মাইক্রোকম্পিউটার কি?

মাইক্রোকম্পিউটার হল এমন একধরনের কম্পিউটার যা সিস্টেম এবং সার্ভিস প্রদান করতে ব্যবহৃত হয়। সাধারণত এই কম্পিউটারগুলি ছোট আকারের হয়ে থাকে এবং টেবিলের উপর রাখা যায়। এই কম্পিউটারগুলি বৈশিষ্ট্যপূর্ণ হলেও বেশ সম্মানজনক মূল্যে পাওয়া যায়। মাইক্রোকম্পিউটারগুলি কোড বা প্রোগ্রামকে ঠিকমত বিশ্লেষণ করতে সক্ষম এবং কম্পিউটিং সার্ভিস প্রদান করতে পারে।

প্রায় সমস্ত নতুন প্রযুক্তি তথ্য প্রণালীতে ব্যবহৃত হয় এবং এর ফলে এগুলির দরকারীতা দিনদিন বেশি বাড়তে লাগছে। মাইক্রোকম্পিউটারগুলি বেশ কম বিদ্যুৎ খরচ করে এবং স্থান সংকট দূর করতে সক্ষম হয়।

মাইক্রোকম্পিউটার সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোচনা

মাইক্রোকম্পিউটার হল একধরণের ভৌত উপকরণ, যা কম্পিউটার ভাষায় “embedded system” বলতে পারে। এর মূল কাজ হল বিভিন্ন সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার ফাংশনগুলি সমন্বিত করা, যা অন্যান্য উপকরণের সাথে যুক্ত করে একটি পূর্ণাঙ্গ সিস্টেম বানানোর কাজকে সহজ করে। মাইক্রোকম্পিউটারগুলি সাধারণত অন্য প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজে বসে থাকে, সেসব ল্যাঙ্গুয়েজ যা নির্দিষ্ট এর কাজকর্তাদের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। আজকে সকল এলেকট্রনিক প্রাণ্ত তে মাইক্রোকম্পিউটার ব্যবহার করা হয় এবং আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক কিছু অ মাইক্রোকম্পিউটার দিয়েই হয়, সেই সাবলীল সিস্টেমটিই এ ব্যবহার হয়ে থাকে।

মাইক্রোকম্পিউটার হল কোনও ছোট সাইজের কম্পিউটার যা প্রথমত একটি সংকল্প হিসাবে উন্নয়ন করা হয়েছিল।

মাইক্রোকম্পিউটার সম্পর্কে কথা বলতে গেলে এটি একটি ছোট আকারের কম্পিউটার যা প্রথমত একটি সংকল্প হিসাবে উন্নয়ন করা হয়েছিল। এটি অনেক ছোট ডিভাইস যা একটি চিপ বোর্ডে উপস্থিত থাকে এবং ব্যবহারকারীর প্রয়োজন অনুযায়ী অনেক ধরনের ডিভাইস যুক্ত করা হয়ে থাকে। এই কম্পিউটারগুলি মূলত প্রয়োজনীয় কাজ করতে উপযুক্ত এবং প্রোগ্রামিং প্রথম থেকে তৈরি হওয়া হয়। এছাড়াও আপনি এগুলি অন্য উপাদানগুলির সাথে পার্থক্যপূর্ণ একটি সমন্বয় তৈরি করতে পারেন যা আপনার জীবনকে সহজ করবে।

এই দিনের একটি ব্যবহারযোগ্য উদাহরণ হল স্মার্টফোন, যা একটি মাইক্রোকম্পিউটার হিসাবে বিবেচিত হতে পারে। আজ সেটি না হলেও প্রায় কেউ আমাদের স্মার্টফোনে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে পারে এবং এর ফলে আমাদের দৈনন্দিন জীবন সহজ হয়ে উঠেছে।

See also  কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার কি? POST বলতে কী বোঝায়?

মাইক্রোকম্পিউটারে উপস্থিত আইএসআই চিপ সিস্টেমের সাহায্যে এই কম্পিউটারগুলি পক্ষে পক্ষে বিশেষ কাজ করতে পারে।

মাইক্রোকম্পিউটার হল এমন একটি কম্পিউটার যা সাধারণত একটি ক্ষুদ্র উপাদান যেমন সিলিকন ক্রিস্টাল কে ব্যবহার করে তৈরি করা হয়। এই কম্পিউটারে উপস্থিত আইএসআই চিপ সিস্টেমের সাহায্যে এই কম্পিউটারগুলি পক্ষে পক্ষে বিশেষ কাজ করতে পারে। এই সিস্টেমটি একটি সম্পূর্ণ কম্পিউটার চিপের মত কাজ করে এবং অনেক উন্নত হতে পারে যেন এটি স্বচ্ছতার নিরাপত্তা এবং এনার্জি সংযবেদন ক্ষমতার সাথে সাথে বিভিন্ন কাজ করতে পারে। এই প্রযুক্তি একটি সম্পূর্ণ নতুন এবং ভবিষ্যতকে ভাবতে সাহায্য করে এবং এটি উন্নয়নের দিকে প্রবল শক্তি হিসাবে প্রদর্শিত হয়।

আমরা এই প্রযুক্তিটি ব্যবহার করে সাধারণত হেল্থকেয়ার ফিটনেস জিজ্ঞাসা এবং সংগীত সিস্টেম ইত্যাদি নির্দিষ্ট কাজ করতে পারি।

কিভাবে মাইক্রোকম্পিউটার কাজ করে?

মাইক্রোকম্পিউটার হল এমন একটি সিস্টেম যা আকারের প্রতিফলনে একটি কম্পিউটারের মতো কাজ করে। মাইক্রোকম্পিউটারে সাধারণত কম সাইজের কম্পিউটারগুলো আছে এবং এই সিস্টেমটি চিপসেট, প্রসেসর, র‌্যাম, স্টোরেজ এবং অন্যান্য কম্পোনেন্টস থাকে। মাইক্রোকম্পিউটারের অব্যবহিত সমস্ত ডেটা ও সিগন্যাল একটি সেন্সর বা মাইক্রোকন্ট্রোলার দ্বারা সংগ্রহ করা হয়। এই মাইক্রোকন্ট্রোলার এই ডেটা ও সিগন্যাল ব্যবহার করে নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদন করে।

উদাহরণস্বরূপ, একটি মটর চালানোর লক্ষে একটি লজিক গেইট ব্যবহার করে মাইক্রোকন্ট্রোলারটি একটি সিগন্যাল পাঠাতে পারে যেটি একটি এমওডি তৈরি করে এবং ফলস্বরূপ একটি লাইট হালকাভাবে জ্বলে। এইভাবে মাইক্রোকম্পিউটার নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদন করে এবং অদেখা থেকে বেশি সংশ্লিষ্ট সার্ভস প্রদান করে যার মধ্যে জ্বলবান আবেগ ও তীব্রতা ছাড়া লাভবান ব্যবহারকারীরা কাজ সম্পাদন করতে পারে।

মাইক্রোকম্পিউটার কম্পিউটারের সকল পার্টস সহজে পাকে এবং এটি অবশ্যই সবকিছু একত্রে কার্যকর করতে পারে।

মাইক্রোকম্পিউটার সম্পর্কে সম্পূর্ণ জ্ঞান না থাকলেও এটি ব্যবহার করা সম্ভব। এটি কম্পিউটারের সবচেয়ে ছোট ফর্ম ফ্যাক্টর বিশিষ্ট একটি প্রকার কম্পিউটার। মাইক্রোকম্পিউটারের নামের মধ্যে ‘মাইক্রো’ অর্থ হলো বিশেষভাবে ছোট এবং ‘কম্পিউটার’ অর্থ হলো একটি উপাদান যা সহজে কাজ করে।

See also  কম্পিউটার ও মানব মস্তিষ্কের মধ্যে পার্থক্য কি? কম্পিউটার নির্বোধযন্ত্র কেন?
মাইক্রোকম্পিউটারের সকল পার্টস প্রত্যক্ষভাবে দেখা যায়।

একটি প্রধান নির্দিষ্ট কাজ করার জন্য কম্পিউটারের সমস্ত জিনিস একত্রে কাজ করে এবং চাহিদা মেটানো যায়। আপনি মাইক্রোকম্পিউটারে এক সরল কমান্ড দিয়েই সকল ফাংশন চালু করতে পারেন। মাইক্রোকম্পিউটারের প্রধান পার্টস হলো প্রসেসর, র‍্যাম, রোম, সেন্সর, ডিসপ্লেই জেনারেটর, সি এম ইউ, রেসিস্টর, ট্রান্সিস্টর, আইসসি, পাওয়ার সাপ্লাই ইত্যাদি। অন্যান্য কম্পিউটারের মতো ইনপুট ডিভাইসের জন্য মাইক্রোকম্পিউটারে কিছু আকৃতির সেন্সর এবং সলিড স্টেট স্টোরেজ ডিভাইস ব্যবহার করা হয়।

মাইক্রোকম্পিউটার একটি প্রাসঙ্গিক ফর্ম ফ্যাক্টর কম্পিউটার যা সব কিছু একত্রে কার্যকর করতে পারে। এটি এমন একটি সিস্টেম যা স্বচ্ছতা এবং ফাংশনালিটির সাথে সম্পুর্নভাবে পৌঁছে যায়। এটি একটি সম্পূর্ণ ফাংশনাল সুইট এবং আয়ত্তকারক সম্মিলিত বৈশিষ্ট্য দিয়ে একটি মহান কম্পিউটার বানানোর জন্য পর্যাপ্ত প্রয়োজনীয় ফিচার সরবরাহ করে।

মাইক্রোকম্পিউটারে আইএসআই চিপে ডিজাইন করা হয়েছে যার কারণে এটি খুব সুবিধাজনক এবং কম ব্যবহার করতে হয়।

মাইক্রোকম্পিউটার একটি স্বচ্ছ এবং খুব ছোট সাইজের কম্পিউটার। এটি একটি আইএসআই চিপ দ্বারা ডিজাইন করা হয় যা একটি স্বচ্ছ এবং নির্ভরযোগ্য সিস্টেম হিসাবে কাজ করে। মাইক্রোকম্পিউটারে একটি সি প্রোগ্রাম থেকে মুক্তি পাওয়া হয় এবং প্রোগ্রামটি রান করা হয় সাধারণত একটি ব্যাটারিতে বা একটি সোলার প্যানেল দ্বারা চালিত হয়। এই সিস্টেম খুব সুবিধাজনক এবং পাওয়া যায় স্মার্ট হোম সিস্টেম, মোবাইল ডিভাইসসহ অনেক ডিভাইসে ব্যবহার করা যায়।

আপনি আপনার প্রোগ্রাম তৈরি করতে পারেন এবং সেটি মাইক্রোকম্পিউটারে আপলোড করতে পারেন। স্বচ্ছতার কারণে এই সিস্টেম প্রযুক্তি ও প্রতিবেদন উন্নয়নের জন্য খুব উপযোগী।

Leave a Comment