বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার ভাইরাস সম্পর্কে জেনে নিন

কম্পিউটার ভাইরাস কী জানেন? এই বিষয়ে দুর্দান্ত কিছু জিনিস জানা জরুরি, কারন সবার কম্পিউটার ব্যবহার করা এখন একটি দৈনন্দিন কাজ। কম্পিউটার ভাইরাস হল একটি একটি ধরণের কম্পিউটার প্রোগ্রাম যা সঠিক কাজ করতে না পারে এবং এর দ্বারা ইউজারের ডেটা, সিস্টেম এবং ফাইলসহ সমস্ত কম্পিউটার কন্টেন্টগুলি হ্যাক করা যেতে পারে। বর্তমানে আমরা যেমন কম্পিউটারের উপভোগ করছি সেখানেও ভাইরাস হ্যাকাররা আঁকড়ে আঁকড়ে দায়িত্ব নেন এবং ইউজারদের ব্যবসায়িক ফাইলগুলি ধর্ষণ করে। কিন্তু এখানে একটি মজার বিষয় হল এটি একটি সমাধানযোগ্য সমস্যা।

ইন্টারনেটের জন্য ভাইরাসগুলির কয়েকটি ধরণ রয়েছে যা আপনার কম্পিউটারে প্রবেশ করা এবং স্থায়ীভাবে ধর্ষণ করা যেতে পারে। সিস্টেম ক্র্যাশ, কুচকাওয়া, রিপিট করা, সেন্সিটিভ ডেটা ধ্বংস হল একটি কম্পিউটার ভাইরাস সমস্যার অন্তর্ভুক্ত। আমরা ভাইরাস দ্বারা আপনার কম্পিউটারের সুরক্ষা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেয়ার চেষ্টা করছি। যদি আপনি কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আপনি আপনার কম্পিউটারের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পড়বেন।

কম্পিউটার ভাইরাস কি?

কম্পিউটার ভাইরাস একটি কারবারক সফটওয়্যার এরকম একটি প্রোগ্রাম যা একটি নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদন করতে সক্ষম হয়। কিন্তু এটি কম্পিউটারে স্থাপিত হওয়ার মাধ্যমে এক্সেস সম্ভব না থাকলেও ডাউনলোডকৃত ফাইল বা ইন্টারনেট থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইনফেক্ট হয়ে কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। ভাইরাস প্রতিষ্ঠানের প্যানেলে এরকম সফটওয়্যার তৈরি এবং তিনি এবং আগামীদের জন্য বিভিন্ন উপায় তৈরি করতে চেষ্টা করেন। এই ধরনের সফটওয়্যার কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের স্নায়ুক্ত করে এবং ঘনিষ্ঠ তথ্যপ্রদান দিয়ে তাদের কম্পিউটার বা স্মার্টফোন এক্সেস করতে সক্ষম হয়।

এই কারণে বিভিন্ন ডাটা পরিসরে আরও সুরক্ষিত হতে হবে।

কম্পিউটার ভাইরাস কি?

কম্পিউটার ভাইরাস বা কম্পিউটার সংক্রমণকারী ভাইরাস হলো একধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম যা আপনার কম্পিউটারে অনিচ্ছাকৃতভাবে এন্ট্রি করে এবং আপনার কম্পিউটারে অবস্থানকালের ব্যবহারের সময় তখন আপনার সল্পস্ব তথ্যগুলি সংগ্রহ করে অথবা সিস্টেমটি অনস্বাভাবিকভাবে পরিচালিত করে। কম্পিউটার ভাইরাস সাধারণত অনিচ্ছাকৃত সংগ্রহ বা প্রেরণ বা অপসারণ কাজ করতে পারে যা যে কোনও কম্পিউটার প্রোগ্রামের কাজ নয়। এদের অনেকটি দুর্বল হতে পারে এবং আপনার কম্পিউটার সিস্টেমে অশান্তি উত্পন্ন করতে পারে। আপনি একটি খুব উন্নতশীল অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম ইনস্টল করে নিয়ন্ত্রণ করে চলতে পারেন।

যে কোনও কম্পিউটার ভাইরাসের জন্য টিপস দিতে চাইলে, আমরা সাধারণত আপনাদের বহুল উপকার করব।

কম্পিউটার ভাইরাসের ধরন

কম্পিউটার ভাইরাস হলো একধরণের কম্পিউটার সফটওয়্যার যা আপনার কম্পিউটারে বসে থাকে ও আপনার কম্পিউটারের উপর নিয়ন্ত্রণ নেয় বিনা আপনার অনুমতি নেওয়ায়। কম্পিউটার ভাইরাসের কিছু ধরন হলো ট্রোজান, ওয়ার্ম, স্পাইওয়্যার, রুটকিট ইত্যাদি। ট্রোজান হলো একধরনের ভাইরাস যা কম্পিউটারের জন্য বিভিন্ন এবং অস্বয়ংক্রিয় কাজ করে তারপর তা নির্দষ্টভাবে নিয়ন্ত্রণ নেওয়া যায়। ওয়ার্ম হলো একধরনের ভাইরাস যা আপনার কম্পিউটারের তথ্য ও ডাটা নিজে নিজে মুছে ফেলে দেয়।

স্পাইওয়্যার হলো একধরনের ভাইরাস যা আপনার কম্পিউটারের সকল কাজের বিস্তারিত জানতে পারে। রুটকিট হলো সকল ধরনের কম্পিউটার ভাইরাসের সংগ্রহশালা এবং এটি কম্পিউটারে সেট করে রাখে যাতে অন্য যেকোনো ভাইরাস চলার সময় রুটকিট তা নির্দষ্ট ভাবে লক করে দেয়। সকল কম্পিউটার ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকার জন্য আমরা অবশ্যই কম্পিউটারের সফটওয়্যার আপডেট করতে হবে ও অন্য নিরাপদ উপায় নিতে হবে।

কম্পিউটার ভাইরাস মানে কি?

কম্পিউটার ভাইরাস হল কম্পিউটার সিস্টেমের মধ্যে প্রবেশ করে তার কাজ ক্ষমতা হ্রাস করে বা তথ্য চুরি বা ধ্বংস করে যায়। ব্যাপারটিকে সহজে বুঝা যায় যে একটি ভাইরাস কম্পিউটারে রাখতে ব্যবহৃতমান ফাইলগুলির মধ্যে তার কোড লিপিবদ্ধ থাকে। এর ফলে যখন কম্পিউটার ফাইলটির মধ্যে প্রবেশ করে তখন সেটি ভাইরাসের কাজ শুরু করে দেয়। কম্পিউটার ভাইরাস বেশ কিছু প্রকার হতে পারে যেমন – ট্রোজান, মালওয়্যার, এডওয়্যার, স্পাইওয়্যার ইত্যাদি।

তবে সেগুলো সবসময় কম্পিউটার ভাইরাস নয়। কম্পিউটারের নিরাপত্তার কারনে ভাইরাস নির্মাতারা সেটির নাম পরিবর্তন করতে থাকে। সেই কারণেই কম্পিউটার প্রদানকারী বিভিন্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে একাধিক ধরনের ভাইরাস ডিটেক্ট করা যায় এবং উপস্থিতি নির্ধারণ করে আবার বর্জন করা যায়।

বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার ভাইরাস

কম্পিউটার ভাইরাস একটি প্রোগ্রাম যা একটি কম্পিউটারের কাছে অনুরোধ করে নির্দিষ্ট কাজগুলি পরিচালনা করার জন্য তৈরি হয়। এই প্রোগ্রামগুলি বিভিন্ন ধরনের হতে পারে – কয়েকটি প্রকারের ভাইরাস আছে যা অন্যান্যদের থেকে ভিন্ন থাকে। উদাহরণস্বরূপ, একটি ট্রোজান হার্স ভাইরাস ব্যবহারকারীর কম্পিউটারে প্রবেশ করে এবং একটি হিডেন প্রোগ্রাম লঞ্চ করে যা ব্যবহারকারীর সম্পূর্ণ কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণে রাখে। আরেকটি ধরনের ভাইরাস হলো ওয়ার্ম, যা স্বতস্ফুর্তভাবে প্রতিবেদন করা উপকরণ দিয়ে সার্বিক নেটওয়ার্ক অতিরিক্ত লোড হলে স্যস্টেমকে খারাপকরে দিতে পারে।

এছাড়াও রোগানুকূল (ম্যালওয়্যার) প্রোগ্রামগুলি সম্প্রতি প্রচলিত হচ্ছে যা কম্পিউটারের সেন্সিটিভ তথ্য চুরি করতে পারে এবং হ্যাকার সেন্সিটিভ ফাইলগুলি এক্সফিল্ট্রেশনের জন্য ব্যবহার করতে পারে। আপনাকে স্বাস্থ্যভিত্তিক কম্পিউটার ব্যবহার করার জন্য সর্বদা সতর্ক থাকতে হবে।

See also  ডিজিটাল কম্পিউটার: বৈশিষ্ট্য এবং কাজকর্ম

ওয়ার্ম

ডিজিটাল বিশ্বে পৃথিবীর সকল ক্ষেত্রে কম্পিউটার ব্যবহার একটি প্রয়োজন। কিন্তু কম্পিউটার ব্যবহার করলে কম্পিউটার ভাইরাস থেকে সমস্যা হতে পারে। কম্পিউটার ভাইরাস হলো কম্পিউটারের সিস্টেমে আক্রান্ত করণীয় অসদ্ভুত একটি সফটওয়্যার। এটি অফলাইন অথবা অনলাইন দুই ভাবে হতে পারে।

বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার ভাইরাস আছে, যেমন প্রেসকম্প, ট্রোজান, ওয়র্ম ইত্যাদি। ওয়ার্ম বেশ বাংলাদেশে কম্পিউটার ভাইরাসের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এটি প্রধানতঃ রিমোট্য় অ্যাক্সেস ট্রোজান। যখন আপনার পিসি অধিগ্রহণ করা হয়, ট্রোজানটি সেটি উপলভ্য হয় এবং হোম নেটওয়ার্ক এক্সেস দেওয়া হয়।

সেই সাথে, ওয়ার্ম অভিজ্ঞতা চালিয়ে গেছে নেটওয়ার্কিং সেটিংস পরিবর্তন করে এবং স্থানীয় নেটওয়ার্কে যুক্ত যন্ত্রগুলির সাথে সংস্পর্শ স্থাপন করে। সর্বনিম্ন একটি এন্টিভাইরাস ইনস্টল করা থাকলেও এর সম্ভাবনা বেশি। ওয়ার্ম যখন একবার আক্রমণ করে, সেই যন্ত্রের উপর সততা থাকলেও এর সমস্যাগুলি বাড়তে থাকে। তাই, সবসময় কম্পিউটারের বৈশিষ্ট্যগুলি অব্যহত রাখার জন্য সঠিক এন্টিভাইরাস ইনস্টল করা প্রয়োজন।

ট্রোজান

কম্পিউটার ভাইরাস হলো কম্পিউটার প্রণালীতে বাধা উত্পন্ন করার সম্ভাবনা রক্ষা করে নেতি থেকে তৈরি সফটওয়্যার। এর মধ্যে ট্রোজান নামক কিছু ভাইরাস আছে যা কম্পিউটার প্রণালীতে প্রবেশ করে মেশিনের নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তা ক্ষতিগ্রস্ত করে। এই ভাইরাস মেশিনে প্রবেশ করার পরে একটি ট্রোজান হিসেবে কাজ করে। তাই ট্রোজান সফটওয়্যার হলো একটি খুব ক্ষতিকর ভাইরাস যা কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেমের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হতে পারে।

কম্পিউটার ভাইরাসের একটি কারণ হতে পারে প্রবেশদ্বার হিসেবে ভাইরাস সহজেই ইন্সটল হওয়া। একটি অসতর্কতার কারনে একটি টিকটিকি ফাইল বা ডিস্ক থেকে একটি ভাইরাস প্রবেশ করতে পারে এবং মেশিনে আরও বেশি কম্পিউটার ভাইরাস সহজেই প্রবেশ করতে পারে।”

মালওয়্যার

বিষয়টি সম্পর্কে একটি সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিলে বলা যায় যে কম্পিউটার বিভিন্ন ধরনের মালওয়্যার একটি খুব কঠিন সমস্যা। মালওয়্যার কারণে আপনার কম্পিউটারে বিভিন্ন সমস্যাগুলি হতে পারে, যেমন নিউক্লিয়ার হেডার, ট্রোজান, ওয়ার্ম এবং অন্যান্য কম্পিউটার ভাইরাস। এগুলি আপনার কম্পিউটারের সিস্টেম অপারেটিং স্যস্টেমকে নিখরচা করে এবং সেটিকে হ্যাক করতে পারে। মালওয়্যার একটি নিরাপদ কম্পিউটার ব্যবহারের জন্য খুবই ভেঙে চলে এবং আপনাকে কম্পিউটারের প্রতি সময় সতর্ক হতে হবে।

আপনি আপনার কম্পিউটারকে নিরাপদ করতে একটি ভাইরাস স্ক্যান করা এবং মালওয়্যার রিমুভ করা অবশ্যই করতে পারেন। সা কম্পিউটার ভাইরাস থেকে কম্পিউটারের নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য আপনাকে একটি ভাইরাস সম্পূর্ণ ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস বা প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাস চালানো উচিত।” Translation: To give a brief description of the topic, it can be said that computer malware is a very complex problem. Your computer can have various problems due to malware, such as nuclear headers, Trojans, worms, and other computer viruses. These can compromise your computer’s operating system and even hack into it. Malware poses a great threat to safe computer usage and you must be cautious about your computer all the time. You can scan your computer for viruses and remove them to keep it safe. To ensure computer security from viruses, you should use either a free or premium antivirus.

স্পাম

স্পাম হলো ইন্টারনেটে আপনার ইমেইল, ফোন নম্বর বা সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্টে অপস্থিত বিজ্ঞাপন, ফেক সংযোগ, অস্থির আর্থিক অফার এবং অবাস্তব ভিডিও বা ছবির লিংকের মাধ্যমে এখানে অবাঞ্ছিত মন্তব্য পোস্ট করা। স্প্যামারদের কাজ হচ্ছে সমস্ত মোবাইল ফোন এবং নেটওয়ার্ক তথ্য উত্পাদন করা এবং এটি একটি পাইকারি কাজ যা তাদের শত্রুর হাতে ব্যবহার করা হয়। একটি নতুন স্প্যাম ফোরামে একটি সমস্যার সমাধান খুঁজা বেশ কঠিন হতে পারে, তবে ইঞ্জিনিয়ার ও সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞদের সহায়তা সহজেই সম্ভব। কম্পিউটার ভাইরাস হলো একটি ধোঁকা প্রোগ্রাম যা মোবাইল ফোন, কম্পিউটার বা ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যমে ফেলে দেয়া হয়।

এর সিদ্ধান্ত নেটওয়ার্ক প্রোটোকোল বা সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারকে ক্রমাগত ধ্বংস করে ফেলার উদ্দেশ্যে গঠিত হয়। এই ভাইরাস মোবাইল ফোনগুলির অপারেটিং সিস্টেম, হার্ডডিস্ক, এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এবং ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবস্থার আক্রমণ করতে পারে। কারণ ইন্টারনেটের ব্যবহার এতটা বাড়ছে যে সবাই ইন্টারনেট ব্যবহার করে। তাই কম্পিউটারে ভাইরাস থাকা সম্ভব হয়, এবং এটি কম্পিউটারে জড়িত নতুন সমস্যার বিকল্প রুপ নিয়ে থাকে।

আর এ সমস্যার সমাধানে চাইলে সাধারণত এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়।

ফিশিং

বর্তমান প্রযুক্তির সমস্ত ক্ষেত্রে তুলে ধরতে গেলেই আপনি কম্পিউটার ব্যবহার এর সমস্ত পাশাপাশি একটি জনপ্রিয় সফটওয়ার ব্যবহার করছেন। এই সফটওয়্যার এর মধ্যে একটি ভাইরাস চলে আসলে আপনার পোষনাশক হতে পারে যা আপনার কম্পিউটারের সমস্ত ফাইল এবং ডেটা ধ্বংস করতে পারে। ফিশিং হলো কম্পিউটার ভাইরাস এর একটি ধরণ। এটি একটি ধোঁকা যা আপনাকে একটি খেলনার মাধ্যমে বাহির হওয়ার জন্য লোকজন চেষ্টা করে।

See also  কম্পিউটারের দক্ষতা এবং কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করার উপায়

কম্পিউটারের সফটওয়্যার শক্তিশালী হওয়ার কারণে, ফিশিং হ্যাকার সাধারণত ব্যবহারকারীদের কম্পিউটারে ব্যাবহার করা সফটওয়্যার খুজে বের করে এর মাধ্যমে আপনার কম্পিউটারে ভুল প্রভাব ডাকে। এটি আর্থিক লেনদেন, ব্যাংকিং তথ্য এবং অন্যান্য ব্যবহারকারী পরিচালিত সফটওয়্যার কে একটি ফিশিং অ্যাট্যাক এর ফাঁদে টেনে নেতে পারে। একটি ভাল এন্টিভাইরাস এবং সতর্কতা আপনার অনলাইন সুরক্ষা সম্পর্কে আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

স্কাই-বার

আমরা সবার কম্পিউটার ব্যবহার করি প্রতিদিন। কিন্তু কম্পিউটারের সাথে সাথেই ভাইরাসের ঝুঁকি থাকে। বেশির ভাগ কম্পিউটার ভাইরাসই মালওয়্যার হয়। মালওয়্যার উইকি কিংবা ক্র্যপশংকস্টও বলা হয়।

এই ধরনের ভাইরাস আপনার সিস্টেমকে হ্যাক করে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য ফিরে নেয়। এছাড়াও এই ধরনের ভাইরাস আপনার সিস্টেম অপারেটিং সিস্টেমের সাথে বাধা দেয় এবং আপনার কম্পিউটারকে শার্টকাটের মতো ব্যবহার করতে আবদ্ধ করে। আপনি নিজেকে নিরাপদে রাখতে চাইলে আপনার আনটিভাইরাস আপডেট করে রাখবেন এবং ইন্টারনেট ব্রাউজিং টুলবার সাথে মিলে নেওয়ার চেষ্টা করুন। সেই ভাবে আপনার কম্পিউটার প্রদর্শন এবং ব্যবহার করুন যাতে কম্পিউটারে ভাইরাস থাকার ঝুঁকি না থাকে।

আই ফ্রেম

আই ফ্রেম একটি উন্নয়নশীল ও দৃষ্টিশক্তি সম্পন্ন জাভাস্ক্রিপ্ট ফ্রেমওয়ার্ক। এটি ওয়েব পেজ এর উন্নয়ন করার জন্য দীর্ঘস্থায়ী, সরল ও সহজ উপায়। আই ফ্রেম দ্বারা উন্নয়ন করা ওয়েব পেজ সহজেই লোড হয় এবং ব্যাবহারকারীর অভিজ্ঞতা উন্নয়ন করে। কম্পিউটার ভাইরাস একটি সফটওয়্যার প্রোগ্রাম যা কম্পিউটার সিস্টেমের সুরক্ষা কমে আনে।

বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার ভাইরাস আছে যেমন – ওয়ার্ম, ট্রোজান হর্স, স্পাআমওয়্যার, রুটকিট ইত্যাদি। অনেকে কম্পিউটার ভাইরাস সেন্স করতে পারে না এবং তাদের কম্পিউটারে এই ভাইরাসগুলির প্রবেশ হয়ে যায়। তাই সুরক্ষা হলো গুরুত্বপূর্ণ। আই ফ্রেম এর সুরক্ষা উন্নয়নে সাহায্য করে এবং একটি নিরাপদ ওয়েব পেজ তৈরি করার সুবিধা দেয়।

এটি ব্যবহারকারীদের জন্য সহজ ও পরিষ্কার করে তোলে দাড়িয়ে দেয়।

ব্লুটুথ ভাইরাস

কম্পিউটার ভাইরাস হলো একটি মালিক যা আপনার কম্পিউটারের সিস্টেম এবং ডাটা সংরক্ষণ সম্পর্কিত অসুবিধার কারণে আপনার কম্পিউটার এবং ডাটার বিভিন্ন ধরণের ক্ষতির উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয়ে থাকে। বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার ভাইরাস রয়েছে, যেমন ট্রোজান হোর্স, ওয়ার্ম, ব্লুটুথ এবং অন্যান্য। ব্লুটুথ ভাইরাস হলো একটি আধুনিক ভাইরাস যা আপনার মোবাইল ফোন বা কম্পিউটারের ব্লুটুথ কানেকশনের মাধ্যমে আপনার সিস্টেমকে সংক্রমণ করতে পারে। এটি সংক্রমণ করলে আপনি আপনার সিস্টেমে কাজ করতে অস্বস্ত হতে পারেন এবং আপনার সিস্টেম ফ্রিজ হতে পারে।

মোবাইল ফোন এবং কম্পিউটার ব্লুটুথ সংক্রমিত হলে আপনি আপনার সিস্টেমের এন্টিভাইরাস প্রোগ্রাম এবং আরও সমস্যার জন্য হাইজেকিং টুল ব্যবহার করতে হবে। আপনি নিজেকে এই ধরণের সমস্যার থেকে রক্ষা করতে পারেন আপনার সিস্টেমকে নিরাপদ রাখেন এবং বিভিন্ন কম্পিউটার ভাইরাসের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকুন।

বোট নেট

বোট নেট তে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের বিভিন্ন ধরনের কম্পিউটার ভাইরাসের সম্মুখীন হওয়া দরকার। কম্পিউটারের মধ্যে সংক্রমিত হওয়া একটি ফাইল নিয়ে কম্পিউটার ভাইরাস নামের একটি ডিরেক্টরি প্রস্তুত করে থাকে। এই ভাইরাসগুলি সাধারণত ভাইরাস শৃংখলার মধ্যে থাকে এবং সেটি তৈরি হতে পারে কোনো একটি ওয়েবসাইট থেকে বা মেইল অ্যাটাচমেন্টে দ্বারা। কিছু ভাইরাস অধিকাংশ ক্ষতিকারক নয়, কিন্তু কিছুগুলি ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে এবং অবরোধ না হওয়ার জন্য সঙ্গীন হয়ে থাকে।

একটি ভাইরাস কম্পিউটারের জন্য একটি ভরসা সৃষ্টি করে এবং বিভিন্ন সমস্যা গুলি সৃষ্টি করে। তাই একটি সাধারণ উপকারী ভাইরাস ব্যবহারকারীদের কম্পিউটারে খারাপকৃতি ছাড়া অন্য কার্যগুলি করতে সক্ষম হতে দেয়। তাই, কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের দরকার এই ধরনের ভাইরাস থেকে জেনে ও নিজে সঠিক উপায়ে নিরাপদভাবে সুরক্ষিত থাকতে।

ক্রিপ্টো ভাইরাস

কম্পিউটার ভাইরাস হলো একটি কম্পিউটার ফাইল বা প্রোগ্রাম যা কম্পিউটারের কাজ বাধা দেয় এবং কম্পিউটারের তথ্যগুলি নিখুঁতভাবে ধরে রাখা থেকে বিরত রাখে। কম্পিউটার ভাইরাস একটি অপকারক প্রোগ্রাম কিন্তু এই অপকারক প্রোগ্রাম স্ক্রিপ্ট রান করে নিজের কাজ করতে পারে কিংবা অন্য কোন নির্দিষ্ট সমস্যা তৈরি করতে পারে। ক্রিপ্টো ভাইরাস হলো একধরনের কম্পিউটার ভাইরাস যা ক্রিপ্টো কারেন্সি নির্মাণ করে এবং সাধারণত এটি কম্পিউটার ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমে ইনফেকট হয়। এটি কারেন্সি নির্মাণ করার জন্য কম্পিউটারের সিস্টেম সম্পর্কিত তথ্য নষ্ট করতে পারে এবং এর কারণে কম্পিউটার সম্পর্কিত অপকারক কাজ করতে পারে।

এটি ক্রিপ্টো কারেন্সি নির্মাতাদের সুবিধা করে এবং এর মাধ্যমে এদের লেনদেন নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। কম্পিউটার ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে উচ্চ মানসম্পন্ন এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করা উচিত।

Leave a Comment