নেটওয়ার্ক (Network) কি? নেটওয়ার্কের প্রকারভেদ, প্রয়োজনীয়তা ও অসুবিধা

নেটওয়ার্ক হল বিভিন্ন যুক্তিসম্পন্ন ডিভাইস (যেমন কম্পিউটার, প্রিন্টার, রাউটার) এবং সফটওয়্যারগুলির সংযোগ এবং সম্পর্ক একটি ব্যবস্থা। এই যুক্তিসম্পন্ন ডিভাইস গুলি থেকে তথ্য এবং তথ্যসমূহ পাঠানো হয়। একটি নেটওয়ার্ক ছাড়াও অনেক জিনিস আমরা ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারি না। নেটওয়ার্ক দুই প্রকারের হতে পারে – লোকাল এবং ওয়ান।

লোকাল নেটওয়ার্ক হল কোম্পানির একটি অংশ যেখানে বিভিন্ন সফটওয়্যার গুলি মাত্র কোম্পানির আইটি ব্যবস্থায় ব্যবহৃত হয় এবং ওয়ান নেটওয়ার্ক হল একটি মধ্যবর্তী শাখা যা দুটি বা ততোধিক লোকাল নেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করে একটি বড় নেটওয়ার্ক তৈরি করে তুলে ধরে। নেটওয়ার্কের প্রয়োজনীয়তা হল তথ্য এবং তথ্যসমূহের সংগ্রহ এবং ভাগ করা। কিন্তু সতর্কতার কথা হল যে নেটওয়ার্ক যখন হ্যাকারদের হাতে পড়ে তখন তারা অপরকীয় তথ্যের লক্ষ্য হয়ে উন্নয়ন করতে পারেন। সঠিক সিকিউরিটি প্রদান না করলে নেটওয়ার্ক ব্যবহারে কিছু সমস্যার সম্মুখীন হওয়া সম্ভব।

নেটওয়ার্ক কি?

একটি নেটওয়ার্ক কি জ্ঞাত আছে? এটি একটি স্থান যা সমস্ত কম্পিউটার এবং অন্যান্য ডিভাইস একত্রিত করে একটি সামান্য পরিসরের মতো। নেটওয়ার্কগুলি বিভিন্ন ধরণের ডিভাইসগুলি ইউনিফাইড করে থাকে যা উদাহরণস্বরূপ কম্পিউটার, ফোন, রাউটার, স্যাটেলাইট ইত্যাদি। একটি নেটওয়ার্ক কে আবদ্ধ করা হয় ডাটা শেয়ার করতে এবং কম্পিউটার অন্যান্য সংযোগিত ডিভাইসের মধ্যে তার ব্যবহার করার জন্য। কম্পিউটার নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ওয়েবসাইট, ইমেইল, ফাইল শেয়ারিং এবং ডাউনলোড করার জন্য এক সার্ভারের সাথে সংযুক্ত হয়।

নেটওয়ার্ক কেন্দ্রিক একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কাজ করতে পারে বা অ্যাডহক মুলত নেটওয়ার্ক পরিচালনা এবং সরঞ্জাম পরিবর্তন করতে পারে যা অফিস বা সংস্থার জন্য উপযোগী হয়।

নেটওয়ার্ক থাকলে ক্যাবল ছাড়াই একটি কম্পিউটার থেকে অন্যটি কম্পিউটারে তথা ইন্টারনেটে ডাটা পাঠানো সম্ভব

নেটওয়ার্ক হলো একটি একত্রিত সিস্টেম যা কম্পিউটারগুলোকে একসঙ্গে সংযোজিত করে পথের মাধ্যমে তথা উইফাই, ব্লুটুথ বা হার্ডওয়্যার যান্ত্রিক সংযোগে সম্প্রসারিত হয়। একটি নেটওয়ার্ক লোকাল শ্যুটার্মে সেট করা যেতে পারে যা অনেকগুলো কম্পিউটারে একসাথে সংযোগ পাওয়া যায়। নেটওয়ার্ক সংযোগের মাধ্যমে একটি কম্পিউটার থেকে অন্যটি কম্পিউটারে তথা ইন্টারনেটে ডাটা পাঠানো হয়। এটি কেবল একটি কাবল ছাড়াইও সম্ভব।

নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে কম্পিউটারে নতুন সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা সম্ভব যেমন সার্ভার পার্কিং, শেয়ারিং ডেটা, প্রিন্টার শেয়ারিং, ফাইল ট্রান্সফার এবং অন্যান্য মুলতবি সুবিধা প্রদান করতে পারে। নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে আমরা দিনের বেশিরভাগ কাজ করতে পারি। সাথে সাথে আমরা আরও দেখব যে এটি ব্যবহারকারীদের মধ্যে সমস্যা হ্রাস করে।

নেটওয়ার্ক ধরে রাখা ভাল কাজে লিখার জন্য পুরো দুনিয়ার যে কোনো একটি কম্পিউটার দিয়েই মূল ডাটা দিয়ে সেটি একসাথে ব্যবহৃত হতে পারে

নেটওয়ার্ক হলো এমন একটি সিস্টেম, যেখানে বিভিন্ন কম্পিউটারের মধ্যে ডাটা একসাথে প্রেরণ ও প্রাপ্তি সম্পন্ন হয়। একটি নেটওয়ার্ক একটি কম্পিউটারের মধ্যে ডাটা প্রেরণ করে তারপর এটি অন্য কম্পিউটারে পাঠানো হয়। এই পদক্ষেপটি আবার অন্য কম্পিউটার সার্ভার হিসেবে এই ডাটা গ্রহণ করে। একটি নেটওয়ার্ক একটি কম্পিউটার এর মাধ্যমে সহজেই স্থাপিত হয় এবং সেটি একই কাজটি একসাথে করতে পারে যেখানে প্রতিটি সিস্টেম আলাদা হবে না।

এমনকি নেটওয়ার্ক ধরে রাখা যাবে সহজেই পুরো দুনিয়ার যে কোনো একটি কম্পিউটার দিয়েই মূল ডাটা দিয়ে সেটি একসাথে ব্যবহৃত হতে পারে। একটি নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে এই ডাটা পাঠানোর জন্য একটি কম্পিউটার হতে পারে বা একটি বিশাল নেটওয়ার্ক হতে পারে। একটি নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে সার্ভার কম্পিউটার কে সংযোজন করা হয় যা নেটওয়ার্কের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। একটি নেটওয়ার্কে বিভিন্ন ধরনের ডাটা সহজেই পাঠানো যায় যেমন ভিডিও, ছবি এবং অডিও।

সর্বশেষ, নেটওয়ার্ক একটি গুরুত্বপূর্ণ টুল যা সম্পূর্ণ বিশ্বব্যাপী একটি সিস্টেম হিসেবে কাজ করে। এটি ভারবহন করতে সহজ এবং প্রতিটি কম্পিউটার সমস্ত তথ্য একসাথে সংগ্রহ করতে পারে। একটি নেটওয়ার্ক সম্পূর্ণ কার্যকর বন্ধু এবং সহযোগী হিসেবে কাজ করতে পারে এবং একটি নেটওয়ার্ক ছাড়াও প্রভাবশালী কোনো কম্পিউটার চালানো না মানে কিছুই করা যাবে না।

নেটওয়ার্কের প্রকারভেদ

নেটওয়ার্ক একটি ব্যবস্থা যা কম্পিউটার এবং অন্যান্য উপসর্গের মাধ্যমে আলাপ করতে সক্ষম করে। এটি বিভিন্ন প্রকারে উপস্থিত হতে পারে যেমন লোকাল এলিভেটর নেটওয়ার্ক, ওয়াইড এলিভেটর নেটওয়ার্ক এবং ম্যান ওয়ান নেটওয়ার্ক। লোকাল এলিভেটর নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারীদের মধ্যে উচ্চ গতির নেটওয়ার্ক। এটি একটি কম্পিউটার নেটওয়ার্ক যা একটি প্রতিষ্ঠানে অন্তর্ভুক্ত।

অন্যদিকে ওয়াইড এলিভেটর নেটওয়ার্ক কোম্পানিসহ একটি নেটওয়ার্ক কোনো স্থান থেকে অন্য স্থানে তথা দেশের বিভিন্ন অংশে সংযুক্ত করতে সক্ষম। আর ম্যান ওয়ান নেটওয়ার্ক একটি নেটওয়ার্ক যা কম্পিউটার এবং অন্যান্য উপসর্গগুলি দ্বারা সংযুক্ত করে একটি নেটওয়ার্ক। ম্যান ওয়ান নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারীদের মধ্যে সর্বোচ্চ সংযোগ নিশ্চিত করে। এটি ডাটা শেয়ার করতে ব্যবহৃত হয়।

চলবে নাকি!

লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্ক (LAN)

নেটওয়ার্কের একটি প্রকার হল লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্ক (LAN)। এটি একটি ছোট পরিসরের মধ্যে স্থাপিত হয়, যেখানে সমস্ত ডিভাইস একটি কেন্দ্রীয় নোড (সুইচ বা হাব) থেকে সংযুক্ত থাকে। এখানে ডিভাইস গুলি পরস্পর সংযোগের মাধ্যমে তথ্য মুদ্রণ করে এবং আপস এবং সফ্টওয়্যার ভাগ করে একটি সাধারণ ফাইল সার্ভার থেকে তথ্য অ্যাক্সেস করা যায়। এটি সাধারণত একটি কার্যালয়, বিদ্যালয় বা ঘরের জন্য ব্যবহৃত হয়, এটি সাধারণত কম সংখ্যক ব্যবহারকারীকে কভার করে এবং একটি নেটওয়ার্কে তাদের সমস্যাগুলি নিজেদের মধ্যে নিষ্ক্রিয় করার মতো সহজ উপায় সরবরাহ করে।

See also  ওয়াই-ফাই (Wi-Fi) সিগন্যালের শক্তি বাড়ানোর কৌশল।

এটি একটি স্থায়ী নেটওয়ার্ক হয় এবং থাকলে নেটওয়ার্ক এবং কম্পিউটারের সম্পর্ক স্নাতক ফ্লো এর মধ্যে কেন্দ্রীয় নোড ব্যবহার করে সুগঠিত করার দরকার নেই।

ওয়াইড এরিয়া নেটওয়ার্ক (WAN)

নেটওয়ার্ক হল একধরনের সংযোগ যা দুই বা একাধিক সংস্থা, সিস্টেম বা কম্পিউটার কে একসাথে সংযুক্ত করে রাখে। WAN এমন একটি নেটওয়ার্ক যা বস্তুগুলো এক দূরবর্তী এলাকা থেকে অন্য দূরবর্তী এলাকা তে পাঠানো যায়। একটি WAN একটি সম্পূর্ণ বিশাল এলাকাতে তৈরি হয় এবং এর মধ্যে বিচ্ছিন্ন যাতায়াত ব্যবস্থা রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, আমাদের একটি টেলিফোন কম্পানির দেশের বাইরের একটি শাখা আছে।

যখন আমরা এই শাখায় ফোন করি, তখন আমাদের ভুলকে অন্য শাখায় পাঠানো হয় এবং সার্ভারে রাখার সময় তা আমাদের শাখায় ফিরে এসে পুনরায় সঠিকভাবে পাঠানো হয়। একটি প্রচলিত উদাহরণ অনেক দূরবর্তী এলাকার মধ্যে তথ্য পাঠানো হয় যা পুনর্বিন্যাস হতে পারে। সুতরাং, WAN আকারে অনেকটা একটি বড় নেটওয়ার্ক হতে পারে যা বিবিধ স্থানে একত্রিত করে। “

মেট্রোপলিটান এরিয়া নেটওয়ার্ক (MAN)

নেটওয়ার্ক সম্পর্কে কথা বলা যাক। নেটওয়ার্ক হল কম্পিউটার, ডিভাইস এবং আরও অনেক মানুষের যোগাযোগের পদ্ধতি। এটি একটি অনেকটা বিশাল নেটওয়ার্ক হতে পারে যা বিশাল উচ্চতা এবং দূরত্বদর্শকতা হিসাবে দেখা হয়। মেট্রোপলিটান এরিয়া নেটওয়ার্ক (MAN) হল এমন একটি নেটওয়ার্ক যা শহর বা শহরস্থলের বিশিষ্ট একটি এলাকাতে মোটামুটি ফোকাস করে।

এটি বিভিন্ন সংস্থার উপযোগী হতে পারে যেমন ব্যবসা, মেডিকেল এবং সরকার সংস্থা। এই নেটওয়ার্ক সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় প্রতিষ্ঠানিক ক্ষেত্রে যেখানে ঘনত্ব সম্পন্ন হয়। মেট্রোপলিটান এরিয়া নেটওয়ার্ক সাধারণত শহরের সিভিল এ্যারিয়ার বেশিরভাগ এলাকা কাভার করে। এই তথ্য গুলি সবকিছুই সম্পর্কিত হওয়াতে নিশ্চিত হওয়া দরকার।

এতে জানা যায় এটি একটি বৃহত্তম ও ব্যবহৃত হতে পারে যা একটি শহর বা একটি শহরস্থলে স্থাপিত সংস্থার জন্য উপযোগী হতে পারে।

হোম অফিস নেটওয়ার্ক (HAN)

হোম অফিস নেটওয়ার্ক (HAN) হল এমন একটি সিস্টেম যেখানে একটি নেটওয়ার্ক ওয়ানে অনেকগুলি হোম অফিস কাজের জন্য ইউজ করা হয়। নেটওয়ার্কের প্রকারভেদ হল লোকাল অরিজিন নেটওয়ার্ক (LAN) এবং ওয়াইড এরিয়া নেটওয়ার্ক (WAN)। LAN একটি নেটওয়ার্ক সিস্টেম যা নির্দিষ্ট একটি স্থানের ভিতর থাকে যেমন একটি অফিসে বা ঘরে নেটওয়ার্ক সেট আপ করার জন্য ব্যবহৃত হয়। WAN একটি নেটওয়ার্ক সিস্টেম যা লক্ষ্য করে বিশাল একটি অঞ্চলের ভিতর সাধারণত বেশ কিছু স্থানে স্থাপিত হয় যেমন একটি দেশে বা বিশ্বজুড়ে একটি নেটওয়ার্ক সেট আপ করার জন্য।

হোম অফিস নেটওয়ার্ক অনেক ব্যবহৃত হয়, একজন ব্যবহারকারী একটি সেন্ট্রালাইজড নেটওয়ার্ক থেকে তার সমস্ত কাজকর্ম সম্পাদন করতে পারে একবারে নিজের কম্পিউটার বা অন্য কেউকে রিমোটলি কংগ করে। আশা করি এই নেটওয়ার্কের প্রকারভেদ বুঝতে সমস্যা হবে না।

পাবলিক নেটওয়ার্ক

একটি নেটওয়ার্ক হলো একটি সংস্থা যা বিভিন্ন কম্পিউটারে বসবাস করে একটি সর্বজনীন স্থান সৃষ্টি করে। এই সংস্থাটি কম্পিউটার এবং অন্যান্য মার্গসমূহের মাধ্যমে সম্প্রচার হয়। একটি পাবলিক নেটওয়ার্ক হলো এমন একটি নেটওয়ার্ক যা সর্বজনীন হয়ে থাকে। এটি সাধারণত ইন্টারনেট বলে পরিচিত।

এই নেটওয়ার্কটি প্রত্যেকের ব্যবহারের জন্য উন্নয়নশীল এবং মূল্যবান। এটি ব্যবহারকারীদেরকে আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে তাদের স্বত্বের ব্যবস্থা নিশ্চিত করে এবং সেই সমস্ত তথ্য একটি হালকা উচ্চতায় সংগ্রহ করে। যেমন ইনফরমেশন সার্ভিস এবং ইমেল সংক্রান্ত সামগ্রী পাঠানো জায়গা গুরুত্বপূর্ণ পাবলিক নেটওয়ার্কের উদাহরণ। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা একটি সাধারণ ইমেল অ্যাড্রেস লিখে ইমেল পাঠাতে পারেন এবং দূরবর্তী এলাকায় থাকা ব্যবহারকারীদের সাথে সম্পর্ক মোটামোটি সম্ভব হয়।

একইভাবে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার, এবং ইউটিউব সম্মত সার্ভিসগুলি পাবলিক নেটওয়ার্কে প্রদর্শিত হয়।

নেটওয়ার্কের প্রয়োজনীয়তা

নেটওয়ার্ক হল আধুনিক সময়ের অন্যতম প্রথম ও প্রাথমিক প্রয়োজন। এখন সমস্তকিছু নেটওয়ার্কের উপর নির্ভর করে এবং নেটওয়ার্ক ব্যবসায় এবং আইটি সেক্টরে প্রচলিত সকল সেবাকে বিন্যাস করে। এখানে নেটওয়ার্ক এমন একটি প্রয়োজনীয় পাঠ্যক্রম যা কোনও আইটি কাজে সমস্যার সমাধান করতে সাহায্য করে। এখানে ডাটা ও তথ্য আমরা জমা করতে একটি নেটওয়ার্ক ব্যবসায় করে আমরা সবাই চাই যে হার্ডওয়্যারে খরচ কমায়।

আমরা নেটওয়ার্ক এমনভাবে উন্নয়ন করতে পারি যেন আপনার ক্লায়েন্ট আপনাকে সমর্থন দিতে না পারলেও আপনি তাদের পাশাপাশি শুধু দারুণ হেল্পডেস্কের মাধ্যমে উত্তর দিতে পারো।এর আলোকে আমরা বলতে পারি নেটওয়ার্ক একটি জীবনী নেকড়ে যাত্রা করছে, যা আমাদের জীবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দিক।

ডাটা স্টোর এবং সংগ্রহশীলতা বৃদ্ধি

নেটওয়ার্কের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে আন্তরিক ঘটনা পরিমাপ করলে, আমরা দেখতে পাই যে এটি একটি সাধারণ জিনিস না। আজকের সময়ে আমরা অনেক দিন পুরনো সমস্যার সমাধানে নেটওয়ার্কগুলি ব্যবহার করতে হয়। এই ব্যবস্থাগুলি সমস্যা সমাধান আমাদের সুবিধা প্রদান করে, এবং আমরা এই সুবিধাগুলির জন্য অসংখ্য আঙ্গুল কাজ করছি। তবে এই সুবিধা খুবই মজার হিসাবে উৎপন্ন সমস্যাগুলি একসাথে নতুন সমস্যার সৃষ্টি করছে যা একই সমস্যার মতো সম্পর্কিত।

তাই, স্থায়ী সমাধানের জন্য আমরা নেটওয়ার্ক সংগ্রহশীলতা এবং ডাটা স্টোর বৃদ্ধি এর মত প্রয়োজনীয় বিষয়গুলি উন্নয়ন করা প্রয়োজন। এই বিষয়গুলি না করলে, নেটওয়ার্ক সৃষ্টির জন্য সৃষ্টিমূলক সমস্যাগুলির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ উচ্ছেদের সম্মুখীন হব। তাই, নেটওয়ার্ক সংগ্রহশীলতা এবং ডাটা স্টোর উন্নয়নের প্রয়োজনীয়তা দ্বিতীয় উপায়ে পরিবর্তন নেওয়া হলে আমরা জটিল সমস্যা সমাধান এর মধ্যে আগে চলে যাবো এবং নতুন সমস্যা সৃষ্টি বাধা দিতে পারবো।

See also  মাইক্রোওয়েভ (Microwave) কি? মাইক্রোওয়েভের বৈশিষ্ট্য

একটি সঙ্গে বেশি কম্পিউটারের মধ্যে ডাটা পাঠানো যাবে সেটির ফলে কাজের দক্ষতা বাড়বে

নেটওয়ার্কের প্রয়োজনীয়তা এখন দিন দিন বাড়ছে। বিভিন্ন কাজের জন্য নেটওয়ার্ক প্রয়োজন হয় এবং নেটওয়ার্ক না থাকলে একটি অলস বা মৌলম পদক্ষেপ নেওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। আজকাল প্রায় সবচেয়ে বড় কম্পানি থেকে শুরু করে ছোট ব্যবসায় একটি ভালো নেটওয়ার্ক প্রয়োজন হয়। একটি ভালো নেটওয়ার্কের মাধ্যমে একটি সঙ্গে বেশি কম্পিউটারের মধ্যে ডাটা পাঠানো যাবে এবং এর ইফেক্ট পার্থক্যটি অনেক খারাপ এর চেয়ে অনেক ভালো হবে।

যেমন একটি স্বীকৃতির সুষ্ঠুতা পরীক্ষা ঒কে বেশির মধ্যেই করে নেওয়া হয় তাতে কাজে দক্ষতা বাড়বে। আরোপড়ুন…

ইন্টার্নেটের মাধ্যমে একটি রিমোট কম্পিউটার বা সার্ভারে সংযোগ গড়ে তোলা যাবে

নেটওয়ার্কের প্রয়োজনীয়তা আমাদের সম্পর্কে শিখতে অনেক কিছু রয়েছে। এখন আমরা আমাদের কাজ ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য নিরাপদভাবে স্থানান্তর করতে পারি ইন্টারনেটের মাধ্যমে সহজেই। নেটওয়ার্ক কাজ করতে সুবিধাজনক ও সার্বজনীন হয়ে থাকা সম্ভব করে দেয়। একটি রিমোট কম্পিউটার বা সার্ভারে সংযোগ গড়ে তোলা খুব সহজ এবং নিরাপদ সম্ভব।

সাধারণত এর জন্য একটি সংযোগের প্রয়োজন হয়। এইসব সমস্যার কারণে নেটওয়ার্ক এবং কম্পিউটার এখন ব্যবহারকারীদের জন্য অসংখ্য উপকারক। তাছাড়া, একটি ভুল সমাধান করার জন্য একটি নেটওয়ার্ক সম্পর্কিত প্রশিক্ষণ গ্রহণ করা প্রয়োজনীয়। স্থানান্তর এবং কম্পিউটার সংযোগগুলি সঠিকভাবে পরিচালনা করলে আমরা নেটওয়ার্ক ব্যবহার করতে সমস্যা প্রতিবার খুব খারাপ লাগবে না।

সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যারকে সমন্বয় করা যাবে

নেটওয়ার্ক একটি গুরুত্বপূর্ণ পার্টি যা আপনার ব্যবসায় একটি মহান দিক দেয়। কোম্পানিসমূহ ব্যবহারকারীদের ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়ার ব্যবস্থা করে এবং এটি নেটওয়ার্কের মাধ্যমে তাদের পণ্য বিক্রয় করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ সম্ভাবনা সৃষ্টি করে। এর জন্য সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার দুটি গুরুত্বপূর্ণ এলিমেন্ট যা সমন্বয় করে এন্টারপ্রাইজ নেটওয়ার্কিং জন্য একটি সুন্দর একটি পার্থক্য সৃষ্টি করে। সংগঠনগুলির নিজস্ব নেটওয়ার্ক সংস্থানে আছে, তবে হ্যাঁড্রয়েটিং করা এটি কার্যকর এবং স্কেলাবল নেটওয়ার্কিং সম্পন্ন করে সমস্ত দক্ষতা একমত করে।

একটি সফটওয়্যার উন্নয়নের সাথে সাথে হার্ডওয়্যারের উন্নয়ন এবং বিনিময় যুক্ত করা উচিত। কাজটির সাধারণত সংশ্লিষ্টকারী অভিজাত অংশগুলি সমন্বয় করার চেষ্টা করা হচ্ছে যা একটি নেটওয়ার্ক প্রতিষ্ঠানকে একটি বেশি আনজেনেই একটি সামঞ্জস্যপূর্ণ এবং স্বচ্ছ নেটওয়ার্ক প্রদান করতে সক্ষম হয়।

নেটওয়ার্কের অসুবিধা

আধুনিক প্রযুক্তি এবং নেটওয়ার্কের উন্নয়নে এগিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে টেকনোলজির অসুবিধাও বেড়ে যাচ্ছে। নেটওয়ার্কের অসুবিধাগুলি বিভিন্ন ধরণের হতে পারে, যেমন সিগন্যাল সমস্যা, ব্যান্ডউইথ সমস্যা, চার্জিং সমস্যা এবং প্রোটোকল সমস্যা। এই ধরণের অসুবিধাগুলি নেটওয়ার্ক ব্যবস্থাপকের কাছে প্রধান সমস্যা হিসাবে পরিমাণগত উপস্থাপিত হয়। এর জন্য নেটওয়ার্কের ভুল বিশ্লেষণ এবং উপস্থাপন করা উচিত।

আর সেক্ষেত্রে এন্টারপ্রাইজ গ্রেড সফ্টওয়্যারের সাহায্য নেওয়া একটি পদক্ষেপ হতে পারে। আর আমরা কিছু চাকরিদাতাদের সাথে প্রযুক্তি বিষয়ক ব্যবস্থাপণার উপর আরও বিষয়বস্তু আলোচনা করবো।

সাইবার অপরাধে মোটামুটি সন্দেহভাজন

সাইবার অপরাধ প্রতি দিনের জীবনে আরও বেড়ে উঠছে। আধুনিক প্রযুক্তির এই যুগে হ্যাকাররা নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারীদের গোপনীয় তথ্য চুড়ি নেওয়ার চেষ্টা করে থাকে। এটি বিভিন্ন কারণে ঘটে। একটি কারণ হল শক্তিশালী নেটওয়ার্ক সার্ভার হ্যাক করা।

অন্যটি হল জনসাধারণের অন্তর্ভুক্তি এবং নেটওয়ার্ক সম্পর্কিত কম্পিউটার স্যাম্প্লিং এর মধ্যে নিজেদের স্থানান্তর করা। এতে হ্যাকাররা স্বল্প সময়ে অনেক গোপনীয় তথ্য নেওয়ার পারে। আমাদের নেটওয়ার্ক ব্যবহারের সময় আমাদের সম্মানিত তথ্য রক্ষা করতে হলে আমরা অগ্রগতি এবং সম্ভাব্য সমস্যার সাথে পরিচিত থাকতে হব। এই সমস্যাগুলি সমাধান করতে আমরা নেটওয়ার্ক প্রটেকশন উপকরণ ব্যবহার করতে পারি এবং শর্তগুলি পালন করতে হবে যা নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারীদের অনুসরণ করতে হবে।

সুরক্ষার জন্য, আমরা নেটওয়ার্ক স্যাম্প্লিং সীমার বাইরে ফাইরওয়াল সেটিংস অংশগ্রহণ করতে পারি।।

যখন নেটওয়ার্ক ডাউন হয় তখন কাজ বন্ধ হয়ে যায়

নেটওয়ার্ক একটি সামান্য অসুবিধা মাত্র নয়, বরং এটি আধুনিক জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এটি হ্যাঁ, আপনার দৈনন্দিন পরিস্থিতির জন্য দরকারী হয়। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে নেটওয়ার্কে অসুবিধার কারণে কাজ বন্ধ হয়ে যায় এবং সেটি আপনাকে আপনার কাজের অস্তিত্ব হানি করতে পারে। সাধারণত, নেটওয়ার্ক ডাউন থাকার কারণে ইন্টারনেটে যাওয়া, ফাইল ডাউনলোড বা আপলোড করা, মেইল পাঠানো এবং স্কাইপ ফোন করা সম্ভব হয় না।

আপনি আপনার প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন কিংবা নিজের ব্যক্তিগত কাজে নিজেকে তুলে ধরছেন, নেটওয়ার্ক সমস্যার সম্মুখীন হলে সেটি আপনাকে নিরাপদে রাখতে পারে না। একটি ভদ্র এবং বিশ্বস্ত নেটওয়ার্ক প্রদাতার সাথে কাজ করতে হবে যাতে আপনি অসুস্থতা থেকে পালিত হতে পারেন।

হ্যাকারদের হাতে পড়ে ডাটা হারিয়ে যেতে পারে

আজকাল যে সব ওয়েবসাইট থাকে সেগুলোতে রক্ষার জন্য অনেক ধরনের কম্পানির তথ্য স্টোর থাকে। কিন্তু হ্যাকারদের হাতে পড়তে পারে এই তথ্যগুলো। হ্যাকাররাও অনেক প্রকারের সফটওয়ার ব্যবহার করে নেটওয়ার্ক নিয়ন্ত্রন করতে পারে, যা সেটাও ভুলে যাবে না যেখানে তথ্য সংরক্ষিত থাকে। এই ছোট্ট একটি ধরনের সুবিধা নেটওয়ার্ক নিয়ন্ত্রণে হ্যাকারদের হাতে পড়তে পারে এমন সম্ভাবনা আছে।

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে নেটওয়ার্ক সিকিউরিটি নিয়ে একটি জ্ঞান-অর্জন এবং স্বচ্ছ সচেতনতা প্রচার করা প্রয়োজন। এছাড়া কম্পানীগুলোর তথ্য স্টোর করা সেভারসমূহ যথেষ্ট সুরক্ষিত হতে হবে। তাই নেটওয়ার্ক সিকিউরিটি নিয়ে কর্মকর্তাদের সচেতন হতে হবে এবং সকল সুবিধার ভিত্তিতে এই তথ্য সংরক্ষিত থাকতে হবে।

Leave a Comment