ডার্ক ওয়েব কি? কিভাবে এবং কি কি কাজে লাগে?

ডার্ক ওয়েব হল ওয়েব যা ইন্টারনেটের ব্রাউজিং সম্পর্কিত কিছু অংশকে অনিশ্চিত করে। সাধারণত এটি পাবলিক সার্ভারে আছে না এবং এটি কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই ব্যবহারকারীরা এই ওয়েব ব্রাউজ করতে পারেন। এখানে ডার্ক ওয়েব ব্যবহারকারীরা নিরাপদ, গোপনীয়তামূলক কাজসমূহ পরিচালনা করে থাকেন। এতে সোশ্যাল মিডিয়া এক্সেস ছাড়া ব্যবহারকারীরা উপভোগ করতে পারেন।

যেমন যে কোন গোপনীয় তথ্য অথবা যে কোন বিতর্কমূলক শিল্পের সাইট দেখা যায়। ডার্ক ওয়েবে ব্যবহারকারীদের জন্য যা যা প্রয়োজন তা তাদের উপলব্ধ রেখে দেয়া হয়। মানে একাধিক সল্প আইটেমের বিক্রি, হ্যাকিং সম্পর্কিত লেখা, টেলিভিশন প্রডাক্ট সম্পর্কিত তথ্য ইত্যাদি কাজ বিশেষভাবে ডার্ক ওয়েবের জন্যে পরিকল্পনা করা হয়েছে। তবে, আমরা আমাদের সুরক্ষার জন্য ডার্ক ওয়েব সম্পর্কে জানতে হলে হয়তো আমরা এই ওয়েবে এলে অনেক বিপরীত কিছু দেখতে পারি।

ডার্ক ওয়েব কি?

ডার্ক ওয়েব একটি ছাদ পর্দা দিয়ে সূর্যের আলো প্রবেশ না করা ওয়েব দুনিয়া। এটি সাধারণত একটি অনেক গভীর ও বিকৃত অংশ, যেখানে নিউজ ফিডব্যাক, বিশেষ সময়ের খবর, বিশেষ রকমের পণ্য, সেলব মালামাল ইত্যাদির বিজ্ঞাপন পাওয়া যায়। কিন্তু দার্ক ওয়েবে একটি বিভিন্ন ধরনের অসাধারণ কাজ ঘটে থাকে। এটি অসাধারণ জিনিস বেচকেনা করা, নেটিং মালিন্য ফ্রী সাইট দেখা এবং হ্যাকিং, টুর হটেল বুকিং বাজার এবং বিভিন্ন নিষিদ্ধ ধরনের সেবাসমূহ একটি সামাজিক অন্ধকারের মধ্যে পাওয়া যায়।

যেখানে অনেকটি বিপদজনক কাজ চলে থাকে এবং অন্যকে জটিল হার্ডওয়্যার সমূহ ও সুরক্ষা ফাঁকীওয়ালা সাইট ব্যবহার করতে হয়। দার্ক ওয়েবের মাধ্যমে সাইবার অপরাধের বিস্তৃত নেটওয়ার্ক নির্মাণ করা হয়।

ডার্ক ওয়েবের সাধারণ বিবরণ

ডার্ক ওয়েব হল ওয়েব সাইটের একটি অংশ যা ইন্টারনেট সার্ভিস প্রদানকারী থেকে সংগ্রহ করা তথ্যের পূর্ববর্তী অংশ। সাধারণতঃ ডার্ক ওয়েবে লিখিত হলে কেউ ভাবেন না যে, এই ওয়েব পেইজের সার্ভার কোথায় অবস্থিত সেটি জানা যায় না অথবা ওভারলেন করা যায় না। এতে সাধারণ ওয়েব ব্রাউজার দিয়ে যাওয়া যায় না। ডার্ক ওয়েব নির্দিষ্ট কিছু নজর দেওয়া হয় যেমন ইমেইল একাউন্ট তথ্য, ফোরামে পোস্ট করা তথ্য এবং অনলাইন আদালতের ডকুমেন্ট।

ডার্ক ওয়েব একটি স্বচ্ছ স্থান নয়, সাধারণতঃ এটিতে বিপদ আছে যা ব্রাউজার সফটওয়্যার নির্ভরশীল হওয়ায় এর মানদন্ড প্রচলিত সাধারণ ওয়েব এর পেতুন নিশ্চিত করা বেশ কঠিন।

ডার্ক ওয়েবের ফিচারস

ডার্ক ওয়েব হল ইন্টারনেটের সেগুলো পাতা যা পাবলিক সার্ভারে অ্যাকসেস করা যায় না। এই ওয়েবসাইটগুলো একটি নিরাপদ মাধ্যম দিয়ে একসেস করা যেতে পারে এবং এর জন্য একটি ডার্ক নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা হয়। সাধারণত ডার্ক ওয়েব সম্পর্কিত যে ভয়ংকর স্থাপনাগুলো জানা হয় সেগুলো হল হ্যাকিং, ড্রাগ ডিলিং এবং মানব বিক্রি যেমন দায়দানশীল সমস্যাগুলো। আপনি যদি ডার্ক ওয়েবে সার্ফ করার সুযোগ পেলেন তো আপনাকে অবশ্যই সাবধান হতে হবে এবং আপনার পাসে সেই নিরাপদ মাধ্যম থাকতে হবে যা আপনাকে একটি VPN ব্যবহার করে তৈরি করতে হবে।

ডার্ক ওয়েবের একটি আরও আকর্ষণীয় ফিচার হল তার সুযোগ থেকে নিরাপদে ডোকুমেন্ট আপলোড এবং শেয়ার করা যায় এবং অনলাইন ভিত্তিতে ট্রানজেকশান করা যায়। তাই ডার্ক ওয়েব ব্যবহারের আগে আপনাকে আপনার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত সুযোগ এবং এদের সুরক্ষা সিদ্ধান্ত নিয়ে কাজ করতে হবে।

ডার্ক ওয়েব কেন জ্বালাতন করে?

ডার্ক ওয়েব এর সামনে এসে যাওয়া বিশ্বাসঘাতক ইমেল, হ্যাকিং টুলস এবং ডানিশ রহস্যময় নেটওয়ার্ক সাধারণ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের প্রচন্ড রাগ আর মুগ্ধতার তালিকায় রয়েছে। শুধু তাই নয়। ডার্ক ওয়েবের মধ্যে তথ্য বিক্রি এবং ক্রেতা দের মধ্যে নিজস্ব নিয়ন্ত্রণ না থাকায়, প্রচলিত অপরাধি গতিবিধি ও বক্সিং ডে use এর মতো অসুস্থতার সৃষ্টি করে থাকে। এছাড়াও, বিশ্বের মাঝে ডার্ক ওয়েব কোনও ধরনের নিকৃষ্টতা এবং অবহেলা ছাড়া থাকা ব্যবসা করা না সম্ভব।

See also  ভার্চুয়াল জগৎ কি? দৈনন্দিন জীবনের সমস্যা সমাধানে ইন্টারনেটের ভূমিকা আলোচনা করো

এর জন্য বেশিরভাগ লোকই ডার্ক ওয়েব একটি এলাকা হিসেবে বিবেচনার চাহিদা করেন না।

ডার্ক ওয়েবে অবৈধ কাজের সম্ভাবনা

ডার্ক ওয়েব একটি পুরোপুরি অনধিকারিত ও প্রশাসনহীন অনলাইন প্লাটফর্ম। এটি ইন্টারনেটের বাইরের একটি অংশ, যেখানে সম্পূর্ণ বিভিন্ন ধরনের অপরাধ সম্পন্ন হয়। নির্দিষ্ট ছায়াপথের মধ্যে এই ওয়েবসাইটগুলি অন্তর্ভুক্ত থাকে যা আমরা সাধারণত ইন্টারনেট ব্রাউজ করার সময় দেখতে পারি না। ডার্ক ওয়েব থেকে অবৈধ কাজকারীরা মাদক বিক্রি, হ্যাকিং, মার্ডার পরিকল্পনা এবং আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ কিনে অনলাইনে কাজ করে থাকে।

আমরা এই অনধিকারিত চলমান স্টেটগুলির সম্পর্কে জানতে না থাকার কারণে ডার্ক ওয়েবে এই ধরনের অবৈধ কাজগুলি আরামদেহভাবে সম্পন্ন হতে পারে। সুতরাং, ডার্ক ওয়েব এর জন্য নিরাপত্তা স্বাভাবিকভাবে কম থাকে এবং তার ব্যবহার জন্য ভুলে চলা কঠিন। জ্বালাতন এবং ডার্ক ওয়েবে অবৈধ কাজ বন্ধ করা নিশ্চিত করা জরুরি হলেও এটি প্রায়ই অন্যদের কাছে অন্ধকার থেকে আরো দূর থাকবে।

ডার্ক ওয়েব থেকে সিনদুক ও জুতা পাঠানোর আলোচনা

ডার্ক ওয়েবে বিক্রি এবং ক্রয়ের কাজ হল ভালো করা না যার কারণে সম্ভবত ডার্ক ওয়েব তৈরি হয়েছে। ডার্ক ওয়েবে কিছু খুব বিশিষ্ট বিষয়ের জন্য ব্যবহার করা হয় যেমন নারকেলের দুধ, বিভিন্ন ধরনের ক্রাইমের আদেশ এবং আরও অনেক কিছু। একটি দ্রষ্টব্য এখানে হল, ডার্ক ওয়েবকে গূর্তবপূর্ণ এবং দ্রুত করে ব্যবহার করা হয় না। ডার্ক ওয়েবে আপনি নথি, তথ্য, বিক্রেতা এবং ক্রেতার মধ্যে কথা বলতে পারেন প্রতিবন্ধক ছাড়াই।

যার কারণে বিরোধ বেড়ে আছে সব কিছুতে এবং এটি জ্বালাতন করছে সিনদুক ও জুতা পাঠানো প্রথাগুলির মত। কিছু মানুষ অল্প টাকা লাভ করার আশায় কিছু মানুষ নির্বাচন করে এই ডার্ক ওয়েব থেকে সিনদুক ও জুতা প্রাপ্ত করে লাভ করেন এবং তাদের সম্মানহীনতা থেকে একটি ছোট্ট লাভের মধ্যে ভর করেন। ডার্ক ওয়েব এখন বন্ধ করে দেওয়া উচিত স্থান যাতে লক্ষ লক্ষ মানুষ জ্বালাতন থেকে মুক্তি পাবে।

ডার্ক ওয়েব ব্যবহারের সুযোগ ও জোখম

ডার্ক ওয়েব হল ইন্টারনেটের ঐ অংশ যেখানে অনেক ধরনের অবৈধ কাজ সম্পাদন করা হয়। আমরা সাধারণত ইন্টারনেট ব্যবহার করতে যাই, যেমন মেইল পাঠানো বা সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজে পাওয়া। তবে ডার্ক ওয়েবে সে সরবরাহ হয় যেসব বিষয়ের কথা প্রকাশ করা যায় না বা সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজে পাওয়া যায় না। এই অংশে চাইলে ধ্রুবক থাকতে পারেন কিন্তু জেনে থাকতে হবে এটি ব্যবহার করা অপরাধ।

তবে ডার্ক ওয়েব ব্যবহারে প্রধান সমস্যা হল ভুলভাবে বিক্রয় ও ক্রয়। এখানে পার্সনাল ডাটা লিক সম্ভবতা থাকে এবং মূল্য দেওয়া পণ্যের সঠিকতা নিশ্চিত না থাকলে আপনার লস হতে পারে। তাই সর্বদা সতর্ক থাকা প্রয়োজন।

ডার্ক ওয়েবে যা যা খুঁজতে হবে এবং কি কি লাভ হতে পারে

ডার্ক ওয়েব হচ্ছে এমন একটি অংশ যেখানে সকল ধরনের গোপনীয় কাজ এবং তথ্যের মেধাদমে চলতে থাকে। এই ওয়েবটি ইন্টারনেটের বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে খুঁজে পাওয়া যায় না। যেমনঃ প্রতিটি সাইটের লিংক এবং সার্চ ইঞ্জিনের ফলাফল আসলে ডার্ক ওয়েবের সাথে সংযুক্ত না। ডার্ক ওয়েবে থাকা এক জনকে অবদানকারীর নাম ভিশ্বসনীয়তা বিষয়ক কাজ করতে হয়।

See also  সাইবার ক্যাফে: আধুনিক দুনিয়ার দরজা

তবে এতে অনেক জোখম রয়েছে। যারা ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করে সেখান থেকে বিভিন্ন ধরনের সেবা নেওয়া যায় যেমনঃ হ্যাকিং সংক্রান্ত তথ্য, নারকোটিকস ও ইস্টার্ন মেডিসিন সংক্রান্ত তথ্য এবং বিভিন্ন প্রাণীর আসল আদর্শ মূল্য সম্পর্কিত তথ্য উন্নয়ন করা হয়।

ডার্ক ওয়েব থেকে হতাশার দিকে নজর রাখুন

ডার্ক ওয়েব একটি অনুষ্ঠানমূলক ওয়েব যা নিউক্লিয়ার ফিজিক্স, রাজনীতি বা আইন বিষয়ক তথ্যগুলির জন্য অ্যাক্সেস দেয়। এই ওয়েবসাইটের মধ্যে সাধারণতঃ গোপনীয় বিষয়গুলি উপস্থিত থাকে যা একজন সাধারণ ওয়েব ব্যবহারকারীর জন্য নিজেস্ব হতে পারে।ডার্ক ওয়েবে সাধারণতঃ নিয়মানুযায়ী ব্রাউজ না করা উচিত এবং নিজেকে সুরক্ষিত রাখার চেষ্টা করা উচিত। আরও সাবধানতা নিতে হলে এই ধরণের ওয়েবসাইট থেকে দূরে থাকা উচিত।

তবে সেই সমস্ত জোখমগুলি একটি একটি সমাধানের মধ্যে বিচ্ছিন্ন হতে পারে।

কিভাবে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করবেন?

ডার্ক ওয়েব হল সাধারণত ইন্টারনেটের অংশ না, বরং এটি ডিপ ওয়েব বা হিডেন ওয়েব নামেও পরিচিত। এটি পাবলিক সার্ভার থেকে অদৃশ্য এবং এক্সেসযোগ্য হলেও ব্রাউজার দ্বারা এক্সেস করা যায় না। আপনি ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করতে হলে আপনার টেকনিক্যাল নলেজ হতে হবে। প্রথমেই, আপনাকে একটি টর ব্রাউজারের মাধ্যমে প্রবেশ করতে হবে।

তারপর নিশ্চিত হতে হবে তার উপর টুর ওভারলেই সিকিউরিটি বেশি না পড়ছে। আপনি ফ্রি টর সফটওয়্যারগুলি ব্যবহার করতে পারেন কিন্তু এর সিকিউরিটি মিনিমাম হবে। তাই নিশ্চিত হতে হবে আপনি একটি ভালো ভাবে মানসিকভাবে প্রস্তুত আছেন এবং নিরাপদে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করছেন।

ডার্ক ওয়েবে কিভাবে প্রবেশ করা যায়?

ডার্ক ওয়েব নিয়ে কথা শুরু করতে হলে আপনাদের প্রথমেই জানতে হবে ডার্ক ওয়েব কী? সাধারণত আপনি যেখানে ইন্টারনেট এর সাথে যুক্ত থাকেন সেটা হচ্ছে লাইট ওয়েব। যেখানে আপনি দেখতে পাবেন সাধারণত সারাদিন কথা বলে না না ভাবে খোজকর্তা চাই। কিন্তু ডার্ক ওয়েবে আপনার সেইসকল সাইট দেখা যায় যেখানে আপনি নরমাল ওয়েব থেকে পাবেন না। তাই এটা হলো এক জায়গা যেখানে আপনি এইচএসটিএমএল ফাইল পেতে পারবেন না।

আপনি ডার্ক ওয়েব এসে একটি সাইট খুলতে পারেন যেখানে আপনি এক জিবি সেল করে ডাউনলোড করতে পারেন নিজস্ব ডেটা, গান, ভিডিও ইত্যাদি। তবে সতর্ক থাকুন ডার্ক ওয়েবে গিয়ে আপনার নিজের সুরক্ষা কম্প্রমাইজ না হয়।

ডার্ক ওয়েবে দাখিল হতে হলে কি মানবদেহ প্রযোজ্য?

ডার্ক ওয়েব একটি ঐতিহাসিক তালিকা হল যা ইন্টারনেট সংস্থার সাথে সম্পর্কিত। এটি ধোঁকা, সমস্যা এবং নিরাপদভাবে যেতে কেও দাখিল হতে পারে। কিন্তু, ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করতে হলে আপনাকে কোনও প্রকার মানবদেহ প্রযোজ্য নয়। আপনি একটি কম্পিউটার বা মোবাইল ফোন এবং একটি ইন্টারনেট সংযোগ দরকার হবে।

এরপরে আপনি কিছু ডাউনলোড করে একটি স্পেশাল ব্রাউজার, যেমন Tor ব্রাউজার, ব্যবহার করতে পারেন। উল্লেখ্য, এই ব্রাউজার আপনাকে অন্য কোনও ব্রাউজারের মতো সার্ফ করার অনুমতি দেয় না। এর চেয়ে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করা খুবই কমপ্লেক্স এবং জনসাধারণের জন্য সহজবোধ্য নয়। পরীক্ষাও দিয়ে এটি শিখতে আপনি কখনও দাঁড়িয়ে না থাকলেও আপনি সফলভাবে ইন্টারনেটের সদর এই এলাকায় প্রবেশ করতে পারবেন।

Leave a Comment