ইউজার ইন্টারফেসের কারণে এটি বিশেষভাবে জনপ্রিয় এবং একটি উন্নয়নশীল সফটওয়্যার হিসাবে বিবেচিত হয়েছে। এটি সহজে পরিচালিত এবং অন্যান্য ব্রাউজারের বাইরে একটি উৎকৃষ্ট সুযোগ উপহার করে। তাছাড়া, এর একটি বড় উপকারও হল আন্তর্জাতিক ভাষাসমূহের জন্য। যেমন, কোন একটি পদার্থের নাম আমরা আমাদের মাতৃভাষায় জানিনা, তবে মোজিলা ফায়ারফক্স আমরা তার অনুবাদ দেখে নিতে পারি।

সামান্য একটি সুযোগ আমাদের জীবনকে সহজতর করতে পারে।

Microsoft Edge

মাইক্রোসফট এজ হল একটি প্রসিদ্ধ ওয়েব ব্রাউজার যা সবাইকে জানা ও ব্যবহার করা হয়। এজের সাথে আলাদা সুবিধা হল ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে বিং ইউজ করে। এছাড়াও এজে সেবাসমূহ অন্য স্থানে থেকে সংগ্রহ করে এবং ব্যবহারকারীদের জন্য প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান করে। আর সুবিধাজনক ইউজার ইন্টারফেস এবং তেজ অ্যাক্সেস এর মাধ্যমে এজ ব্যবহারকারীদের সেরা অভিজ্ঞতা উপহার করে।

তাই, যদি একটি সুবিধাজনক এবং দ্রুত ওয়েব ব্রাউজার খুঁজতে হয়, তবে মাইক্রোসফট এজ একটি উত্তম বিকল্প হতে পারে।

Safari

সাফারি ওয়েব ব্রাউজার হল একটি পরিষেবা যা আইওএস এবং ম্যাক ব্যবহারকারীদের জন্য উন্নয়ন করা হয়েছে। এটি প্রসিদ্ধ হওয়ার কারণ হল এর কাজের দক্ষতা। এটি ইন্টারনেটে ভ্রমণ করার জন্য অনেক উপকারী। সাফারি অনেকটা আইটিউনার মতো, এটি স্বল্প পরিস্কার ও দর্শনীয় ইন্টারফেস প্রদান করে।

এছাড়াও, এটি তার ব্যবহারকারীদের জন্য অনেক সুবিধা নিয়ে আসে, যেমন ওয়েব পেজ সংরক্ষণ ও উন্নয়ন, একটি পছন্দের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা, শব্দ দিয়ে খোঁজ এবং এক্সটেনশন ইনস্টল করার জন্য সমর্থন ইত্যাদি। এছাড়াও সাফারি একটি ভাল হৈব্রিড ইনফরমেশন প্রদানকারী, এর মাধ্যমে আমরা ট্র্যাক করতে পারি আমাদের ডাউনলোড এবং ওয়েব সার্ভিস ব্যবহারের জন্য কতক্ষণ সময় লাগছে এবং আমরা পরিষ্কার করতে পারি যে কিছু সার্ভারে ডাউন হচ্ছে না। Overall, Safari একটি শ্রেষ্ঠ ওয়েব ব্রাউজার এবং নতুন ব্যবহারকারীদের জন্য একটি ভাল পরিষেবা যা দ্রুত সম্পন্ন হয়।

Opera

অনলাইনের দুনিয়ায় প্রসিদ্ধ ওয়েব ব্রাউজার অপেরা। এই ওয়েব ব্রাউজারটি হয়তো আমাদের জন্য কিছু নতুন না, কিন্তু তার বিশেষ ফিচার এবং দ্রুততা দিয়ে সে আমাদের ব্রাউজিং একটু আনন্দদায়ক করে দেওয়ার চেষ্টা করে। অপেরাটি একটি সুন্দর ইউজার ইন্টারফেস দিয়ে আমাদের পৃথিবীতে সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েব ব্রাউজারগুলোর মধ্যে একটি। আমরা অনেকে অপেরাটির সাথে আছি, কারন এটি দিয়ে আমরা অনলাইন হিসেবে যে কোন কাজটি সহজেই করতে পারি।

অপেরা হল খুবই ফ্রেশ এবং নতুন স্টাইলের ওয়েব ব্রাউজার যা ব্যবহারকারীদের মন ছুঁড়ে দেয়।

See also  ডার্ক ওয়েব কি? কিভাবে এবং কি কি কাজে লাগে?

ওয়েব ব্রাউজারের উপকারিতা

ওয়েব ব্রাউজার শব্দটি আমরা খুব সহজেই সমঝে নিতে পারি। এটি মনে করুন আমাদের ওয়েব সাইট চালানোর সময় আমরা যে অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করি, সেটিই হল ওয়েব ব্রাউজার। অর্থ হচ্ছে ব্রাউজার সম্পূর্ণ ইন্টারনেট জগতে সার্চ করে সম্পূর্ণ দুনিয়ার নাম ও নিউজ দেখার সুযোগ দেয়। একটি ভালো ওয়েব ব্রাউজার আমাদের স্মার্টফোন বা কম্পিউটারের গতি অনেক বেড়ে নিশ্চই মজার একটি ভ্রমণ দিতে পারে।

এছাড়াও আমরা ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার করে আমাদের অনলাইন কাজ সম্পন্ন করতে পারি, এমনকি ঈমেইল পেজ ও স্কাইপও ব্রাউজার এর মধ্যে ব্যবহার করা যায়। দ্রুত লোডিং এবং দিয়ে যাওয়া, সেটিই হল একটি ভালো ওয়েব ব্রাউজার এর মূল লাভ।

ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার করার প্রয়োজনীয়তা

আমরা দিনজবে অন্যান্য কাজ অবসান করার জন্য ইন্টারনেট ব্রাউজ করি। ওয়েব ব্রাউজার একটি সফটওয়্যার যা ওয়েব পৃষ্ঠাগুলি লোড করে তা সহজে এর মাধ্যমে দেখানোর জন্য কাজ করে। এটি আমাদেরকে সাধারণত ইন্টারনেট ব্রাউজিং, ইমেল স্ক্রলিং, মোবাইল ব্যবহারের তথ্য, ভিডিও দেখার জন্য অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য দেয়। একটি ব্রাউজার ব্যবহার না করলে ইন্টারনেট ব্রাউজিং করা অসম্ভব হতে পারে এবং এটি একজন ব্যবহারকারীর জীবনে অসাধারণ অবদান রাখতে পারে।

এছাড়াও ওয়েব ব্রাউজার, ইন্টারনেটের মাধ্যমে সরবরাহকৃত সব ধরনের সামগ্রী যেমন নতুন লেখা, ইমেজ, অডিও, ভিডিও, ফাইল এবং বিভিন্ন ধরনের প্রোগ্রামসহ অনেক কিছুই নিয়ে নেয়। অতএব, একটি ওয়েব ব্রাউজারের উপকার কেবলমাত্র ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর কাছে অসাধারণ।

ওয়েব পেজে নেভিগেশনের জন্য ব্রাউজার ব্যবহার

ওয়েব ব্রাউজার সম্পর্কে কথা বলতে গেলে আপনি সাধারণত ভাবতে থাকবেন ইন্টারনেট ব্রাউজিং প্রস্তুতি করার জন্য। কিন্তু না, এটি একটি অসামান্য টুল যা আপনাকে আপনার নেভিগেশনকে সহজ ও স্মুথ করে তুলে ধরতে সাহায্য করে। সাধারণত প্রধান লক্ষ্য হল ওয়েবসাইটগুলি থেকে দরকারী তথ্য উপাত্ত করা। এখন দিন ওয়েব পেজগুলি অত্যন্ত বিশ্বস্ত টুলগুলি হিসেবে চালু থাকে এবং তাদের ইন্টারেকশনগুলি সুবিধাজনক এবং স্বচ্ছতাময় করে থাকে।

আপনি একটি ওয়েব পেজে আসতে হলে ব্রাউজারটি সে সেই ওয়েব পেজে সরাসরি নেভিগেট করে নিতে সাহায্য করে। ব্রাউজার আপনাকে ওয়েব পেজগুলি দেখার জন্য প্রয়োজনীয় সিস্টেম মডিউলসমূহ প্রদান করে যা ব্যবহারকারীদের ওয়েবসাইটের বিভিন্ন অংশগুলি দেখান, নেভিগেট করার, লিঙ্কে ক্লিক করার সময়। সংকল্প, ব্রাউজারের উপকারিতা নেই একটি পূর্ণসম্পন্ন ওয়েব ব্রাউজার ছাড়া ওয়েব ব্রাউজার সাধারণত আমাদের জীবনের অংশ হিসেবে পরিচয় হয়ে উঠেছে। এই টুলটি আপনার সেভিংগ টাইমের ও ঃদ্রব্য সম্পর্কিত তৎপরতা বাড়ানোর একটি চমৎকার উপাদান হিসেবে কাজ করে।

সুতরাং, ওয়েব ব্রাউজার জন্য সঠিক একটি পছন্দসই ব্রাউজার নির্বাচন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সাথে সাথে আপনার উচ্চ মানের ওয়েব নেভিগেশনের অভিজ্ঞতা তৈরি করি, একটি ভাল ব্রাউজার সিস্টেমের মাধ্যমে আপনাকে একদম সম্পর্কিত নজরে রাখতে সাহায্য করতে পারে।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট প্রসেসে ব্রাউজার ব্যবহারের গুরুত্ব

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট প্রসেসে ব্রাউজার ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এটি ওয়েব ডেভেলপারদের কাজ সহজ করে থাকে। ব্রাউজার একটি সফটওয়্যার যা ওয়েবসাইটে অ্যাক্সেস করে তার URL এড্রেস ব্যবহার করে। ব্রাউজার যে সাইটকে এক্সেস করে তার সাথে সাথে সাইটে জন্য নির্দিষ্ট জিজ্ঞাসাবাক্য গুলো সার্ভারে পাঠানো হয়।

সার্ভার সাইটে থাকা প্রয়োজনীয় ফাইল ব্রাউজারে পাঠানো হয়। তখন সিজি এল-ইউ-এস (CSS), জাভাস্ক্রিপ্ট (JavaScript) এবং ইএইচটিএমএল (HTML) এর মতো ল্যাঙ্গুয়েজগুলো ব্রাউজার ব্যবহার করে ওয়েব সাইট এর লোডিং এবং ডিজাইনের কাজ সহজ করে থাকে। এতে চলতি বিন্দুগুলোতে পেজ অবজেক্ট মডেল (Document Object Model) ব্যবহার করা হয় যেটি ওয়েব সাইটের স্ট্রাকচার সম্পর্কিত মার্কাপ ভাষা ও হাইলাইট করে থাকে। সুতরাং ব্রাউজার ডেভেলপমেন্ট প্রসেসে গুরুত্বপূর্ণ একটি পর্যায় যা প্রথমে থেকেই পরিচিতি ছিলো না, কিন্তু এখন এটি একটি প্রাথমিক ফাংশন।

ব্রাউজারের নিরাপত্তা

ব্রাউজার একটি গুরুত্বপূর্ণ ওয়েব সার্ভিস যা আমাদের ইন্টারনেটে ব্রাউজিং করার সুবিধা প্রদান করে। কিন্তু এই ব্যবহার আমাদের সম্প্রতি খুবই নিরাপদ নয়। দ্রুত গতি সহ এবং একটি ভাইরাস, ম্যালওয়্যার বা স্পামওয়্যার একটি অতিরিক্ত অনুষ্ঠান যোগ করতে পারে। একটি সুরক্ষিত ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার করা একটি উত্তম বিকল্প যেখানে আমরা অনলাইন নিরাপত্তা সম্পর্কে আমাদের আত্বীকতা বাড়াতে পারি।

একটি উত্তম ওয়েব ব্রাউজার অতিরিক্ত সুরক্ষা শীলতা যোগ করতে পারে যা আমাদের ডেটা সুরক্ষিত রাখে। ব্রাউজারের নিরাপত্তা সম্পর্কে কেউ বিশেষত চিন্তাভাবনায় থাকতে হবে কেননা এটি আমাদের অনলাইন জীবনের অনেক গুরুত্বপূর্ণ অংশের মধ্যে একটি।

সিকিউরিটি ফিচার এবং সুরক্ষা সম্পর্কিত তথ্য

ব্রাউজার হল ওয়েবের একটি সফটওয়্যার যা আমাদের ওয়েব সাইট ব্রাউজ করার জন্য ব্যবহৃত হয়। তবে এই ব্রাউজার নিরাপত্তা বিষয়ে আমাদের অবগত হতে হবে। এখন দিনে ব্রাউজার হ্যাকারদের নজর একটি উচ্চ স্কুল সমস্যা হয়ে উঠছে। তাদের মাধ্যমে আমরা হ্যাক এর শিকার হয়ে যাওয়া সম্ভব।

এই জন্য আমাদের ব্রাউজার এর নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন সিকিউরিটি ফিচার নিয়ে কাজ হয়। ব্রাউজার একটি সুরক্ষিত সম্প্রদায় এবং সম্পূর্ণ এনক্রিপ্টেড ওয়েব পেজ দেখার জন্য একটি HTTPS সার্টিফিকেট ব্যবহার করা উচিত। এছাড়াও ব্রাউজার এর নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য একটি পপ-আপ ব্লকার এবং একটি এন্টি-ফিশিং ফিল্টার ব্যবহার করা উচিত। এছাড়াও ব্রাউজার ব্যবহার করার সময় আমরা আমাদের আপন ইনফরমেশন সুরক্ষিত রাখার জন্য ব্যবহার করতে পারি ব্যবহারকারীর নাম এবং পাসওয়ার্ড অ্যাকাউন্টে এনে দিয়ে 2FA নিয়ে কাজ করা উচিত।

এই সকল সিকিউরিটি ফিচার ব্রাউজার এর নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় এবং এটি আমাদের নেট সেফটি বজায় রাখার জন্য অত্যন্ত কার্যকর হয়।

ব্রাউজার হ্যাকিং এর ঝুঁকি

আধুনিক প্রযুক্তির বহুল ব্যবহৃত ব্রাউজার এখন আমাদের জীবনের অভিন্যাস হয়ে উঠেছে। কিন্তু ব্রাউজার নিরাপত্তা সম্পর্কে আমাদের কাছে প্রায় কোন ধারণা নেই। ইন্টারনেট ব্যবহারে আমরা সকল প্রকার তথ্য খুব দ্রুতই শেয়ার করি। তবে, আমরা জানি না আমরা কোনো একজন অন্য ব্যবহারকারীর দ্বারা হ্যাক হয়ে যেতে পারি কিনা।

হয়তো আপনি স্বল্প একটি ভুল করে আপনার গোপনীয়তা সংক্রমিত হয়ে যেতে পারে। আপনি নিশ্চিত হতে পারেন যে আপনার ব্রাউজার নিরাপত্তা লেভেল এমনভাবে নির্ধারণ করা হয়েছে যেন কোনো হ্যাকার আপনার গোপনীয়তার সামগ্রীকে হ্যাক করে না।

ফিশিং ও ম্যালওয়ার থেকে নিরাপত্তা সম্পর্কিত তথ্য

আমরা দিন না দিন ইন্টারনেট ব্রাউজিং করি এবং তারমাধ্যমে অনেক কিছু জানি ও শিখি। কিন্তু সব সময় আমরা ব্রাউজিং করার সময় সতর্কতা বরটাই বিষয়টি। কারণ ইন্টারনেটে নিরাপত্তা রক্ষা করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একটি মেইলওয়ার মাধ্যমে আপনার একাউন্ট হ্যাক করা সম্ভব।

আর কিছু গুগল সার্চ বা ফেসবুকে সার্চ করার জন্য একটা হাইপারলিংক এখন সবথেকে সাধারন উপায়। কিন্তু হাইপারলিংকগুলি একাধিকবার আপনাকে নিশ্চিত করবেন যে সেই সাইট চাইলেই আপনার কম্পিউটারে অনেক ধরনের ভাইরাস বা স্পাম সংক্রমণ করতে পারে। সেক্ষেত্রে আমরা হাইপারলিংকটি ক্লিক করবো না। এছাড়াও ফিশিং এবং ম্যালওয়ার হ্যাকিং এখন অনেক সাধারণ ব্রাউজারে হলেও এর পরিণতি অনেক বার্তা দেয়।

ফিশিং একটি সামাজিক ইঞ্জিনিয়ারিং বা ব্যবহারকারীর অনেক সময় প্রতারকদের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকারভেদ্য ব্যক্তি বা সংস্থা থেকে সেন্সিটিভ তথ্য সংগ্রহ করা হয়। ম্যালওয়ার আবার কম্পিউটারে বাইরের সমস্ত নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যে ধরে ওঠে আর মুট্রওয়ার বা শিশির মতো ব্যবহৃত হতে পারে। এর জন্য একটি ডিফেন্স সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হতে পারে যা আপনার কম্পিউটারকে কোন প্রকার সেক’ড-এন্ট্রি দিবার না দিয়ে সেফটি রাখবে।

ব্রাউজার এর ক্যাচ এবং কোকিজ

ব্রাউজার হল একটি সফটওয়্যার যা ওয়েব পৃষ্ঠাগুলি ব্রাউজ করতে ব্যবহার করা হয়। ব্রাউজার ক্যাচ হল একটি অংশকে একটি সাধারণ মেমোরি রেখে দেয়। এটি একটি মুদ্রণ সংস্করণও হতে পারে কোন ওয়েবসাইটের জন্য, যা পরে প্রয়োজন হতে পারে। কোকিজ ইংরেজিতে বিভিন্ন পাতাগুলি সংরক্ষণ করে, এমনকি আমাদের নাম এবং অন্যান্য তথ্য সম্পর্কিত পাতা সংযোজন করে এবং তা আমাদের স্থানীয় মেশিনে সংরক্ষণ করে।

এসকল ডেটা একটি নির্দিষ্ট সময়ের পর ফেরত দেওয়া হয়। কোকিজ পুরো ইন্টারনেট জগতে ফেরত নেওয়া যায় না, কিন্তু এটি আমাদের স্থানীয় মেশিনে একটি স্পেসিফিক সাইট এর জন্য সম্পর্কিত তথ্য সংরক্ষণ করে। ব্রাউজার ব্যবহারিক উদাহরণ হল গুগল ক্রোম, মোজিলা ফায়ারফক্স, ওপেরা। “

See also  ভি-স্যাট (VSAT) ও জিআইএস (GIS) বলতে কী বোঝায়?

ক্যাচ এর কাজ কি?

ক্যাচ কি? ক্যাচ শব্দটি আমাদের জন্য একটি পূর্ণরূপে নতুন না। আপনার ইন্টারনেট ব্রাউজার বা মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার করে থাকলে, ক্যাচ নামটি আমাদের জ্ঞাত হবে। ব্রাউজার এবং ওয়েব সার্ভার মধ্যে প্রতিটি রিকুয়েস্ট-রেসপন্সের জন্য একটি মিডিয়াম নামকানি রয়েছে। এটি আপনার কম্পিউটারের হার্ড ডিস্কে ডাটা সংরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত হয়।

ঠিক তেমনি একটি নকল সংগ্রহশালা হিসেবেও জানা হয়, যেটি সম্ভবত বিভিন্ন ওয়েব সাইট গুলি থেকে সংগ্রহ করে রাখা হয়। এটি পুনরাবৃত্তি হতে শক্ত। এটি ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতা উন্নয়ন করতে সহায়তা করে এবং আপনার ওয়েবসাইট সম্পর্কিত তথ্য প্রদান করার জন্য এটি খুব উপকারী। কম্পিউটার ইন্টারনেটে সম্পর্কিত বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংরক্ষণ করে এবং সিস্টেম রান করার সময় এটি সেভ করে রাখা যায়।

আপনি চাইলে ক্যাচ ফাইলগুলি মুছে ফেলতে পারেন এবং কম্পিউটারের সিস্টেমকে ফ্রিশ করতে পারেন। কোকিজ হল পরিষেবাদাতার কাছে জানা গোপনীয়তা তথ্য যা মুক্ত থাকে আপনার কম্পিউটারের ব্রাউজারে স্থাপিত হয়। এগুলি ফাইল হতে পারে এবং একটি ডোমেইনে থাকতে পারে। এটি স্থায়ী হতে পারে বা সেস্থায়ী হতে পারে।

কোকিজ অনেকের কর্মক্ষমতা বা আইননীতির ভুমিকা পালন করে। আপনি কিভাবে ককিজগুলি সেট করবেন তা আপনার ব্রাউজার এর নির্দেশানুসারে সেট করে ফেলতে পারবেন। আপনি এই তথ্য সরবরাহ প্রদান করে এমন ওয়েবসাইট গুলিতে এবং কোকিজ এর সাথে বন্ধুত্ব স্থাপন করতে পারেন। আপনি যদি কোকিজ অপসারণ করে না কেন তবে আপনার নিজস্ব তথ্য বিনিময় এবং অন্যান্য কর্মকান্ড এবং সম্পর্কিত সন্দেহভাজন হতে পারে।

উপরের উভয় ক্যাচ এবং কোকিজ আপনার অনলাইন অভিজ্ঞতা উন্নয়ন এবং এটি বিতর্ক ছাড়াতে সহায়তা করে। এটি নিজস্ব তথ্য সন্দর্ভে আপনাকে সংরক্ষণ করে এবং ওয়েব সার্ভার সম্পর্কিত তথ্য প্রদান করতে সহায়তা করে। ক্যাচ রিকুয়েস্টের জন্য আপনাকে অন্য স্থান থেকে তথ্য পুনরাবৃত্তি হতে পারে এবং কোকিজ মানুষের পরিচয় সনাক্ত করার মাধ্যমে আপনাকে পূর্ণরূপে বিবেচনার সুযোগ দেবে। আপনার অনলাইন আবেদনের প্রচার ও সম্পর্কিত তথ্য সহ থাকা প্রয়োজনীয়তাগুলি বিনিয়োগ করার জন্য ক্যাচ এবং কোকিজ অপনাকে একটি বরফের টুকরো সরবরাহ করে যা আপনি আগে সন্দর্ভে ব্যবহার করেছেন।

ক্যাচ এবং কোকিজ যথারীতি নিরানব। দক্ষ ব্যবহার করার সাথে সম্পর্কিত তথ্য আপনাকে আপনার ওয়েব অভিজ্ঞতা মজুত রাখতে সহায়তা করে এবং আপনার ঘরখানার মত থেকে সার্ভারের মধ্যে বিভিন্ন ব্যবহারকারীদের নিজস্ব তথ্য রক্ষা করে। এটি কার্যক্ষমতার জন্য খুবই জরুরী।”

ক্যাচ সাথে কোকিজ এর পার্থক্য

ব্রাউজার এর ক্যাচ এবং কোকিজ দুটি সম্পর্কশীল নয় তবে দুটি পার্থক্য আছে। ক্যাচ হল কম্পিউটারের হার্ড ডিস্কে স্টোর করা সংরক্ষিত ডেটা, যা ব্রাউজার ফাস্ট এবং ক্ষুদ্রতম ডাটা আগে লোড করা সম্ভব হতে পারে। সামগ্রিক ব্যবহারকারী বৈশিষ্ট্যের ক্ষেত্রে ক্যাচের প্রয়োজনীয়তা প্রধান। অন্য দিকে, কোকিজ হল সাইট দ্বারা অনুমোদিত ডেটা রাখা যা যাতে ব্যবহারকারীর স্বচ্ছ অভিজ্ঞতা হয়।

সাইট দ্বারা সেসমস্ত তথ্য ব্যবহার করে আপনার ব্রাউজার সংরক্ষণ করে, যা আপনি পুনরায় সম্পূর্ণ অনুভব করতে পারেন। সম্পর্কে বৃহদভাবে, ক্যাচ এবং কোকিজ দুইটি অস্থায়ী ডেটা থাকে, সংশ্লিষ্ট দৃশ্য এবং তথ্যের সাথে সম্পর্কিততা রুপে। তাছাড়াও, তাদের কোথায় থাকার মাধ্যমে দরকারী তথ্য পুনর্বিন্যাস করা যায় বা পরে সম্পূর্ণ মুছে ফেলা যায়। সুতরাং, দুটির মধ্যে একটি ব্রাউজার পারফরমেন্সে, আরেকটি ব্যবহারকারীর বৈয়ে থাকার অভিজ্ঞতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

ক্যাচ এবং কোকিজ কে কিভাবে ক্লিয়ার করতে হয়

ব্রাউজার এর ক্যাচ এবং কোকিজ হলো এমন দুটি জিনিস যা একটি ওয়েবসাইট এর ব্যবহারকারীর ব্রাউজারে স্থান নেয়। ক্যাচ হলো তথ্যদলগুলো জাস্ট একবার ডাউনলোড করে রাখার জায়গা যাতে নতুন রিকোয়েস্ট দিলে সেগুলো ফেটে না ডাউনলোড আবার করে না। এর মাধ্যমে ব্রাউজার একটি ওয়েবসাইটে দ্রুত লোড হয়। অন্যদিকে কোকিজ হলো পাশাপাশি আলাদা আলাদা ওয়েবসাইট এর ব্যবহারকারীর তথ্যদল।

যেমন- একটি ওয়েবসাইট দিয়েছে যে, তোমার পৃষ্ঠাটি একবার ভিজিট করলে একটি সেশন হয় এবং একটি কোকিজ তোমার কম্পিউটারে সেই সেশনের তথ্য সংরক্ষণ করে রাখে, যাতে আবার সেই সেশনে ফিরে যাওয়া যায়। ক্যাচ এবং কোকিজ কে ক্লিয়ার করার জন্য ব্রাউজার থেকে সেটিংস এ গিয়ে ক্যাচ ও কোকিজ ক্লিয়ার করতে হয়। একটি পপ-আপ এখন ব্রাউজারে আসবে, সেখানে আপনার পছন্দের অনুসারে সিলেক্ট করে ক্যাচ এবং কোকিজ ক্লিয়ার করা যাবে। ক্যাচ এবং কোকিজ কে নিরাপদভাবে এবং নিয়মিতভাবে ক্লিয়ার করা হলে ব্রাউজারের পারফরমেন্স এবং সিকিউরিটি উন্নত হয়।

ওয়েব ব্রাউজারের ভবিষ্যত

ওয়েব ব্রাউজারের ভবিষ্যত খুব সম্ভবত দুটি বিভিন্ন পথে নির্ণয় হবে। একটি পথ হল ঋণাত্মকভাবে পৃথক একটি সম্প্রসারণ যা ব্যবহারকারীর তথ্য কে এনক্রিপ্টেড রাখবে এবং এতে অনুগ্রহ করে কিছু যোগানভোগ করতে হলে একটি পৃষ্ঠা ব্যবহার করা হত। অন্য একটি পথ হল প্রাসঙ্গিকভাবে দ্রুত ফলাফল উপস্থাপনের জন্য একটি প্রযুক্তি সম্প্রসারণ এখনও একদম নতুন কিন্তু এর উপর ঝুঁকি আছে। এই নতুন প্রযুক্তিটি এরপরও সর্বদা আরও দ্রুত এবং কার্যকরী হবে।

আমাদের ব্রাউজার সম্পর্কে দূর্লভ যায়গা গুলোতে নির্ভরশীলতা এবং পারফরমেন্স সবচেয়ে বড় বিষয়। সার্চ ইঞ্জিন ওয়েব শুধুমাত্র তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে নতুন কিছু সরঞ্জাম উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছে। বিভিন্ন এক্সটেনশন ও আরও স্বচ্ছতার সুবিধা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তবে জনপ্রিয় ব্রাউজারগুলো আমাদের ব্যবহারকারীদের তথ্য নিরাপত্তাকে প্রধান উপলক্ষ্যে এবং পারফরমেন্স সুবর্ণ হতে হবে।

ভবিষ্যতে ব্রাউজার কি হতে পারে?

ব্রাউজার নিয়ে আমরা সবাই বিশ্বাস করি এটি ওয়েব সার্ভার থেকে তথ্য মুছে নিয়ে আমাদের কম্পিউটারে দেখার জন্য দেখানো মাধ্য়ম। তবে ভবিষ্যে ব্রাউজারগুলো আর শুধুমাত্র ওয়েব পেজ দেখানোর জন্য ব্যবহার হবে না। নতুন টেকনোলজির সঙ্গেই ব্রাউজারগুলো আরও ভালো হবে এবং এন্টারটেইনমেন্ট, শিক্ষা এবং কাজের সাথে আরও ভালো সুবিধা উপস্থাপন করতে পারবে। তবে এই টেকনোলজিতে রিস্কও যুক্ত হবে যেমন দুর্ভোগ, গোপনীয়তা, সাইবার হামলা ইত্যাদি।

ভবিষ্যে ব্রাউজারগুলো আরও উন্নয়নশীল, সেগুলো নিজে চিন্তা করেই ব্যবহার করবো।

ওয়েব ব্রাউজার এর পাঠকের জন্য ভবিষ্যতে কি উপকার হতে পারে?

ওয়েব ব্রাউজার এর ভবিষ্যত একটি উজ্জ্বল আলোক্য ভবিষ্যত যেখানে ব্রাউজার সবসময়ই আমাদের সহায়তা করবে। বর্তমানে ব্রাউজার সর্বাধিক সাধারণ কাজটি করে থাকে আমাদের কাছে নিয়ে আসতে। কিন্তু আসবে একটি সময়, যখন ব্রাউজার একটি পূর্ণ পরিবর্তন ঘটায় এবং নতুন দক্ষতা ও সুবিধা সংযোজিত হবে। এই নতুন ক্ষমতাগুলির মধ্যে থাকতে পারে ভুলবিশেষ, ভাষান্তর, নিরাপত্তা ইত্যাদি।

এই নিউজেস্ট একটি অ্যাড-অন ব্রাউজার, ভ্যারিয়েশন ও নিরাপত্তা সম্পর্কিত নতুন ক্ষমতার মধ্যে থাকবে। ইউজাররা নিরাপদ অবস্থায় থাকতে এই নতুন ব্রাউজারগুলি ব্যবহার করতে পারে। এছাড়াও, এই নতুন ব্রাউজারগুলি একটি পরিপূর্ণ অ্যাডফ্রি ব্রাউজার হতে পারে যা ইউজারদের জন্য আরও হিসেবে উপযোগী হতে পারে। তাছাড়া ওয়েব ব্রাউজারগুলি একটি প্রাকটিক্যাল স্বচ্ছ ব্রাউজিং স্থাপন করবে।

আমরা প্রযুক্তির প্রগতির সাথে সাথে আমাদের উপকারও বাড়তে চায় এবং ইউজার সম্প্রদায়ের খুশি এবং সুবিধা সম্পর্কে চিন্তা করে এগিয়ে যাচ্ছে। একটি নতুনতম ব্রাউজার নিয়ে ব্যবহারকারীদের মানসিকভাবে প্রাকটিক্যাল দক্ষতা ও সুবিধার সাথে সম্পর্কিত উন্নয়নের সম্ভাবনা আছে। বর্তমান সময়ে ইউজারগণ ব্রাউজার ব্যবহার করে ইন্টারনেট সার্ফ করে থাকেন। কিন্তু ভবিষ্যতে একটি নতুন ব্রাউজার ইউজারগণকে নিরাপদ সংযোগ দিতে পারবে, যেটি নিজেই ইন্টারনেটে সর্বদা একটি নিরাপদ স্থান হিসাবে ব্যবহারকারীদের মাঝে উপস্থাপতি রাখবে।

এই নতুন ব্রাউজার আমাদের ইন্টারনেট জীবনে যে সমস্যা সমাধান করতে পারবে তা ব্যাপারে বিশ্বস্ত হওয়া উচিত। সাইবার হোমো এবং হ্যাকিং বাস্তবায়নের জন্য বাংলাদেশ শুধু দেশের বাইরে থেকেই আক্রমণ হয়ে থাকে। এর ট্রেস করা সম্প্রসারণ এখন ধর্মীয় হয়ে যাচ্ছে এবং একটি নিরাপদ ইন্টারনেট সম্পর্কিত উদ্যেশ্যে এই নতুন ব্রাউজার উন্নয়ন করা হচ্ছে। তার ফলে মাল্টিপল সিকিউরিটি ফিচার সম্পর্কিত ক্রিটিক্যাল উদ্দেশ্য ধারণ করা হচ্ছে।

সমাপ্তিতে, একটি নতুন ব্রাউজারের জন্য একটি নিরাপদ এবং স্বচ্ছ ইন্টারনেট অভিজ্ঞতা সম্ভব হবে যা ইউজারগণকে স্বচ্ছ ও নিরাপদ ইন্টারনেট ব্রাউজিং দিতে সাহায্য করবে। ব্রাউজারগুলি এই ফিচারগুলির সাথে হাজির হবে এবং তাদের ইন্টারনেট উপভোগ ভালোবাসা রাখা ইউজারগণ অবশ্যই এই ব্রাউজারগুলি সমর্থন করবেন। “

Leave a Comment