ডোমেইন কত প্রকার ও কি কি?

ডোমেইন মানে হল ইন্টারনেটে একটি ওয়েবসাইট পরিচালনার সমস্ত তথ্য সংগ্রহ করা একটি নাম। একটি বিশেষ ওয়েবসাইটের ঠিক জায়গা নির্দিষ্ট করতে যখন মানপ্রতিরূপে নতুন একটি নাম খুঁজে পাওয়া হয় তখন তা ডোমেইন হয়। ডোমেইন কয়েকটি প্রকারে উপস্থিত থাকে, যেমন .com, .edu, .org, .gov, .net ইত্যাদি। এছাড়াও ন্যূনতম কয়েকটি প্রকারের সাবডোমেইনও আছে, যেমন আমাদের ভোকাবুলার পোষ্ট গুলো দেখতে পাচ্ছেন ইউনিক আইডি সহ ইউটিউব পোষ্টে নিয়ে লেখা পোস্টগুলি সাবডোমেইন হিসেবে গেছে।

সর্বশেষ ডোমেইনগুলো রেজিস্টার করতে হলে একটি ডোমেইন রেজিস্ট্রারকে চাকরি দিতে হয়।

ডোমেইন কি?

ডোমেইন হল ইন্টারনেটে ওয়েবসাইট সম্পর্কিত একটি নাম। সহজ ভাষায় বলা যায় ডোমেইন হল ইন্টারনেটে ওয়েবসাইটের আইডেন্টিটি। আপনি কোন নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটে ঢুকতে চান তখন আপনার ওয়েব ব্রাউজারে ওই ওয়েবসাইটের নাম টাইপ করলে সেটি কাজ করে। ডোমেইন সেটি ওয়েবসাইটের লাইফলাইন পরিচালনা করে এবং ইন্টারনেটে একটি ওয়েবসাইট অনলাইনে নিয়মিত মুক্ত থাকে।

একটি ডোমেইন দ্বারা ওয়েবসাইট একটি ইউনিক অনলাইন প্রতিনিধিত্ব করে এবং একটি IP ঠিকানা সঙ্গে সম্পর্কিত থাকে। আপনি কোন ভাবেই নিজের স্থায়িত্ব বা পরিসংখ্যান ছাড়াই ইন্টারনেটে একটি ওয়েবসাইট শুরু করতে পারবেন না।

ডোমেইন এর সাধারণ ব্যাখ্যা

ডোমেইন হল ইন্টারনেট এড্রেস বা ওয়েবসাইটের নাম। ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজ ওয়েবসাইট ডোমেইন এর মাধ্যমে উপস্থাপিত হয়। ডোমেইন এর একটি প্রাথমিক কাজ হল ডিজিটাল সূচক এর মাধ্যমে ওয়েবসাইটের আইপি এড্রেস খুঁজে বের করা। এটি ওয়েবসাইট যখন ওপেন হয় তখন ব্রাউজার এশওয়ার ওয়েবসাইট ডোমেইন খুজে বের করে সেটি লোড করে।

একটি ডোমেইন অ্যাক্সেস করতে হলে ইন্টারনেটে জার্নরাল নেভিগেশন এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট এর নাম অনুসন্ধান করে তা লিখে সাবমিট করা হয়। পরিবর্তনশীল ওয়েবসাইট ডোমেইন অভিনব নাম হওয়া উচিত এবং সেটি সহজ মনে হতে হবে। একটি ডোমেইন ক্রয় করার পূর্বে এর ভেতরে সেই নামের পর্যালোচনা করতে হবে এবং এটি শুধু একটি উন্মুক্ত ডোমেইন না হয়ে রয়েছে তা পরীক্ষা করতে হবে।

ইন্টারনেটে ডোমেইন এর ব্যবহার

ডোমেইন হল একটি ইন্টারনেটের সংখ্যার পদ্ধতি যা ওয়েবসাইট, ইমেইল এবং অন্যান্য ইন্টারনেট পরিষেবাগুলি সনাক্ত করে। প্রতিটি ডোমেইনের একটি ইন্টারনেট প্রোটোকল এবং রেজিস্ট্রারের একটি রেকর্ড আছে যা সংখ্যাটি ম্যানেজ করে। একটি ডোমেইন হল একটি সংখ্যা পদ্ধতি যা মানুষ সহ কম্পিউটার ওয়েব ব্রাউজারে না মুছে ফেলে দেখে। ডোমেইন নির্দেশ করে যেকোনো ইন্টারনেট পরিষেবা জন্ম নেওয়ার উপর নির্ভর করে এবং এটি অতিরিক্ত স্বচ্ছতা এবং সহজতর ইন্টারনেট ব্রাউজ সম্পর্কিত মূল্যের অভিনব সুবিধা সরবরাহ করে।

See also  ডাইনামিক ওয়েবসাইট: কী এবং কেন?

সার্চ ইঞ্জিন অনুসন্ধানকারী মানুষকে একটি ডোমেইনে উপস্থিত একটি ওয়েবসাইট বা পেজ প্রকাশিত করতে সহায়তা করে এবং আরো গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ প্রতিষ্ঠা করে। সংক্ষেপে বলা যায় যে ডোমেইন ইন্টারনেটের জীবনের অ্যাসেট এবং এর ব্যবহার একজন ওয়েব কিংবা ব্লগার হওয়া বাধ্যতামূলক।

ডোমেইন কত প্রকার?

ডোমেইন হচ্ছে একটি ওয়েবসাইটের নাম। ডোমেইনগুলি অনেক ধরনের হতে পারে। প্রথমে ডট কম ডোমেইনগুলি সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত। এছাড়াও অনেক অন্যান্য ডোমেইনও আছে যেমন ডট অর্গ, ডট নেট, ডট ইনফো ইত্যাদি।

বিভিন্ন সেক্টরের লোকেরা নিজস্ব ডোমেইন ব্যবহার করে থাকেন। সবার মধ্যে একটি ডোমেইন একটি ওয়েবসাইটের বৈশিষ্ট্য। প্রতিটি ডোমেইন একমাত্র ওয়েবসাইটে ব্যবহৃত হতে পারে না। একই সময়ে একটি ডোমেইনও একাধিক ওয়েবসাইটে ব্যবহৃত হতে পারে।

অবিলম্বে ডোমেইনগুলির সংখ্যা বাড়তে থাকছে তাই ডোমেইনের নামিং নির্দেশিকা অনুযায়ী ডোমেইন পরিচিত ও গুরত্বপূর্ণ উত্স এখন চিন্তাভার্য সমস্যা হয়ে উঠেছে। “

জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন

ডোমেইন একটি নেটওয়ার্কের একটি আইডেন্টিফায়ার যা একটি ইন্টারনেট সার্ভারের ঠিকানা অর্থাৎ আইপি ঠিকানা হিসাবে কাজ করে। এটি নেটওয়ার্কের আইডেন্টিটি হিসাবে কাজ করে এবং একটি বিশেষ প্রোটোকল দ্বারা ব্যবহার করে হোস্টগুলি নেটওয়ার্কে উন্নয়নের সাথে সম্পর্কিত কম্পিউটারগুলির সমস্ত তথ্য স্থানান্তর করতে এর ব্যবহার হয়। এখন একটি প্রশ্ন আসতে পারে কোন করে ডোমেইন আছে? উত্তর হচ্ছে, হ্যাঁ একাধিক ধরনের ডোমেইন আছে যেমন উক্তি সম্প্রসারণ সম্পর্কিত, কমার্শিয়াল, সরকারী, সংস্থাগুলি, প্রকৃতি এবং একটি জিনিস বিষয়ক ওয়েবসাইট। তবে এসব ডোমেইনের শুরুতে প্রতিটি ডোমেইনের লেভেল একই থাকে এবং সেটি জেনেরিক ডোমেইন বলে।

এই লেভেলের ডোমেইনের উদাহরণ হচ্ছে .com, .org, এবং .net, ইত্যাদি।”

কান্ট্রি কোড টপ লেভেল ডোমেইন

ডোমেইন হল একটি ওয়েবসাইট বা পৃষ্ঠার নাম বা ঠিকানা। এটি ওয়েব হোস্টিং কম্পানি থেকে ক্রয় করা হয়। এর মাধ্যমে দর্শকগণ ওয়েবসাইটটি খুঁজে পাওয়ার জন্য ঠিকানা ব্যবহার করে। ডোমেইন সাধারণত তিনটি পর্যায় থেকে গঠিত থাকে।

See also  এইচটিএমএল (HTML) পেজে ইমেজ যুক্ত করার নিয়ম কি?

এটি টপ লেভেল ডোমেইন, সাব-ডোমেইন এবং টি-লি-টলি ডোমেইন হিসাবে পরিচিত। টপ লেভেল ডোমেইন হল ওয়েবসাইটের প্রথম অংশ, যা ছাড়াও ওয়েবসাইটের পরের অংশগুলি কাজ করবে না। সাব-ডোমেইন হল একটি মূল ডোমেইন থেকে একটি নির্দিষ্ট অধিকারীর জন্য অপরিবর্তিত রুট। এবং টি-লি-টলি ডোমেইন হল মূল ডোমেইনের চেয়ে অধিক বর্ণ মধ্যে প্রদর্শিত একটি বাদামা সংকেত।

এদের মধ্যে টপ লেভেল ডোমেইন অন্যদের থেকে বেশি মূল্যবান এবং ক্রয় করার সময় তথ্য সংগ্রহ করতে হয়। ডোমেইনের স্বামী হিসাবে আপনি মূল্যবান ডোমেইন কিনতে পারেন এবং উন্নয়ন করে নিতে পারেন।

টপিক বেসড টপ লেভেল ডোমেইন

ডোমেইন বলতে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের ঠিকানা বোঝাই। আর এটি সাধারণত দুই প্রকারের হয়ে থাকে। প্রথমটি টপ লেভেল ডোমেইন এবং দ্বিতীয়টি সাব ডোমেইন। টপ লেভেল ডোমেইন হল ওয়েবসাইটের বড়তা ঠিকানা যেমন www.google.com অথবা www.facebook.com ।

আর সাব ডোমেইন হল মূল ডোমেইনের নিচে থাকা ঠিকানা যেমন, mail.google.com অথবা business.facebook.com। সাব ডোমেইনের মাধ্যমে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের সেবা পরিবর্তন করতে পারি আবদ্ধ করতে পারি। প্রতিটি সাব ডোমেইন একটি বিশিষ্ট কাজ করে এবং এর মাধ্যমে আমরা আমাদের ওয়েবসাইট বেশি বেশি দিকনির্দেশনা দিতে পারি।

রেজিস্ট্রার এর উপরে ভিত্তি করে ডোমেইন

ডোমেইন হল ওয়েবসাইট বা ইমেলের ঠিকানা। ডোমেইন না থাকলে, হোস্টিং সার্ভারে ওয়েবসাইটকে সনাক্ত করা সম্ভব হয় না। এটি ওয়েবসাইটের অংশ। রেজিস্ট্রার এর উপরে ভিত্তি করে ডোমেইন হল অসম্পূর্ণ নাম যা একটি অনলাইন ঠিকানার সাথে সংযোগ স্থাপন করে।

সাধারণত, একটি ডোমেইনের দুটি অংশ থাকে: হোস্ট নাম এবং ডোমেইন এক্সটেনশন। ডোমেইনের একটি নাম হল হোস্ট নাম এবং সেই নামের সাথে একটি এসডিএম যোগ করে ডোমেইনের এক্সটেনশন দেওয়া হয়। যেমন, উদাহরণস্বরূপ আমাদের ডোমেইনের নাম হল ‘example.com’, এখানে ‘example’ হল হোস্ট নাম এবং ‘.com’ হল ডোমেইন এক্সটেনশন। আমরা অনেক ধরনের ডোমেইন ব্যবহার করি, এবং এই ধরনের নাম ওয়েব হস্টিং বা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর উদাহরণ হিসাবে পরিচিত।

Leave a Comment