শিখে-নিন-গুগোল-এর-কিছু-অসাম-সারচিং-টিপস

শিখে নিন গুগোল এর কিছু অসাম সারচিং টিপস

ফ্রিল্যান্সিং

এতদিনে এটা অন্তত আমরা জেনেছি, লাইফে ভালো কিছু করতে হলেস শিখতে হবে। আর শিখতে হলে নিজের হাত পা ছড়িয়ে শেখার চেষ্টা টা করা ছাড়া খুব একটা গতি নেই, কারণ কেউ এটা মুখে তুলে দিয়ে যাবে না। আর মুশকিল হল এই শিক্ষার উপকরণ গুলি সব আবার এক জায়গাতেউ নেই। ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে নানান জায়গায়। আবার এদের মধ্যে কিছু আছে ভিডিও, কিছু অডিও, কিছু আর্টিকেল, কিছু বাংলা, কিছু ইংলিশ। তাই নিজের দরকারি জিনিস টা খুঁজে পেতে গুগোল মামার যেন কোন বিকল্প নেই। বিশেষ কোরে যারা ফ্রিল্যান্সার তাদের প্রতিদিন খুঁজে বের করতে হয় হাজারটা জিনিস আর তা হতে পারে ছবি, ভেক্টর, প্লাগিন্স থেকে শুরু কোরে থিম, টেমপ্লেট সহ আরও কত কি। যারা নতুন তাদের এই খুঁজে বের করার প্রেশার টা যেন আরেক ধাপ বেশি। তাদের এইসব এর পাশা পাশি খুঁজতে হয় লার্নিং কন্টেন্টস। তবে আমরা হয়তো সার্চ করছি গদবাধা নিওম করে। আর তাই চোখ এড়িয়ে যাচ্ছে অনেক কিছু কিংবা দরকারের থেকে অনেক বেশি সময় নিয়ে ফেলছে এই সার্চ অভিযান যেটা কিনা হতে পারতো আরও অনেক কম সময়ে। চাইলেই কিন্তু বাঁচান যায় এই প্রয়োজনীয় সময় গুলি কিছু সাধারণ কিন্তু ইফেক্টিভ ট্রিক্স এপ্লাই করে গুগোল এ সার্চ করার সময়।
তো আসুন, জেনে নেই সিম্পিল কিছু উপায় গুগলে নিজের কাঙ্কিত জিনিস খুঁজে পাওয়ার।

১। ব্যাবহার করুন কুওটঃ

কুওট বা কটেশন মার্ক টা খুঁজে পেতে সাহায্য করবে আপনার স্পেসিফিক কনটেন্ট। গুগোল এর কিছু খোঁজার এলগরিদম টা যদি জেনে যান, তাহলে কিছু খুঁজতে খুব সুবিধে হবে। কারণ আমরা যদি লিখি fiverr gig marketing তাহলে গুগোল প্রত্যেকটি শব্দ কে আলাদা খুঁজে বের করে, প্রত্যেকটা শব্দ কে আরেকটি শব্দের সাথে মিলিয়ে রেজাল্ট খুঁজে বার করে আপনাকে দেখায়। তাতে লিস্ট হয়ে যায় অনেক বড়। আর তাই যদি আপনি জানেন আপনি আসলে কি খুঁজছেন, সেটা কোটেশন মার্ক এর মধ্যে দিয়ে দিলে ওই পুরো শব্দ টা এক খানে গুগোল খুঁজে আপনাকে দেখাবে। যেমন “fiverr gig marketing”।

২। – হাইফেন ইউস করুন কিছু বাদ দিতেঃ


কিছু লিখে যদি আপনি মনে করেন এমন কোন জায়গা যেখান থেকে আপনি চান না গুগোল কিছু খুঁজে বের করুক তাহলে সার্চ কনটেন্ট এর শেষে হাইফেন বা মাইনাস – এবং একি ভাবে প্লাস + ইউস করে শুধু সেই জায়গা থেকেই খুজবে এমন বলে দিতে পারেন গুগোল কে। যেমন যদি আমি গুগোল করি এমন কোন ওয়েবসাইট এর জন্য যেখান থেকে আমি ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারবো, কিন্তু আমি চাইছিনা সেখানে ইউটিউব এর কোন ভিডিও আসুক। তাহলে আমরা লিখব How to design webpages -youtube আর পক্ষান্তরে যদি আমরা চাই শুধু ইউটিউব এর ভিডিও ই দেখাবে তাহলে লিখার শেষে +youtube দিয়ে দেব।

৩. ব্যাবহার করুন কোলনঃ
যদি এমন টা চাই, আমার কনটেন্ট টা শুধু একটা ওয়েবসাইট থেকে খুঁজে বের করে দেবে। যেমন কোন আর্টিকেল বা কনটেন্ট যা আমি চাই শুধু ফেসবুক থেকে খুঁজে এনে দেবে। যদি হউ কোন প্রডাক্ট তাহলে আমি চাই, ফেসবুকে সেই প্রডাক্ট এর যত পোস্ট আছে সেটা দেখবো যা দেখে আমি আমার নিজের ব্র্যান্ডিং করার আইডিয়া পেতে পারি তাহলে সার্চ লিখার শেষে : কোলন লিখে ওয়েবসাইট এর আড্রেস লিখে দিন। Tshirt design :facebook.com, banner design :fiverr.com তাহলে উক্ত টপিক টি শুধু সেই ওয়েবসাইট থেকেই খুঁজে বের করে দেবে আপনাকে গুগোল। ভুলেউ পা দেবে না অন্য কথাউ।

৪। * স্টার খুঁজে দেবে গুপ্তধনঃ
হাহা, না সোনা, মানিক হিরে না, তবে এটা হতে পারে এমন একটা গুপ্ত ধন যা চাচ্ছেন খুঁজতে কিন্তু জানেন না কি লিখে খুজবেন। বুঝেন নি তো? ধরুন এমন একটা টপিক হতে পারে গানের লিরিক। সেটার কিছু অংশ আপনার মনে আছে, বাকি টা নেই। তাহলে মনে না থাকা অংশ টুকুতে সম্ভাব্য কিছু একটা লিখে দুইটা স্টার এর মধ্যে রেখে দিন। গুগোল অটমেটিকালি বুঝে নেবে স্টার এর মাঝে যে কোন শব্দ হতে পারে আর সে তেমন ভাবেই খুজত থাকবে আপনার কাঙ্ক্ষিত উপকরণ টি। যেমন আমরা যদি রিহানার একটা গান We found love in a hopeless place খুঁজতে চাই কিন্তু এর কিছু অংশ ভুলে যাই, তাহলে আমরা লিখতে পারি we found love in a crowded plaace এখানে স্টার দেয়া অংশে গুগোল বুঝে নেবে আপনি শিওর না এই পার্ট টুকুর ব্যাপারে, আর সে খুঁজে দেবে সম্ভাব্য সব কিছু।

৫। খুঁজে বেরকরুন সিমিলার সাইটঃ
প্রত্যেকটা সাইট এর একটা টাইপ থাকে। ফেসবুক যেমন সোশ্যাল মিডিয়া, Same as ব্লগ, আইটি টেকনোলজি বিষয়ক ইত্যাদি। তো আমরা যদি একটা সাইট এর মতো সিমিলার অন্য সাইট খুঁজে পেতে চাই তাহলে রিলেটেড লিখতে হবে আর পড়ে কলন দিয়ে লিখতে হবে জেটার মতো খুজছি। যেমন relate:Fiverr.com তাহলে ফাইভার এর মতো সিমিলার সাইট গুলি আমরা গুগলে খুঁজে পাবো।

৬। সহায়তা নিন অংক করতেঃ
আপনি চাইলেই ছোট অংক করিয়ে নিতে পারেন গুগোল কে দিয়ে। যেমন ৫+৩ লিখে সার্চ করলে এর ফলাফল পেয়ে যাবেন। তেমনি কোন বিজ্ঞানির থিওরী, কিংবা কোন ইকুয়েশান, অন্য কোন দেশের সময়, কারেন্সি, কারেন্সি কনভার্সন যেমন ডলার থেকে বাংলাদেশি টাকায় রুপান্তর ইত্যাদি কাজ গুলি খুব সহজে পেয়ে যাবেন গুগোল সার্চ করেই।

৭। খুঁজে ফেলুন একাধিক শব্দ একসাথেঃ
অনেক সময় আমাদের একাধিক শব্দ খুঁজে পেতে হয় বা একাধিক ফ্রেজ খোঁজার দরকার পড়ে। সেটা করতে আমরা পারি অর ইউস করার মাধ্যমে। সার্চ করার শব্দ গুলি ডাবল কুওট এর মধ্যে রেখে মাঝে OR লিখে সহজেই পেয়ে যেতে পারি একাধিক ফ্রেজ বা শব্দের সার্চ রেজাল্ট যেমন “how to learn graphic designing” OR “graphic design tips and tricks”।

৮। বার করুন সংখ্যার রেঞ্জঃ
আমরা অনেক সময় সমিকরন বা স্ট্যাটিস্টিক খুঁজে পেতে চাই। এর এটা খুঁজে পেতে আমরা ইউস করতে পারি ডাবল ডট। .. এইটা।
আর এটা আমরা ব্যাবহার করতে পারি দুই ভাবে। প্রথমত, কিছু লিখে ডাবল ডট দিয়ে একটি সংখ্যা যদি ব্যাবহার করি, মানে যদি লিখি Fifa world cup ..2018 তাহলে গুগোল বুঝবে আমরা শুধু এই শাল বা নাম্বার এর আওতায় তথ্য গুলি খুঁজে পেতে চাইছি। এর আগেউ না পরেউ না। তাহলে সে শুধু ২০১৮ এর তথ্য গুলি খুঁজে বার করবে। আর যদি লিখি Fifa world cup 1994..2018 তার মানে সে ১৯৯৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ফিফা তে যা যা হয়েছে (কিংবা আপনি যদি লিখে দেন আরও স্পেসিফিক ভাবে) তাহলে এই রেঞ্জ এর মধ্যেকার জিনিস গুলি আপনাকে খুঁজে এনে দেবে গুগুল।

৯। খুজেপান কাছের জিনিস পত্তরঃ
যেহেতু গুগোল সব দেশের সব বিজনেস, জায়গা ইত্যাদি ইনডেক্স করা থাকে, তো চাইলেই আপনি আপনার কাছের কোন জায়গা খুঁজে পেতে পারেন। যদি লিখেন Restaurent nearby, Or, Pet shop nearby, or hospital bearby, তাহলে আপনার লকেশান থেকে সব চেয়ে কাছের জায়গা গুলি সাজেস্ট করবে গুগোল।

১০। ট্রাই করুন একাধিক রেজাল্টঃ
অনেক সময় আমরা খুঁজে পাইনা আমাদের দরকারি রেজাল্টস বা খুঁজে খুঁজে পেজ নেক্সট করে করে হয়রান হয়ে যেতে হয়। এই কাজ টা গুগোল কে আরও ভালো করে বুঝিয়ে দিতে পারি ট্রাই কি ওয়ার্ড এর মাধ্যমে। নিচের উদাহরণ দেখলেই তা ক্লিয়ার হয়ে যাবেন।
First try: Write CV
Second try: how to write a proper CV
Third try: কাজের সাক্ষাত্কারের জন্য সিভি লেখার সেরা উপায়
এর ফলে গুগোল আপনার ট্রাই গুলি বুঝে তার রেজাল্ট গুলি ফিলটার করে আপনাকে এনে দেবে আপনি যা চান।

১১। সটিক শব্দ নির্বাচনঃ
এই জিনিস টা পুরাটাই আপনার উপরে নির্ভর করে। আমরা গুগোলে যা লিখি তা অনেক সময় আমাদের সঠিক রেজাল্ট এনেদেয় না। তাই আমাদের আগে বুঝতে হবে সটিক শব্দ কোন গুলি। তার পর সেটা সার্চ করতে হবে। যেমন আমরা লিখি
I want to learn java programming, or I have a headache.
কিন্তু আসলে আমাদের লিখা দরকার
Learn java programming or how to learn java programming, headache relief. etc.
তাহলেই আমরা খুঁজে পাবো এক্স্যাক্ট উত্তর।

১২। বাড়তি শব্দ লিখবেন নাঃ
আমরা অনেক সময় গুগোল কে নিজের বন্ধু মনে করে শুরু করে দেই সুখ দুক্ষের আলাপ। যেমন যদি আমরা কোন চাইনিজ রেস্টুরেন্ট খুঁজে পেতে চাই, আমরা লিখি Where can I find a Chinese restaurent which deliver food at home? Or, My computer’s monitor is getting fade, how to repare my monitor? please help! 📷:P 📷:P
এতো কিছুর এগেইন্সট এ চিন্তা করুন কত বাড়তি শব্দ গুগোল সার্চ করে এনে দেবে যেখান থেকে আপনার ফলাফল খুঁজে বের করা খুবি মুশকিল কিছু একটা। আর তাই লিখুন Chinese restaurent nearby, or monitor’s fade problem.

১৩। ব্যাবহার করুন আলাদা ফ্রেজঃ
অনেক সময় আমরা একটা সমস্যার সমাধান খুঁজে পাইনা গুগোলে। তখন হাল ছেড়ে দেই। কিন্তু একি সমস্যা একাধিক নামে থাকতেই পারে আর সেটা খুঁজে পেতে আমাদের কয়েকবার সার্চ করে দেখতে হতে পারে। যেমন আমরা যদি How to install windows 10 লিখে কিছু না পাই, আমরা সিমিলার শব্দ বা বাক্য ব্যাবহার করে আমাদের খুঁজে পেতে পারি আমাদের প্রব্লেম এর সমাধান। like, instalation of windows 10, windows 10 instalation troubleshoot, windows 10 setup, windows 10 setup problems etc.

১৪। খুঁজে বের করুন দরকারি ফাইলঃ
গুগোলে আজকাল আমরা অনেকেই খুঁজে পেতে চাই নানা ফাইল। সেটা হতে পারে পিডিএফ, হতে পারে ইএক্সই, বা ভিডিও যেমন এম্পি ফোর, বা পিএসডি ইত্যাদি। যার যা দরকার আরকি। তো আমরা চাইলে গুগোলে খুঁজতে পারি শুধু এই ফরম্যাট এর ফাইল গুলি। এর জন্য আমাদের ব্যাবহার করতে হবে ফাইলটাইপ এই কি ওয়ার্ড টি। যেমন কেউ যদি বই খুঁজতে চান পিডিএফ আকারে তাহলে লিখুন
Book name filetype:pdf like Lilaboti filetype:pdf.

১৫। ডাউনলড করুন যে কোন মুভিঃ
যদিও এই উপায় হয়তো দুনিয়ার সব মুভি বা ভিডিও খুঁজতে কাজে দেবে না, তার পরেউ যদি চান নরমাল কোন মুভি বা ভিডিও বা সিরিয়াল ডাউনলড করতে, ব্যাবহার করতে পারেন ইনডেক্স অফ কি ওয়ার্ড টার। যেমন যদি Game of thrones English সিরিয়াল টি ডাউনলড করতে চান তাহলে লিখুন index of game of thrones, প্রথম এর কয়েকটি লিঙ্ক এ ঢুকে দেখুন ভিডিও ফরম্যাট গুলি দেয়া আছে। যেমন সেখান থেকে ফাইল এর উপরে ক্লিক করলেই শুরু হয়ে যাবে ডাউনলড।

তো, এই ১৫ টা বেসিক খুঁজে পাওয়ার টিপস আমি নিজে ব্যাবহার করি। তাই শেয়ার করলাম আপনাদের সাথে। হয়তো গুগোল করলে এমন আরও অনেক টিপস পেয়ে যাবেন। তো খুঁজতে থাকুন আজ থেকেই। এই টিপস গুলি এখুনি ইউস করে দেখেন কত মজা! গুগোল কে এখন আরও কাছের মামা বলে মনে হবে আপনার! 📷:D যা খুঁজতে চান তা এখন খুঁজে পাবেন আরও দ্রুত। শিখার সময় বেরে যাবে অনেক। আর তাই বসে না থেকে নেমে যান মামা ভাগিনা এক রোমাঞ্চকর শিক্ষা সফর এ! শিখুন বেশি বেশি, দক্ষ হন, ইন্টারনেট এর রিসোর্স কে কাজে লাগিয়ে নিয়ের ক্যারিয়ার গড়ুন। 🙂
শুভকামনা সকলের জন্য।

2 thoughts on “শিখে নিন গুগোল এর কিছু অসাম সারচিং টিপস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *