খালি পেটে ডাবের পানি খাওয়ার উপকারিতা কি

খালি পেটে ডাবের পানি খাওয়ার উপকারিতা কি

স্বাস্থ্য

ডাবের পানি একটি অসাধারণ পানি হিসাবে বিবেচিত হয়। ডাবের পানি স্বচ্ছপানি পানীয় হিসেবে অত্যন্ত সুস্বাদু। শুধু তাই নয়, ডাবের পানিতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যামাইনো অ্যাসিড, ভিটামিন বি কমপ্লেক্স, ভিটামিন সি, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, মেঙ্গানিজ এবং জিঙ্ক ইত্যাদি। ডাবের পানি খাওয়ার উপকারিতা কোনো জুরি নাই।

হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে :

ডাবের পানিতে আছে ক্যালসিয়াম, যা শরীরে হাড় গঠনে এবং হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটাতে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে। পাশাপাশি এতে উপস্থিত ম্যাগনেসিয়ামও এক্ষেত্রে সাহায্য করে থাকে। 

শরীরকে বিষমুক্ত করে :

যেহেতু ডাবের পানি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ভরপুর। তাই খুব সহজেই শরীরের কোণায় কোনায় উপস্থিত ক্ষতিকর টক্সিক উপাদানকে বের করে দিতে পারে। আপনি প্রতিদিন সকালে ডাবের পানি পান করলে শরীরের ধারে কাঁছে ঘেঁষতে পারে না নানাবিধ রোগব্যাধি। তাছাড়াও শরীরিক ক্ষমতাও বৃদ্ধিতেও গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখে।

ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে:

ডাবে উপস্থিত অ্যামাইনো অ্যাসিড এবং ডায়াটারি ফাইবার ইনসুলিনের কর্মক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। যার ফলে স্বাভাবিকভাবেই ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকে। প্রতিদিন ডায়েটে ডাবের পানি রাখার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা।

কিডনির ক্ষমতা বাড়ে :

পটাশিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম থাকায় ডাবের পানি কিডনির কর্মক্ষমতা বাড়াতে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখে।  শরীরে উপস্থিত টক্সিন উপাদানদের ইউরিনের সঙ্গে বের করে দিয়ে নানাবিধ জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়া থেকে মুক্তি দেয়।

পানির ঘাটতি মেটে :

ডাবের পানি শরীরে প্রবেশের সাথে সাথে পানির ঘাটতি দূর হতে শুরু করে। একই সঙ্গে, এতে থাকা বৈদ্যুতিন সংশ্লেষ ডায়রিয়া, বমি এবং অতিরিক্ত ঘাম হওয়ার পরেও শরীরে খনিজ ঘাটতি পূরণে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

শরীর এবং ত্বকের বয়স কমে :

ডাবের পানিতে সাইটোকিনিস নামক অ্যান্টি-এজিং উপাদান থাকে, যা শরীরে বয়সের ছাপ পড়া রোধ করে। এটি ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

ওজন হ্রাসে পায় :

ডাবের পানিতে বেশ কয়েকটি উপকারী এনজাইম হজমশক্তি বাড়ায় এবং বিপাক ক্রিয়া উন্নত করতে সহায়তা করে। ফলস্বরূপ, ফলে খাবার খাওয়া মাত্র এটি এত ভাল হজম হয় যে শরীর চর্বি হিসাবে হিজড়িত খাবার জমা করার সুযোগ পায় না। ফলস্বরূপ, ওজন হ্রাস শুরু হয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটে :

ডাবের পানিতে রিবোফ্লাভিন, নিয়াসিন, থায়ামিন এবং পাইরিডোক্সিনের মতো উপকারী উপাদান সমৃদ্ধ । তাই প্রতিদিন পান করলে শরীরের শক্তি এতটা বৃদ্ধি পায় যে জীবাণুরা কোনওভাবেই শরীরের ক্ষতি করার সুযোগ পায় না। একই সঙ্গে ডাবের পানিতে বং অ্যান্টি-ব্য়াকটেরিয়াল প্রপাটিজ নানাবিধ সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে :

শরীরে খারাপ কোলেস্টেরল বা এলডিএল কমিয়ে হৃদরোগের উন্নতির জন্য ডাবের পানির কোনও বিকল্প নেই। দেহে ভালো কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়িয়ে হঠাৎ হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমাতেও ডাবের পানি বিশেষ ভূমিকা নিয়ে থাকে।

মাথা যন্ত্রণার প্রকোপ কমে :

ডিহাইড্রেশনের কারণে মাথা যন্ত্রণা বা মাইগ্রেনর অ্যাটাক হওয়ার মতো ঘটনা ঘটলে শীঘ্রই এক গ্লাস ডাবের পানি পান করবেন। এমনটা করলে দেখবেন নিমেষে কষ্ট কমে যাবে। প্রাকৃতিক উপাদানটিতে ম্যাগনেসিয়াম, এই ধরনের শারীরিক সমস্যার চিকিৎসায় বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

1 thought on “খালি পেটে ডাবের পানি খাওয়ার উপকারিতা কি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *